অধ্যায়ঃ পরিবেশ, তার সম্পদ এবং তাদের সংরক্ষণ | মাধ্যমিক জীবন বিজ্ঞান সাজেশন | Madhyamik Life Science Suggestion – WBBSE | WiN EXAM

0
36
অধ্যায়ঃ পরিবেশ, তার সম্পদ এবং তাদের সংরক্ষণ | মাধ্যমিক জীবন বিজ্ঞান সাজেশন | Madhyamik Life Science Suggestion - WBBSE | WiN EXAM

Madhyamik Life Science Suggestion – WBBSE with PDF | মাধ্যমিক জীবন বিজ্ঞান সাজেশন

অধ্যায়ঃ পরিবেশ, তার সম্পদ এবং তাদের সংরক্ষণ

1. নাইট্রোজেন চক্র কাকে বলে?
উত্তরঃ যে চক্রাকার পদ্ধতিতে বায়ুমণ্ডলের নাইট্রোজেন প্রাকৃতিক উপায়ে ও জীবাণু দ্বারা আবদ্ধ হয়ে মাটিতে মেশে ও সেখান থেকে জীবদেহে প্রবেশ করে এবং জীবদেহ ও মাটি থেকে পুনরায় বায়ুমণ্ডলে আবর্তিত হয়, তাকে নাইট্রোজেন চক্র বলে।

2. মাটির নাইট্রোজেনের উৎস কী?
উত্তরঃ মিথোজীবী ব্যাকটেরিয়া রাইজোবিয়াম বায়ু থেকে সরাসরি নাইট্রোজেন মাটিতে আবদ্ধ করে।

3. নাইট্রোজেন সংবন্ধ বা নাইট্রোজেন স্থিতিকরণ কাকে বলে?
উত্তরঃ যে প্রক্রিয়ায় বায়ুর মুক্ত নাইট্রোজেন নাইট্রোজেন ঘটিত যৌগরূপে মাটিতে আবদ্ধ হয় তাকে নাইট্রোজেন সংবন্ধন বা নাইট্রোজেন স্থিতিকরণ বলে।

4. কুইনাইন কোন রোগের ওষুধ?
উত্তরঃ ম্যালেরিয়া।

5. সুন্দরবনের নামকরণ করা হয়েছে কোন গাছের আধিক্যের জন্য?
উত্তরঃ সুন্দরী গাছ।

6. পশ্চিমবঙ্গের কোন অভয়ারণ্যে গণ্ডার সংরক্ষণ করা হয়েছে?
উত্তরঃ জলদাপাড়া অভয়ারণ্যে।

7. পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন ছাড়া আর কোথায় ব্যঘ্র প্রকল্প আছে?
উত্তরঃ মধ্যপ্রদেশের রেওয়া জঙ্গলে সাদা বাঘ পাওয়া যায়।

8. সিকিমে কোন প্রাণী সংরক্ষণ করা হয়?
উত্তরঃ রেড পাণ্ডা।

9. প্রকৃতির নাইট্রোজেনের উৎস কোথায়?
উত্তরঃ মিথোজীবী ব্যাকটেরিয়া রাইজোবিয়াম বায়ু থেকে সরাসরি নাইট্রোজেন মাটিতে আবদ্ধ করে।

10. শিম্বগোত্রীয় উদ্ভিদের মূলে কোন ব্যাকটেরিয়া বসবাস করে?
উত্তরঃ রাইজোবিয়াম।

11. বায়ুর নাইট্রোজেন বৃষ্টির জলের সঙ্গে মিশে কীরূপে নেমে আসে?
উত্তরঃ নাইট্রাস অ্যাসিড এবং নাইট্রিক অ্যাসিডে পরিণত হয়ে মাটিতে নেমে আসে।

12. ক্লসট্রিডিয়াম কীরূপ জীব?
উত্তরঃ নাইট্রোজেন স্থিতিকারী জীবাণু।

13. নাইট্রোজেন সংবন্ধনকারী একটি নীলাভ সবুজ শৈবালের উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ অ্যানাবিনা।

