জ্ঞানচক্ষু – আশাপূর্ণা দেবী | মাধ্যমিক বাংলা সাজেশন | Madhyamik Bengali Suggestion – WBBSE | WiN EXAM

0
35
জ্ঞানচক্ষু - আশাপূর্ণা দেবী | মাধ্যমিক বাংলা সাজেশন | Madhyamik Bengali Suggestion - WBBSE | WiN EXAM

Madhyamik Bengali Suggestion – WBBSE with PDF | মাধ্যমিক বাংলা সাজেশন

জ্ঞানচক্ষু – আশাপূর্ণা দেবী

বহুবিকল্পীয় প্রশ্ন (প্রশ্নমান – ১)
সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো :
১. ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পের রচয়িতা
(ক) আশাপূর্ণা দেবী (খ) মহাশ্বেতা দেবী (গ) নবনীতা সেন (ঘ) অনিলা দেবী
ans. (ক) আশাপূর্ণা দেবী
২. কথাটি শুনে তপনের চোখ কীরকম হয়ে গেল?
(ক) মার্বেল (খ) ছানাবড়া (গ) ক্রিকেট বল (ঘ) রসগোল্লা
ans. (ক) মার্বেল
৩. তপনের মেসো কীসের ছুটিতে শ্বশুরবাড়ি এসেছেন?
(ক) গ্রীষ্মের ছুটি (খ) পুজোর ছুটি (গ) বড়োদিনের ছুটি (ঘ) ইদের ছুটি
ans. (ক) গ্রীষ্মের ছুটি
৪. তপনের কোন্ মেসোমশাই বই লেখেন?
(ক) বড়ো মেসোমশাই (খ) ছোটো মেসোমশাই (গ) মেজো মেসোমশাই (ঘ) সেজো মেসোমশাই
ans. (খ) ছোটো মেসোমশাই
৫. তপনের ছোটোমেসো ‘এদেশের কিছু হবে না’ বলে মন্তব্য করে কী দেখতে চলে যান?
(ক) তাজমহল (খ) চিড়িয়াখানা (গ) জাদুঘর (ঘ) সিনেমা
ans. (ঘ) সিনেমা
৬. তপনের ছোটোমেসসা কী উপলক্ষ্যে শ্বশুরবাড়িতে এসেছেন?
(ক) পৈতে (খ) বিয়ে (গ) অন্নপ্রাশন (ঘ) শ্রাদ্ধ
ans. (খ) বিয়ে
৭. দুপুরবেলায় সবাই যখন নিথর নিথর, তখন তপন আস্তে আস্তে একটি খাতা ও কলম নিয়ে গল্প লেখার জন্য কত তলার ছাদে গেল?
(ক) দোতলার (খ) চারতলার (গ) একতলার (ঘ) তিনতলার
ans. (ঘ) তিনতলার
৮. তপনের চেয়ে ওর ছোটোমাসি কত বছরের বড়ো?
(ক) আট বছরের (খ) দশ বছরের (গ) বারো বছরের (ঘ) এগারো বছরের
ans. (ক) আট বছরের
৯. গ্রীষ্মের ছুটি শেষ হওয়ার পর তপন কী করল?
(ক) উপন্যাস লিখল (খ) রীতিমতো পড়া শুরু করল (গ) নাটক লিখল (ঘ) প্রবন্ধ গ্রন্থ লিখল
ans. (খ) রীতিমতো পড়া শুরু করল
১০. তপনের লেখা গল্পটির নাম
(ক) রাজারানির গল্প (খ) স্কুলের অভিজ্ঞতা (গ) প্রথম দিন (ঘ) মামাবাড়ি
ans. (গ) প্রথম দিন
১১. তপনের লেখা কোন পত্রিকায় ছাপা হয় ?
(ক) সবুজপত্র (খ) বঙ্গদর্শন (গ) সন্ধ্যাতারা (ঘ) ভারতী
ans. (গ) সন্ধ্যাতারা
১২. “কই পড়? লজ্জা কী? পড়, সবাই শুনি।”– এই কথাগুলি তপনকে কে বলেছে?
