উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion (WBCHSE) with PDF | WiN EXAM

0
44

উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion (WBCHSE) with PDF | WiN EXAM

উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion  নিচে দেওয়া হল। এই প্রশ্নোত্তর এবার পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীর দর্শন  ( WB HS Philosophy Suggestion  | West Bengal Higher Secondary Philosophy Suggestion  | WBCHSE Board Class 12th Philosophy Question and Answer)  পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট । আপনারা যারা উচ্চ  | মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন  | HS Philosophy Suggestion  | WBCHSE Board Higher Secondary Class 12th (XII) Philosophy Suggestion  Question and Answer খুঁজে চলেছেন, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্ন ও উত্তর ভালো করে পড়তে পারেন। 

উচ্চমাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণীর দর্শন সাজেশন প্রশ্ন ও উত্তর | West Bengal Higher Secondary Philosophy Suggestion | WBCHSE Board Class 12th Question and Answer with PDF

উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন  (HS Philosophy Suggestion ) অধ্যায় ভিত্তিক অতিসংক্ষিপ্ত, সংক্ষিপ্ত ও রোচনাধর্মী প্রশ্নউত্তর (MCQ Type, Short, Descriptive Question & answer) এবং PDF ফাইলের ডাউনলোড লিঙ্ক নিচে দেওয়া রয়েছে।

অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

যুক্তি | অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. তর্কবিদ্যা হলো একধরনের

(a) আদর্শনিষ্ঠ বিজ্ঞান (b) বস্তুনিষ্ঠ বিজ্ঞান (c) মানবিক বিজ্ঞান (d) নীতিবিজ্ঞান

উত্তরঃ (a) আদর্শনিষ্ঠ বিজ্ঞান

2. “তর্কবিদ্যা হলো এমন কতকগুলি নীতির আলোচনা, যা উত্তম যুক্তি থেকে মন্দ যুক্তিকে পৃথক করে,” বলেন –

(a) মিল (b) কান্ট (c) কোপি (d) রাসেল

উত্তরঃ (c) কোপি

3. তর্কবিদ্যায় সত্যের ধারণা হলো—

(a) মূর্ত ধারণা (b) বিমূর্ত ধারণা (c) আপতিক ধারণা (d) সংশয়াত্মিক ধারণা

উত্তরঃ (b) বিমূর্ত ধারণা

4. যক্তিবিদ্যার ইংরেজি প্রতিশব্দ হলো—

(a) Logig (b) Logic (c) Logos (d) Logike.

উত্তরঃ (b) Logic

5. আধুনিক যুক্তিবিজ্ঞানের জনক হলেন

(a) প্লেটো (b) কান্ট (c) লক (d) জর্জ বুল

উত্তরঃ (d) জর্জ বুল

6. যে যুক্তির সিদ্ধান্ত আশ্রয়বাক্যের চেয়ে অধিক ব্যাপক হয়

(a) অবরোহ (b) আরোহ (c) বৈধ (d) অবৈধ

উত্তরঃ (b) আরোহ

7. বৈধতা-অবৈধতা বিচার করা হয়

(a) অবরোহ যুক্তির ক্ষেত্রে (b) আরোহ যুক্তির ক্ষেত্রে (c) উভয় যুক্তির ক্ষেত্রে (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) অবরোহ যুক্তির ক্ষেত্রে

8. যুক্তির অবয়ব কীসের দ্বারা গঠিত?

(a) পদের দ্বারা (b) বচনের দ্বারা (c) অবধারণ দ্বারা (d) অনুমান দ্বারা

উত্তরঃ (a) পদের দ্বারা

9. ইংরেজি ‘Logic’ কথাটি কোন শব্দ থেকে উৎপন্ন হয়েছে?

(a) ফরাসি শব্দ (b) গ্রিক শব্দ (c) ল্যাটিন শব্দ (d) জার্মান শব্দ

উত্তরঃ (c) ল্যাটিন শব্দ

10. যুক্তি কয় প্রকার ?

(a) দুই (b) তিন (c) চার (d) ছয়

উত্তরঃ (a) দুই

11. অবরোহ যুক্তিটি বৈধ হলে কখনোই এমন হয় না যে –

(a) হেতুবাক্য ও সিদ্ধান্ত উভয়ই সত্য (b) হেতুবাক্য ও সিদ্ধান্ত উভয়ই মিথ্যা (d) হেতুবাক্য সত্য ও সিদ্ধান্ত সত্য

উত্তরঃ (c) হেতুবাক্য মিথ্যা কিন্তু সিদ্ধান্ত সত্য

12. কোন যুক্তির অবয়বগুলি নিরপেক্ষ বচন?

(a) অমাধ্যম (b) মাধ্যম (c) নিরপেক্ষ (d) সাপেক্ষ

উত্তরঃ (a) অমাধ্যম

13. বৈধতা কার ধর্ম ?

(a) বচনের (b) চিন্তার (c) যুক্তির (d) বাক্যের

উত্তরঃ (c) যুক্তির

14. যুক্তিতে যে বচনের সত্যতা দাবি করা হয় তাকে কী বলে?