14. অ্যামোনিফিকেশন কাকে বলে?
উত্তরঃ মাটিতে অবস্থিত বিয়োজকদের ক্রিয়ার ফলে মৃত জীবদেহের প্রোটিন অংশ প্রথমে অ্যামাইনো অ্যাসিড এবং পরে অ্যামোনিয়ায় পরিণত হয়। এই পদ্ধতিকে অ্যামোনিফিকেশন বলে।

15. কোন ব্যাকটেরিয়া অ্যামোনিফিকেশনে সাহায্য করে?
উত্তরঃ ব্যাসিলাস মাইকয়ডিস ও ব্যাসিলাস র‍্যামোসাস।

16. নাইট্রিফিকেশন কাকে বলে?
উত্তরঃ যে পদ্ধতিতে জীবাণুর ক্রিয়ার ফলে মৃত্তিকাস্থ অ্যামোনিয়া প্রথমে নাইট্রাইট এবং পরে নাইট্রেট যৌগে পরিণত হয়, তাকে নাইট্রিফিকেশন বলে।

17. একটি নাইট্রিফাইং ব্যাকটেরিয়ার উদাহরণ দাও?
উত্তরঃ নাইট্রোসোমোনাস এবং নাইট্রোব্যাকটার।

18. একটি ডিনাইট্রিফাইং ব্যাকটেরিয়ার উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ থায়োব্যাসিলাস ডিনাইট্রিফিক্যান্স ও সিউডোমোনাস।

19. একটি গ্রীন হাউস গ্যাসের উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ নাইট্রাস অক্সাইড, ক্লোরোফ্লুরোকার্বন,কার্বন ড্রাই অক্সাইড ইত্যাদি।

20. SPM এর পুরো নাম কী?
উত্তরঃ সাসপেণ্ডেড পারটিকিউলেট ম্যাটার। (Suspended Particulate Matter)।

21. পরিবেশ দূষণ কাকে বলে?
উত্তরঃ বায়ু, মাটি, জল প্রভৃতির ভৌত, রাসায়নিক ও জৈবিক বৈশিষ্ট্যের যে অনভিপ্রেত পরিবর্তন মানবসভ্যতাকে, যে-কোন প্রজাতির জীবনকে, কোনো শিল্পের প্রক্রিয়াকে, কোনো জীবের অস্তিত্বকে, এমনকি কোনো সাংস্কৃতিক বা প্রাকৃতিক সম্পদকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে বা করতে পারে, তাকেই পরিবেশ দূষণ বলে।

22. দূষক কাকে বলে?
উত্তরঃ যেসব পদার্থ দূষণ ঘটায় তাদের দূষক বলে।

23. বায়ুদুষণের ফলে ফুসফুসের যে রোগ হয় তার একটি উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ ব্রংকাইটিস রোগ হয়।

24. অরণ্য ধ্বংসের একটি কারণ লেখো।
উত্তরঃ গৃহনির্মাণ, কলকারখানা নির্মাণ, কাঠ সংগ্রহ ইত্যাদি কারণে যথেচ্ছভাবে অরণ্য ধ্বংস হচ্ছে।

25. ভারতে কটি হটস্পট অঞ্চল আছে?
উত্তরঃ ভারতবর্ষে ৪ টি হটস্পট আছে। সেগুলি হল – পূর্ব হিমালয়, ইন্দো-বার্মা, পশ্চিমঘাট ও শ্রীলঙ্কা এবং সুন্দাল্যাণ্ড।

26. সুন্দরবনের একটি আকর্ষণীয় উদ্ভিদের নাম কী?
উত্তরঃ সুন্দরী।

27. সুন্দরবনের একটি সরীসৃপের উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ গিরিগিটি।

28. টাইগার প্রোজেক্ট কোথায় আছে?
উত্তরঃ পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবনে।

29. পশ্চিমবঙ্গের বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভ কোনটি?
উত্তরঃ সুন্দরবন

30. পশ্চিমবঙ্গের অভয়ারণ্য কোনটি?
উত্তরঃ বেথুয়াডহরি।

31. ভারতের বিখ্যাত কুমির প্রোজেক্ট কোনটি?
উত্তরঃ পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন (লোথিয়ান দ্বীপ), ওড়িশার ভিতরকণিকা, টিকরপাড়া এবং নন্দনকানন কুমির প্রকল্প হিসাবে বিখ্যাত।