(ক) তপনের বাবা (খ) তপনের মেজোকাকু (গ) তপনের ছোটোমাসি (ঘ) তপনের মা
ans. (ঘ) তপনের মা
১৩. মায়ের ধমক খেয়ে তপন কেমনভাবে গল্পটি পড়ে যায়?
(ক) থেমে থেমে (খ) গড়গড়িয়ে (গ) কেঁদে কেঁদে (ঘ) হেসে হেসে
ans. (খ) গড়গড়িয়ে
১৪. তপন বইটা ফেলে কোথায় চলে যায় ?
(ক) বাড়ির বাইরে (খ) বাগানে (গ) বাড়ির ছাদে (ঘ) প্রতিবেশীর বাড়িতে
ans. (গ) বাড়ির ছাদে
১৫. সারা বাড়িতে শোরগোল পড়ে যাওয়ার কারণ
(ক) তপনের ছেটোমাসির বিয়ে (খ) তপনের গল্প পত্রিকায় ছাপা হয়েছে (গ) তপন পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে (ঘ) সবগুলি সঠিক
ans. (খ) তপনের গল্প পত্রিকায় ছাপা হয়েছে

অতিসংক্ষিপ্ত উত্তরধর্মী প্রশ্ন (প্রশ্নমান – ১)
১. ‘জ্ঞানচক্ষু’গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্র কে?
ans. লেখিকা আশাপূর্ণা দেবীর লেখা ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পের কেন্দ্রীয় বা প্রধান চরিত্র হল তপন।
২. আশাপূর্ণা দেবী কবে, কোথায় জন্মগ্রহণ করেন?
ans. লেখিকা আশাপূর্ণা দেবী ১৯০৯ খ্রিস্টাব্দের ৮ জানুয়ারি কলকাতার পটলডাঙায় মামারবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন।
৩. কথাটা শুনে কার চোখ মার্বেলের মতো হয়ে গেল?
ans. আশাপূর্ণা দেবীর লেখা ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পে কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেলের মতো হয়ে গেল।
৪. কাকে দেখে তপনের জ্ঞানচক্ষু খুলে গেল?
ans. নতুন মেসো অর্থাৎ ছোটো মেসোমশাইকে দেখে তপনের জ্ঞানচক্ষু খুলে গেল।
৫. তপনের ছোটোমেসো ছোটোমামার মতো কী করেন?
ans. তপনের ছোটোমেসো ছোটোমামার মতো খবরের কাগজের সব কথা নিয়ে প্রবলভাবে গল্প করেন, তর্ক করেন, ‘এদেশের কিছু হবে না’ বলেন।
৬. তপনের ছোটো মেসোমশাইয়ের পরিচয় কী?
ans. তপনের ছোটো মেসোমশাই একজন কলেজের অধ্যাপক। তিনি একজন লেখক, সত্যিকারের লেখক।
৭. তপনের ছোটো মেসোমশাই সুযোগ পেলে কী করতেন?
ans. তপনের ছোটো মেসোমশাই সুযোগ পেলে দিবানিদ্রা যেতেন।
৮. “তা হলে বাপু তুমি ওর গল্পটা ছাপিয়ে দিও”—এই কথাটি কে, কাকে বলেছে?
ans. লেখিকা আশাপূর্ণা দেবীর লেখা ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পে তপনের ছোটোমাসি তার স্বামীকে অর্থাৎ ছোটোমেসোকে এই কথাটি বলেছে।
৯. বিকেলে চায়ের টেবিলে কী কথা ওঠে?
ans. লেখিকা আশাপূর্ণা দেবীর লেখা ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পে তপনের গল্প লেখার ব্যাপারটা বিকেলে চায়ের টেবিলে ওঠে।
১০. ছুটির শেষে তপনের মেসো গল্পটি নিয়ে গেলে তপন কী করে?
ans. আশাপূর্ণা দেবীর লেখা ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পে ছুটির শেষে তপনের মেসো তপনের গল্পটি নিয়ে গেলে সে কৃতার্থ হয়ে বসে বসে দিন গোনে।
১১. তিনতলার সিঁড়িতে উঠে গিয়ে গল্প লিখে সেটি পড়ার পর তপনের কী হল?
ans. তিনতলার সিঁড়িতে উঠে গিয়ে গল্প লিখে সেটি পড়ার পর তপনের গায়ে কাটা দিয়ে ওঠে এবং মাথার চুল খাড়া হয়ে ওঠে।
১২. তপনের গল্প পড়ে ছোটোমাসি কী বলেছিল?
ans. তপনের গল্প পড়ে ছোটোমাসি বলেছিল, “কোনোখান থেকে টুকলিফাই করিসনি তো?”