32. ক্রায়োসংরক্ষণের তাপমাত্রা কত?
উত্তরঃ 0 ডিগ্রি সেন্ট্রিগ্রেড এর নীচে।

33. রেড পাণ্ডা প্রোজেক্ট কোথায় অবস্থিত?
উত্তরঃ সিকিম ও অরুণাচল প্রদেশ।

34. জলে ডিটারজেণ্ট মিশলে কোন প্রকার জীবের দ্রুত বংশবৃদ্ধি ঘটে?
উত্তরঃ শৈবাল জাতীয় জীবের।

35. কাকে প্রকৃতির বৃক্ক বলা হয়?
উত্তরঃ জলাভূমিকে।

36. নাইট্রোজেন চক্র কাকে বলে?
উত্তরঃ যে চক্রাকার পদ্ধতিতে বায়ুমণ্ডলের নাইট্রোজেন প্রাকৃতিক উপায়ে ও জীবাণু দ্বারা আবদ্ধ হয়ে মাটিতে মেশে ও সেখান থেকে জীবদেহে প্রবেশ করে এবং জীবদেহ ও মাটি থেকে পুনরায় বায়ুমণ্ডলে আবর্তিত হয়, তাকে নাইট্রোজেন চক্র বলে।

37. নাইট্রিফিকেশন কাকে বলে?
উত্তরঃ যে পদ্ধতিতে জীবাণুর ক্রিয়ার ফলে মৃত্তিকাস্থিত অ্যামোনিয়া প্রথমে নাইট্রাইট এবং পরে নাইট্রেট যৌগে পরিণত হয়, তাকে নাইট্রিফিকেশন বলে। নাইট্রিফাইং ব্যাকটেরিয়ার উদাহরণ হল নাইট্রোসোমোনাস এবং নাইট্রোকাকটার।

38. ডিনাইট্রিফিকেশন কাকে বলে?
উত্তরঃ মাটিতে বসবাসকারী কিছু জীবাণু মাটিতে আবদ্ধ নাইট্রোজেন যৌগ ভেঙে নাইট্রোজেনকে মুক্ত করে এবং বায়ুমণ্ডলে ফিরিয়ে দেয়। এই পদ্ধতিকে নাইট্রোজেন মোচন বা ডিনাইট্রিফিকেশন বলে। ডিনাইট্রিফাইং জীবাণু হল থায়োব্যাসিলাস ডিনাইট্রিফিক্যান্স।

39. লেগ হিমগ্লোবিন কী?
উত্তরঃ শিম্বগোত্রীয় উদ্ভিদদেহে অবস্থিত প্রাণীদেহের হিমগ্লোবিন সদৃশ একপ্রকার জৈব যৌগ। এটি থাকার ফলে শিম্বগোত্রীয় উদ্ভিদের মূলে রাইজোবিয়াম বাসা বাঁধে।

40. নাইট্রোজেন সংবন্ধন কাকে বলে?
উত্তরঃ যে পক্রিয়ায় বায়ুর মুক্ত নাইট্রোজেন নাইট্রোজেন ঘটিত যৌগরূপে মাটিতে আবদ্ধ হয় তাকে নাইট্রোজেন সংবন্ধন বা নাইট্রোজেন স্থিতিকরণ বলে।

41. দুটি স্বাধীনজীবী ব্যাকটেরিয়ার উদাহরণ দাও যারা নাইট্রোজেন সংবন্ধন ঘটায়।
উত্তরঃ ক্লসট্রিডিয়াম, অ্যাজোটোব্যাকটর প্রভৃতি।

42. পরিবশ দূষণ কাকে বলে?
উত্তরঃ বায়ু, জল, মাটি প্রভৃতির ভৌত, রাসায়নিক ও জৈবিক বৈশিষ্ঠ্যের যে অনভিপ্রেত পরিবর্তন মানবসভ্যতাকে, যে-কোন প্রজাতির জীবনকে, কোনো শিল্পের পক্রিয়াকে, কোন জীবের অস্তিত্বকে এমনকি কোনো সাংস্কৃতিক বা প্রাকৃতিক সম্পদকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে বা করতে পারে তাকেই পরিবেশদূষণ বলে।