১৩. “সূচিপত্রেও নাম রয়েছে” –সুচিপত্রে কী লেখা ছিল?
ans. ‘সন্ধ্যাতারা’ পত্রিকার সূচিপত্রে লেখা ছিল—প্রথম দিন (গল্প) শ্রী তপন কুমার রায়।
১৪. বিয়ে হয়ে ছোটোমাসি কীরকম হয়ে গেছে?
ans. লেখিকা আশাপূর্ণা দেবীর লেখা “জ্ঞানচক্ষু গল্পে তপনের ছোটোমাসি বিয়ে হওয়ার পর একটু মুরুব্বি হয়ে গেছে।
১৫. তপনের গল্প ছাপা হলে তার মা প্রথমে কী বলেন?
ans. তপনের গল্প ছাপা হলে তার মা প্রথমে বলেন, “কই তুই নিজের মুখে একবার পড় তো শুনি! বাবা, তোর পেটে পেটে এত।”
১৬. “মেসো অবশ্য মৃদু মৃদু হাসেন।”- মেসোর হাসির কারণ কী?
ans. মেসো জানেন তপনের গল্প তিনি সংশোধন করে নিজে সম্পাদকের হাতে জমা দিয়েছেন আর তা ছাপানোর কাজে সার্থক হয়েছেন, তাই তিনি মৃদু মৃদু হাসেন।
১৭. “ক্রমশ ও কথাটা ছড়িয়ে পড়ে।”—কোন কথাটি ছড়িয়ে পড়ে?
ans. তপনের ছোটোমেসো তপনের লেখা গল্প একটু-আধটু কারেকশন করে লেখাটা ছাপানোর ব্যবস্থা করেছিলেন এই কথাটিই ছড়িয়ে পড়ে।
১৮. “এ কার লেখা?” – তপনের মনে এমন প্রশ্ন জাগার কারণ কী?
ans. ছাপানোর গল্পে থাকা প্রত্যেকটি বাক্য তপনের কাছে নতুন আনকোরা ও অপরিচিত মনে হওয়ায় তার মনে এমন প্রশ্ন জাগে।

ব্যাখ্যাভিত্তিক সংক্ষিপ্ত উত্তরধর্মী প্রশ্ন (প্রশ্নমান – ৩)
১. নতুন মেসোকে দেখে তপনের কীভাবে জ্ঞানচক্ষু খুলে গেল ?
২. নতুন মেসোমশাই সম্পর্কে তপন কী শোনে?
৩. লেখকদের সম্পর্কে তপনের কী ধারণা ছিল এবং কীভাবে সেই ধারনা পালটে গেল?
৪. “রত্নের মূল্য জহুরির কাছেই।”—কথাটির তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো।
৫. “এটা খুব ভালো, ওর হবে।”—তপনের লেখা পড়ে মেসোর এই মন্তব্যের কারণ কী?
৬. “তবে বিয়ে হয়ে ছোটোমাসি যেন একটু মুরুব্বি মুরুব্বি হয়ে গেছে;” – ছোটোমাসির মুরুব্বিয়ানার পরিচয় দাও।
৭. “পৃথিবীতে এমন অলৌকিক ঘটনাও ঘটে?”—কাকে, কেন এমন অলৌকিক ঘটনা বলে উল্লেখ করা হয়েছে?
৮. “সত্যিই তপনের জীবনের সবচেয়ে সুখের দিনটি এল আজ?”—‘সুখের দিন’ বলার কারণ কী?
৯. তপনের প্রথম গল্পটি বের হওয়ার পর তার বাড়ির লোকের প্রতিক্রিয়া কীরূপ?
১০. তপনের লেখা গল্প সম্পর্কে তার বাবা ও মেজোকাকু কী বলে?