43. অ্যামিনিফিকেশন কাকে বলে?
উত্তরঃ মাটিতে অবস্থিত বিয়োজকদের ক্রিয়ার ফলে মৃত জীবদেহের প্রোটিন অংশ প্রথমে অ্যামাইনো অ্যাসিড এবং পরে অ্যামোনিয়ায় পরিণত হয়। এই পদ্ধতিকে অ্যামোনিফিকেশন বলে। অ্যামোনিফাইং ব্যাকটেরিয়া হল – ব্যাসিলাস মাইকয়ডিস, ব্যাসিলাস র‍্যামোসাস।

44. ইউট্রিফিকেশন কাকে বলে?
উত্তরঃ জলাশয়ে ফসফেট জাতীয় সার, ডিটারজেন্ট ইত্যাদি মিশলে জলজ উদ্ভিদের বিশেষ করে শৈবালদের ব্যাপক বৃদ্ধি ঘটে, ফলে জলে অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা যায়। এই প্রক্রিয়াকে ইউট্রফিকেশন বলে।

45. শৈবাল ব্লুম কাকে বলে?
উত্তরঃ জলে ফসফেট জাতীয় সার, ডিটারজেন্ট ইত্যাদি মিশলে শৈবালদের ব্যাপক বৃদ্ধি ঘটে এবং অক্সিজেনের পরিমাণ কমে যায়, ফলে শৈবালের পচন ঘটে এবং জল দূষিত হয়। একে শৈবাল ব্লুম বলে।

46. দুটি কৃষিক্ষত্রের বর্জ্য পদার্থের উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ অ্যামোনিয়া, ইউরিয়া ইত্যাদি।

47. কয়েকটি জলজ সম্পদের উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ বিভিন্ন সামুদ্রিক প্রাণী, মাছ, মুক্তা ঝিনুক ইত্যাদি।

48. কী কী রাসায়নিক বস্তু জল দূষণ ঘটায়?
উত্তরঃ কলকারখানার বর্জ্য, যেমন – ক্লোরিন, কস্টিক সোডা, ফেনল, সায়ানাইড, অ্যামোনিয়া, সিসা প্রভৃতি রাসায়নিক পদার্থ জলে মিশে জলকে দূষিত করছে। কৃষিক্ষেত্রে ব্যবহৃত রাসাওনিক সার, কীটনাশক ইতাদি বৃষ্টির জলে ধৌত হয়ে পুকুর ও নদীতে মিশে জলকে দূষিত করছে।

49. অ্যাজমার কারণ ও লক্ষণ উল্লেখ করো।
উত্তরঃ বায়ুতে মিশে থাকা ধুলো-বালি, ছত্রাক, ঝুল, ধোঁয়া, পরাগরেণু ধূমপানের ধোঁয়া ইত্যাদি বায়ুদূষক মানবদেহে প্রবেশ করলে হাঁপানি বা শ্বাসকষ্ট হয়।

এই রোগে ফুসফুসের সূক্ষ্ম বায়ুনালিগুলির প্রদাহ হয়। তরল মিউকাশে নালিগুলি বন্ধ হয়ে গিয়ে শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। এই রোগে রোগী খুব কষ্ট পায়, শুয়ে থাকতে পারে না, মাথা নীচু করে হাঁপাতে থাকে, বুকের মধ্যে সাঁইসাঁই আওয়াজ হতে থাকে।

50. ক্যানসারের দুটি চিকিৎসা পদ্ধতি উল্লেখ করো।
উত্তরঃ বায়োপসি করে ক্যানসার রোগ চিহ্নিত করা হয়। কেমোথেরাপি, রেডিয়োথেরাপি, শল্য চিকিৎসার মাধ্যমেও ক্যানসারের চিকিৎসা করা হয়।

51. অঙ্কোজিন কী?
উত্তরঃ যে জিন থেকে ক্যানসার হয় তাকে অঙ্কোজিন বলে।

52. রেসারপিন ও ডাটুরিন থেকে কোন রোগের ওষুধ তৈরি হয়?
উত্তরঃ রেসারপিন থেকে উচ্চ রক্তচাপের ওষুধ এবং ডাটুরিন থেকে হাঁপানির ওষুধ তৈরি হয়।