১১. “যে ভয়ংকর আহ্লাদটা হবার কথা, সে আহ্লাদ খুঁজে পায় না।”— ‘আহ্লাদ’ হওয়ার কথা ছিল কেন? ‘আহ্লাদ’ খুঁজে না-পাওয়ার কারণ কী?
১২. তপন গল্প লিখে তার ছোটোমাসিকে দেখালে সে তপনের সঙ্গে কীরকম ব্যবহার করে?

রচনাধর্মী প্রশ্ন (প্রশ্নমান – ৫)
১. “কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল!”—তপন কে? কথাটা কী ছিল? তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল কেন? ১+১+৩
২. “রত্নের মুল্য জহুরির কাছেই।”— ‘রত্ন’ কে? ‘জহুরি’ কে? কথাটির অর্থ পরিস্ফুট করো। ১+১+৩
৩. “তপন বিহ্বল দৃষ্টিতে তাকায়।”—কে এই কথা বলেছে? কখন এই কথা বলা হয়েছে? এই অংশটির মধ্যে তপনের চরিত্রের কোন দিকটি ফটে উঠেছে, তা লেখো। ১+২+২
৪. “বুকের রক্ত ছলকে ওঠে তপনের।”—প্রসঙ্গ নির্দেশ করে তাৎপর্য লেখো।
৫. “তার চেয়ে দুঃখের কিছু নেই, তার থেকে অপমানের!”—কার সম্পর্কে এই কথা বলা হয়েছে? কোন্ প্রসঙ্গে এই কথা বলা হয়েছে? ‘তার চেয়ে দুঃখের কিছু নেই’ কথাটির অর্থ লেখো। ১+২+২
৬. “কিন্তু নতুন মেসোকে দেখে জ্ঞানচক্ষু খুলে গেল…।” কার জ্ঞানচক্ষু খুলে গেল ? কোন্ প্রসঙ্গে কথাটি বলা হয়েছে? কথাটির তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো। ১+২+২
৭. “মেসোর উপযুক্ত কাজ হবে সেটা।”—কে, কাকে এই কথাটি বলেছে? কখন বলেছে? কথাটির তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো। ২+১+২
৮. “কোনোখান থেকে টুকলিফাই করিসনি তো?”—কে, কাকে এই কথাটি বলেছে? কখন বলেছে? কথাটির তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো। ২+১+২
৯. “কীরে তোর যে দেখি পায়া ভারী হয়ে গেল।”—এই কথা কে, কাকে বলেছে? কোন্ প্রসঙ্গে এই কথা বলেছে? কথাটির মর্মার্থ লেখো। ২+১+২
১০. “গল্প ছাপা হলে যে ভয়ংকর আহ্লাদটা হবার কথা, সে আহ্লাদ খুঁজে পায় না। ”কার সম্পর্কে এই কথা বলা হয়েছে? কখন এই মন্তব্য করা হয়েছে? তার সেই ভয়ংকর আহ্লাদ খুঁজে না-পাওয়ার কারণ কী? ১+২+২
১১. ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পের নামকরণের সার্থকতা বিচার করো।
১২. ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পের ভাববস্তু/বিষয়বস্তু আলোচনা করো।
১৩. ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পের মধ্যে সমাজচিত্র বা লেখিকার সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি আলোচনা করো।
১৪. ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পে তপনের চরিত্রটি আলোচনা করো।
১৫. ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পে অপ্রধান চরিত্রগুলি আলোচনা করো।