53. জীববৈচিত্র্যের হটস্পটগুলি কী কী?
উত্তরঃ পৃথিবীর যে সমস্ত অঞ্চলে অত্যধিক সংখ্যায় উদ্ভিদ ও প্রাণী, বিশেষ করে আঞ্চলিক প্রজাতি বাস করে এবং যাদের অস্তিত্ব বর্তমানে বিপন্ন হতে চলেছে, অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে সংরক্ষণের জন্য সেই সকল অঞ্চলকে হটস্পট বলা হয়।

সমগ্র পৃথিবীতে ৩৪ টি স্থলজ এলাকাকে হটস্পট হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর মধ্যে ভারতবর্ষে ৪ টি হটস্পট রয়েছে। সেগুলি হল – পূর্ব হিমালয়, ইন্দো-বার্মা, পশ্চিমঘাট ও শ্রীলঙ্কা এবং সুন্দাল্যাণ্ড।

54. জীববৈচিত্র্য হ্রাস পাওয়ার দুটি কারণ উল্লেখ করো।
উত্তরঃ জীববৈচিত্র্য হ্রাস পাওয়ার দুটি কারণ হল –

১। বিশ্ব উষ্ণায়ন এবং জলবায়ুর পরিবর্তনঃ

নানা গ্রিনহাউস গ্যাস অতিরিক্ত মাত্রায় বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে বিশ্ব উষ্ণায়ন ঘটছে, ফলে অনেক জীবজন্তু পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রভাবে ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রার বৃদ্ধির ফলে জলবায়ুর যে চরম পরিবর্তন ঘটছে তার জন্য সমুদ্র, বায়ুমণ্ডল এবং ভূপৃষ্ঠের মধ্যে যে জলচক্র আছে তার পরিবর্তন ঘটবে। তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে অধিক মাত্রায় জল বাষ্পীভূত হবে এবং মৃত্তিকা ক্রমাগত শুষ্কতর রূপ ধারণ করবে, যার ফলে গ্রীষ্মকালে গরমের মাত্রা অধিক হবে আবার বর্ষাকালে অতিবৃষ্টির ফলে বন্যা হবে।

২। শিকার ও চোরাশিকারঃ

মানুষ অর্থের লোভে বা নিছক শিকারের আনন্দে পশুপাখি শিকার করে। এর ফলে আজ অনেক বন্যপ্রাণীই অবলুপ্তির মুখে। তাছাড়া বিভিন্ন চোরাশিকারিরা বিভিন্ন প্রাণীর চামড়া, লোম, দাঁত শিং প্রভৃতি বিদেশে রপ্তানি করার জন্য চোরাশিকারে লিপ্ত হচ্ছে। বেআইনিভাবে বহু প্রাণী নিধনের ফলে ওইসকল প্রাণীরা বিলুপ্তির পথে এসে দাঁড়িয়েছে।

55. গ্রিনহাউস গ্যাস কীভাবে বিশ্ব উষ্ণায়ন ঘটায়?
উত্তরঃ কার্বন ডাই অক্সাইড, মিথেন, নাইট্রাস অক্সাইড, CFC প্রভৃতি গ্যাসের তাপ ধরে রাখার ক্ষমতা বেশি। এদেরকে বলে গ্রিনহাউস গাস। এরা সূর্য থেকে আগত রশ্মিকে শোষণ করে এবং খুব কম পরিমাণ শক্তি নির্গত করে। ফলে পৃথিবীতে মোট তাপশক্তির পরিমাণ বাড়তে থাকে এবং পৃথিবীর উষ্ণতা বাড়ে।

56. ইন-সিটু সংরক্ষণ কাকে বলে?
উত্তরঃ প্রাকৃতিক বাসস্থানে অর্থাৎ নিজস্ব পরিবেশে জীববৈচিত্র্য সংবক্ষণকে ইন সিটু সংরক্ষণ বলে।