১৬. ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পে দু-বার জ্ঞানচক্ষু লাভের কথা কীভাবে আছে, আলোচনা করো।
১৭. ‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্পটি ছোটোগল্প হিসেবে কতখানি সার্থক, তা আলোচনা করো।
১৮. “ছোটোমাসিই ওর চিরকালের বন্ধু।”—কার সম্পর্কে কথাটি বলা হয়েছে? কখন বলা হয়েছে? কথাটির তাৎপর্য লেখো। ১+২+২
১৯. “তপনের মনে হয় আজ যেন তার জীবনের সবচেয়ে দুঃখের দিন।”—কোন্ দিনটির কথা বলা হয়েছে? কেন সেটা দুঃখের দিন? তপনের মনের প্রতিক্রিয়া কীরূপ? ১+২+২
২০. “আঃ ছোটোমাসি, ভালো হবে না বলছি।”—কার সম্পর্কে এ কথা বলা হয়েছে? উক্তিটির প্রসঙ্গ নির্দেশ করো। কথাটির মর্মার্থ লেখো। ১+২+২

পাঠ্যগত ব্যাকরন
বহুবিকল্পীয় প্রশ্ন (প্রশ্নমান – ১)
সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো
কারক-বিভক্তি
১. “কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল।”—নিম্নরেখাঙ্কিত পদটির কারক-বিভক্তি হল
(ক) কর্মকারকে এর’ বিভক্তি (খ) কর্তৃকারকে ‘এর’ বিভক্তি (গ) সম্বন্ধপদে এর’ বিভক্তি (ঘ) সম্বোধন পদে ‘এর’ বিভক্তি
ans. (ক) কর্মকারকে এর’ বিভক্তি
২. “জলজ্যান্ত একজন লেখককে এত কাছ থেকে কখনো দেখেনি তপন”—নিম্নরেখাঙ্কিত পদটির কারক-বিভক্তি হবে
(ক) অধিকরণ কারকে ‘থেকে’অনুসর্গ (খ) অপাদান কারকে ‘থেকে’ অনুসর্গ (গ) করণকারকে ‘থেকে’ অনুসর্গ (ঘ) নিমিত্ত কারকে ‘থেকে’ অনুসর্গ
ans. (খ) অপাদান কারকে ‘থেকে’ অনুসর্গ
৩. “এ দেশের কিছু হবেনা।”—নিম্নরেখাঙ্কিত পদটি যে কারক-বিভক্তির দৃষ্টান্ত, তা হল
(ক) সম্বন্ধপদে ‘র’ বিভক্তি (খ) নিমিত্ত কারকে ‘এর’ বিভক্তি (গ) অধিকরণ কারকে ‘এর’ বিভক্তি (ঘ) কর্তৃকারকে ‘এর’ বিভক্তি
ans. (গ) অধিকরণ কারকে ‘এর’ বিভক্তি
৪. “ওদিকে মেসোরও না কী গরমের ছুটি চলছে।”–গরমের’ পদটি
(ক) কর্ম সম্বন্ধে ‘এর’ বিভক্তি (খ) অপাদান সম্বন্ধে ‘এর’ বিভক্তি (খ) করণ সম্বন্ধে ‘এর’ বিভক্তি (ঘ) কর্তা সম্বন্ধে ‘এর’ বিভক্তি
ans. (ঘ) কর্তা সম্বন্ধে ‘এর’ বিভক্তি
৫. “তপন তোমার গল্প তো দিব্যি হয়েছে।” -‘তপন’ পদটি
(ক) কর্তৃকারকে ‘শূন্য’ বিভক্তি (খ) কর্মকাণকে ‘শূন্য’ বিভক্তি (গ) সম্বদে ‘শূন্য’ বিভক্তি (ঘ) সম্বোধন পাপ “শূন্য বিভক্তি
ans. (ঘ) সম্বোধন পাপ “শূন্য বিভক্তি
সমাস
৬. “তপনের নতুন মেসোমশাই একজন লেখক।”-মোসোমশাই’ পদটির ব্যাসবাক্য হবে
(ক) যিনি মেসো তিনিই মশাই (খ) মেসো ও মশাই (গ) মেসো মশাই যিনি (ঘ) মাসির বর
ans. (ক) যিনি মেসো তিনিই মশাই
৭. “কিন্তু নতুন মেসোকে দেখে জ্ঞানচক্ষু খুলে গেল তপনের।”-‘জ্ঞানচক্ষু’ পদটির সমাস হবে
(ক) উপমান কর্মধারয় (জ্ঞানের মতো চক্ষু) (খ) রূপক কর্মধারয় (জ্ঞান রূপ চক্ষু) (গ) দ্বন্দ্ব সমাস (জ্ঞান ও চক্ষু) (ঘ) নিমিত্ত তৎপুরুষ (জ্ঞানের নিমিত্তে চক্ষু)
ans. (খ) রূপক কর্মধারয় (জ্ঞান রূপ চক্ষু)
৮. “তাই মেসো শ্বশুরবাড়িতে এসে রয়েছেন কদিন।”—নিম্নরেখাঙ্কিত পদটির সমাস নির্ণয় করো।
(ক) সম্বন্ধ তৎপুরুষ সমাস (খ) কর্মধারয় সমাস (গ) বহুব্রীহি সমাস (ঘ) দ্বন্দ্ব সমাস
ans. (ক) সম্বন্ধ তৎপুরুষ সমাস
৯. “আঃ ছোটোমাসি, ভালো হবে না বলছি।”-“ছোটোমাসি’ পদটির ব্যাসবাক্য হবে
(ক) ছোটো মাসির মতো (খ) যিনি ছোটো তিনিই মাসি (গ) মায়ের বোন (ঘ) ছোটো যে মাসি
ans. (ঘ) ছোটো যে মাসি
১০. “বলেন, একটু-আধটু কারেকশান করতে হয়েছে অবশ্য।”–একটু আধটু’ পদটির ব্যাসবাক্য হবে
(ক) একটু ও আধটু (খ) যা একটু তা-ই আধটু (গ) একটুতেই আধটু (ঘ) অতিসামান্য পরিমাণ
ans. (ক) একটু ও আধটু
বাক্য
১১. “মামার বাড়িতে এই বিয়ে উপলক্ষ্যেই এসেছে তপন, আর ছুটি আছে বলেই রয়ে গেছে।”—বাক্যটি গঠনগতভাবে
(ক) মিশ্র বাক্য (খ) জটিল বাক্য (গ) যৌগিক বাক্য (ঘ) সরলবাক্য
ans. (গ) যৌগিক বাক্য
১২. “কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল।”—বাক্যটির প্রশ্নবোধ রূপটি হবে
(ক) কথাটা শুনে তপনের চোখ কি মার্বেল হল না? (খ) কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল না কি? (গ) কথাটা শুনে কি তপনের চোখ মার্বেল হল? (ঘ) কথাটা শুনে তপনের চোখ কি সত্যিই মার্বেল হল?
ans. (খ) কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল না কি?
১৩. “অনেক বই ছাপা হয়েছে মেসোর”—বাক্যটির নঞর্থক রূপ কী হবে?
(ক) অনেক বই মেসোর ছাপা হয়নি (খ) মেসোর কম বই ছাপা হয়েছে (গ) অল্প বই ছাপা হয়নি মেসোর (ঘ) সবগুলিই ঠিক
ans. (গ) অল্প বই ছাপা হয়নি মেসোর
১৪. “গল্প ছাপা হলে যে ভয়ংকর আহ্লাদটা হবার কথা, সে আহ্লাদ খুঁজে পায় না।”—বাক্যটির সরল রূপ হবে
(ক) গল্প ছেপেছে কিন্তু ভয়ংকর আহাদ খুঁজে পায় না (খ) ছাপা গল্পের মধ্যে কোনো আহাদ নেই (গ) গল্প ছাপা হওয়ার ভয়ংকর আহাদ সে খুঁজে পায় না (ঘ) গল্প ছাপা হয়েছে অথচ আহাদ খুজে পায় না
ans. (গ) গল্প ছাপা হওয়ার ভয়ংকর আহাদ সে খুঁজে পায় না
১৫. “তপন বইটা ফেলে রেখে চলে যায়।”—এটি
(ক) নির্দেশক বাক্য (খ) প্রার্থনাসূচক বাক্য (গ) সন্দেহবাচক বাক্য (ঘ) অনুত্তবাচক বাক্য
ans. (ক) নির্দেশক বাক্য
বাচ্য
১৬. “এ দেশের কিছু হবে না।”—বাচ্যগত দিক থেকে বাক্যটি