57. এক্স-সিটু সংরক্ষণ কাকে বলে?
উত্তরঃ উদ্ভিদ ও প্রাণীর নিজস্ব প্রাকৃতিক আবাসস্থলের বাইরে তাদের সংরক্ষণ করার পদ্ধতিকে এক্স সিটু বলে।

58. অভয়ারণ্য কাকে বলে?
উত্তরঃ যে সংরক্ষিত অরণ্যে বন্যপ্রাণী নির্ভয়ে বিচরণ করে, স্বাধীনভাবে খাদ্যগ্রহণ করে ও বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়ে প্রজনন কার্য সম্পন্ন করে, তাকে অভয়ারণ্য বলে। যেমন – পশ্চিমবঙ্গের বেথুয়াডহরি, অসমের মানস।

59. জাতীয় উদ্যান কাকে বলে?
উত্তরঃ যে অরণ্য কেন্দ্রীয় সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন, অভয়ারণ্যের তুলনায় বৃহৎ, যে বনভূমিতে প্রানীহত্যা, গাছকাটা, মাছধরা, বিনা অনুমতিতে প্রবেশ নিষেধ, তাকে জাতীয় উদ্যান বলে। যেমন – পশ্চিমবঙ্গের গোরুমারা এবং উত্তরাখণ্ডের করবেট।

60. দুটি জাতীয় উদ্যানের নাম লেখ।
উত্তরঃ পশ্চিমবঙ্গের গোরুমারা এবং উত্তরাখণ্ডের করবেট।

61. বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভ কাকে বলে?
উত্তরঃ UNESCO-র Man and Biosphere Reserve কর্মসূচির অন্তর্গত যে স্থলজ ও জলজ অঞ্চলে গোটা বাস্তুতন্ত্র ও তার সম্পূর্ণ জীববৈচিত্র সংরক্ষিত হয়, তাকে বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভ বলে।

62. পশ্চিমবঙ্গের বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভের উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ সুন্দরবন।

63. দুটি রিজার্ভ ফরেস্টের উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ পশ্চিমবঙ্গের বৈকুণ্ঠপুর, অসমের কাজিরাঙা, গুজরাটের গির।

64. JFM ও PBR এর পুরো নাম কী?
উত্তরঃ JFM – Joint Forest Management

PBR – People’s Biodiversity Registrar

65. দুটি বিপন্ন প্রজাতির উদাহরণ দাও।
উত্তরঃ গণ্ডার, রেড পাণ্ডা।

66. পশ্চিমবঙ্গের কোথায় কোথায় টাইগার প্রোজেক্ট আছে?
উত্তরঃ সুন্দরবনে।

67. ভারতের একটি প্রসিদ্ধ কুমির প্রকল্প ও রেড পাণ্ডা প্রকল্পের স্থান উল্লেখ কর।
উত্তরঃ পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন ও ওড়িশার টিকরপাড়া ও ভিতরকণিকা।

FILE INFO : Madhyamik Life Science Suggestion – WBBSE with PDF Download for FREE | মাধ্যমিক জীবন বিজ্ঞান সাজেশন বিনামূল্যে ডাউনলোড | অধ্যায়ঃ পরিবেশ, তার সম্পদ এবং তাদের সংরক্ষণ (অতিসংক্ষিপ্ত ও সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর)

File Details:
PDF Name : অধ্যায়ঃ পরিবেশ, তার সম্পদ এবং তাদের সংরক্ষণ – মাধ্যমিক জীবন বিজ্ঞান সাজেশন
Language : Bengali
Size : 214.0 kb 
No. of Pages : 10
Download Link : Click Here To Download
বিভিন্ন স্কুল বোর্ড পরীক্ষা, প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার সাজেশন, অতিসংক্ষিপ্ত, সংক্ষিপ্ত ও রোচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর (All Exam Guide Suggestion, MCQ Type, Short, Descriptive Question and answer), প্রতিদিন নতুন নতুন চাকরির খবর (Job News in Bengali) জানতে এবং সমস্ত পরীক্ষার এডমিট কার্ড ডাউনলোড (All Exam Admit Card Download) করতে winexam.in ওয়েবসাইট ফলো করুন, ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here