(ক) কর্তৃবাচ্য (খ) কর্মবাচ্য (গ) ভাববাচ্য (ঘ) কর্মকর্তৃবাচ্য
ans. (গ) ভাববাচ্য
১৭. “মেসো অবশ্য মৃদু মৃদু হাসেন।”-বাচ্যটি
(ক) কর্তৃবাচ্য (খ) কর্মবাচ্য (গ) কর্মকর্তৃবাচ্য (ঘ) ভাববাচ্য
ans. (ক) কর্তৃবাচ্য
১৮. “তিনি নাকি বই লেখেন।”—বাক্যটির কর্মবাচ্যের রূপ হবে
(ক) সে নাকি বই লেখে (খ) তার নাকি বই লেখা হয় (গ) তার কর্তৃক বই লিখিত হয় (ঘ) সে বই লেখে
ans. (গ) তার কর্তৃক বই লিখিত হয়
১৯. “একটু পরেই ছোটোমেসো ডেকে পাঠান তপনকে।”—বাক্যটির কর্মবাচ্যের রূপ লেখো
(ক) একটু পরেই ছোটোমেসো কর্তৃক তপনকে ডেকে পাঠানো হয় (খ) একটু পরেই ছোটোমেসো দ্বারা তপনকে ডাকা হয় (গ) একটু পরেই তপন ছোটো মেসো দ্বারা আহূত হয় (ঘ) কোনোটিই নয়
ans. (ক) একটু পরেই ছোটোমেসো কর্তৃক তপনকে ডেকে পাঠানো হয়
২০. “অমুক তপনের লেখা ছাপিয়ে দিয়েছে।”—বাক্যটি
(ক) কর্মবাচ্য (খ) কর্তৃবাচ্য (গ) কর্মকর্তৃবাচ্য (ঘ) ভাববাচ্য
ans. (খ) কর্তৃবাচ্য

অতিসংক্ষিপ্ত উত্তরধর্মী প্রশ্ন (প্রশ্নমান – ১)
কারক-বিভক্তি
১. “এ কথাটাই ভাবছে তপন রাত-দিন।”—নিম্নরেখাঙ্কিত পদগুলির কারক-বিভক্তি নির্ণয় করো।
ans. কথাটাই—কর্মকারকে ‘শূন্য’ বিভক্তি। রাতদিন—অধিকরণ কারকে ‘শূন্য’ বিভক্তি।
২. “কোনোখান থেকে টুকলিফাই করিসনি তো?”—নিম্নরেখাঙ্কিত পদটির কারক-বিভক্তি কী হবে?
ans. কোনোখান—অপাদান কারকে ‘থেকে’ অনুসর্গ।
৩. “পত্রিকাটি সকলের হাতে হাতে ঘোরে।”—নিম্নরেখাঙ্কিত পদগুলির কারক-বিভক্তি নির্ণয় করো।
ans. হাতে হাতে—অপাদান কারকে ‘তে’ বিভক্তি।
৪. “নতুন করে লিখেছেন, নিজের পাকা হাতের কলমে।”—রেখাঙ্কিত পদটির কারক-বিভক্তি কী হবে?
ans. কলমে—করণ কারকে ‘এ’ বিভক্তি।
৫. “মনে হয় আজ যেন তার জীবনের সবচেয়ে দুঃখের দিন।”—নিম্নরেখাঙ্কিত পদগুলির কারক-বিভক্তি কী হবে?
ans. দুঃখের দিন–কর্মকারকে ‘শূন্য’ বিভক্তি।
সমাস
৬. “এ কথাটাই ভাবছে তপন রাত-দিন।” —নিম্নরেখাঙ্কিত পদটির ব্যাসবাক্যসহ সমাস নির্ণয় করো।
ans. রাত-দিন-রাত ও দিন (দ্বন্দ্ব সমাস)।
৭. মেজোকাকু’ পদটির ব্যাসবাক্য ভেঙে সমাসের নাম উল্লেখ করো।
ans. মেজোকাকু–মেজো যে কাকু (সাধারণ কর্মধারয় সমাস)।
৮. “তার মানে মেসো তপনের গল্পটিকে আগাগোড়াই কারেকশন করেছে।” -নিম্নরেখাঙ্কিত পদটির ব্যাসবাক্যসহ
সমাসের নাম লেখো।
ans. আগাগোড়া—আগা হইতে গোড়া পর্যন্ত (অব্যয়ীভাব সমাস)।
৯. “এদিকে বাড়িতে তপনের নাম হয়ে গেছে কবি, সাহিত্যিক, কথাশিল্পী।” -‘কথাশিল্পী’ পদটির সমাস নির্ণয় করো। কথাশিল্পী-কথা বিষয়ে শিল্পী (মধ্যপদলোপী কর্মধারয় সমাস)।
ans.
১০. “আর কলমটি নিয়ে তিনতলার সিঁড়িতে উঠে গেল।”—’তিনতলার’ পদটির ব্যাসবাক্যসহ সমাসের নাম লেখো।
ans. তিনতলা—তিনটি তলার সমাহার, এর (সমাহার দ্বিগু সমাস)।
বাক্য
১১. “কিন্তু কে শোনে তার কথা?”—বাক্যটিকে না-বাচক বাক্যে রূপান্তর করো।
ans. কিন্তু কেউ তার কথা শোনে না।
১২. “ছুটি ফুরোলে মেসো গল্পটি নিয়ে চলে গেলেন।”—যৌগিক বাক্যের রূপ দাও।
ans. ছুটি ফুরোল এবং মেসো গল্পটি নিয়ে চলে গেলেন।
১৩. “এটা খুব ভালো।”—বাক্যটিকে বিষ্ময়বোধক বাক্যে পরিণত করো।
ans. এটা কী ভালো!
১৪. “আমাদের থাকলে আমরাও চেষ্টা করে দেখতাম।”—জটিলবাক্যে পরিণত করো।
ans. আমাদের যদি থাকত তাহলে আমরাও চেষ্টা করে দেখতাম।
১৫. “সন্ধ্যাতারা’-র সম্পাদক ‘না’ করতে পারবে না।”—হা-বাচক বাক্যে পরিণত করো।
ans. সন্ধ্যাতারা’-র সম্পাদক হ্যাঁ করবে।
বাচ্য
১৬. “মামার বাড়িতে এই বিয়ে উপলক্ষ্যেই এসেছে তপন।”—বাক্যটিকে ভাববাচ্যে পরিণত করো।
ans. মামারবাড়িতে এই বিয়ে উপলক্ষ্যেই তপনের আসা হয়েছে।
১৭. “তপন অবশ্য ‘না-আ-আ করে প্রবল আপত্তি তোলে।”—বাক্যটির কর্মবাচ্যের রূপ লেখো।
ans. তপন কর্তৃক অবশ্য না-আ-আ করে প্রবল আপত্তি তোলা হয়।
১৮. “এ বিষয়ে সন্দেহ ছিল তপনের।”—বাক্যটিকে কর্তৃবাচ্যে পরিণত করো।
ans. এ বিষয়ে তপন সন্দেহাপন্ন ছিল।
১৯. “লুকিয়ে লিখেছে”—ভাববাচ্যেরূপ দাও।
ans. লুকিয়ে লেখা হচ্ছে।
২০. “তপন লজ্জা ভেঙে পড়তে যায়।”—বাক্যটিকে ভাববাচ্যে লেখো।
ans. তপন কর্তৃক লজ্জা ভেঙে পড়তে যাওয়া হয়।

FILE INFO : Madhyamik Bengali Suggestion / Class 10th (x) Bangla Suggestion – WBBSE with FREE PDF Download | মাধ্যমিক বাংলা সাজেশন / দশম শ্রেণীর সাজেশন বিনামূল্যে ডাউনলোড করুন | জ্ঞানচক্ষু – আশাপূর্ণা দেবী (অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর, সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর)

File Details:
PDF Name : জ্ঞানচক্ষু – আশাপূর্ণা দেবী – মাধ্যমিক বাংলা সাজেশন
Language : Bengali
Size : 342.0 kb 
No. of Pages : 11
Download Link : Click Here To Download
বিভিন্ন স্কুল বোর্ড পরীক্ষা, প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার সাজেশন, অতিসংক্ষিপ্ত, সংক্ষিপ্ত ও রোচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর (All Exam Guide Suggestion, MCQ Type, Short, Descriptive Question and answer), প্রতিদিন নতুন নতুন চাকরির খবর (Job News in Bengali) জানতে এবং সমস্ত পরীক্ষার এডমিট কার্ড ডাউনলোড (All Exam Admit Card Download) করতে winexam.in ওয়েবসাইট ফলো করুন, ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here