(a) হেতুবাক্য (b) অবয়ব (c) সিদ্ধান্ত (d) আশ্রয়বাক্য

উত্তরঃ (c) সিদ্ধান্ত

15. অবৈধ অবরোহ যুক্তির হেতুবাক্য সত্য হলে সিদ্ধান্তটি –

(a) সত্য (b) মিথ্যা (c) সত্য ও মিথ্যা (d) অনিশ্চিত

উত্তরঃ (b) মিথ্যা

16. অবরোহ যুক্তির সিদ্ধান্তটি মিথ্যা হলে যুক্তিটি –

(a) সত্য (b) মিথ্যা (c) বৈধ (d) অবৈধ

উত্তরঃ (c) বৈধ

17. অনুমান যখন ভাষায় প্রকাশিত হয় তখন তাকে বলে—

(a) অনুভূতি (b) যুক্তি (c) কল্পনা (d) সংবেদন

উত্তরঃ (b) যুক্তি

18. বৈধ অবরোহ যুক্তির যুক্তিবাক্য সত্য হলে সিদ্ধান্ত হবে—

(a) সত্য (b) মিথ্যা (c) অনিশ্চিত (d) বিরোধী

উত্তরঃ (a) সত্য

19. যে যুক্তিতে আশ্রয়বাক্য থেকে সিদ্ধান্ত অনিবার্যভাবে নিঃসৃত হয়, তাকে বলে –

(a) অবরোহ যুক্তি (b) উপমা যুক্তি (c) বৈজ্ঞানিক আরোহ (d) অবৈজ্ঞানিক আরোহ

উত্তরঃ (a) অবরোহ যুক্তি

20. আরোহ যুক্তির সিদ্ধান্তটি হেতুবাক্য থেকে

(a) ব্যাপকতর নয় (b) ব্যাপকতর (c) সমব্যাপক (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) ব্যাপকতর

21. কেবলমাত্র বৈধ বা অবৈধ হতে পারে –

(a) পদ (b) বচন (c) মুক্তি (d) যুক্তি

উত্তরঃ (d) যুক্তি

22. জ্ঞাত সত্য থেকে অজ্ঞাত সত্যে যাবার প্রক্রিয়াকে বলা হয়

(a) কল্পনা (b) অনুমান (c) শব্দ (d) প্রত্যক্ষ

উত্তরঃ (b) অনুমান
অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১]

1. যুক্তিবিদ্যা কী নিয়ে আলোচনা করে?

উত্তরঃ যুক্তিবিদ্যা মুলত এমন কতকগুলি সূত্র বা বিধি নিয়ে আলোচনা করে, যেগুলি দিয়ে বৈধ যুক্তিকে অবৈধ যুক্তির দ্বারা পৃথক করা যায়।

2. নীতিবিদ্যার আলোচ্য বিষয় কী?

উত্তরঃ দর্শনের যে শাখা সামাজিক ব্যক্তির কল্যাণের প্রকৃতি নিয়ে আলোচনা করে, তা-ই হলো নীতিবিদ্যা।

3. অনুমান ও যুক্তির পার্থক্য কী?

উত্তরঃ অনুমান হলো একটা মানসিক প্রক্রিয়া এবং অনুমানের ভাষাগত রূপই হলো যুক্তি।

4. যুক্তিবাক্য বা আশ্রয়বাক্য বা হেতুবাক্য কাকে বলে?

উত্তরঃ যে বাক্য থেকে সিদ্ধান্তকে প্রতিষ্ঠা করা হয় তাকে যুক্তিবাক্য বা আশ্রয়বাক্য বা হেতুবাক্য বলে।

5. সিদ্ধান্তবাক্য কাকে বলে?

উত্তরঃ কোনো যুক্তিতে যে বাক্যকে প্রমাণ করা হয়, তাকেই বলে সিদ্ধান্তবাক্য।

6. অবরোহ যুক্তির বৈধতা কীসের ওপর নির্ভরশীল?

উত্তরঃ অবরোহ যুক্তির বৈধতা যুক্তির আকারের ওপর নির্ভরশীল।

7. আরোহের দুটি গুরুত্বপূর্ণ চিহ্ন বা লক্ষণ উল্লেখ করো।

উত্তরঃ আরোহের দুটি গুরুত্বপূর্ণ চিহ্ন বা লক্ষণ হলো — (i) যুক্তিবিদ্যা অক্রিমণ (ii) সামান্যীকরণ।

8. যুক্তির বস্তুগত সত্যতা কাকে বলে?

উত্তরঃ যুক্তির অন্তর্গত বচনগুলির সত্যতাকে যুক্তির বস্তুগত সত্যতা বলে।

9. যুক্তি কাকে বলে?

উত্তরঃ অনুমান ভাষায় প্রকাশিত হলে তাকে যুক্তি বলে।

10. যুক্তির অবয়বগুলি কী?

উত্তরঃ যুক্তির অংশগুলিকে বলে যুক্তির অবয়ব। অর্থাৎ, যেসব বচন দিয়ে যুক্তি গঠন করা হয়। সেগুলি পৃথকভাবে বা সম্মিলিতভাবে যুক্তির অবয়ব। যুক্তি প্রধানত দু’প্রকার— অবরোহ যুক্তি ও আরোহ যুক্তি। উভয় প্রকার যুক্তি একাধিক বচন দ্বারা গঠিত হয়। এই বচনগুলিই যুক্তির অবয়ব।

11. অবরোহ যুক্তি কাকে বলে?

উত্তরঃ যে যুক্তিতে আশ্রয়বাক্য থেকে সিদ্ধান্ত অনিবার্যভাবে নিঃসৃত হয়, তাকে বলে অবরোহ যুক্তি।

12. যুক্তি ও যুক্তির আকারের মধ্যে সম্পর্ক কী?

উত্তরঃ একটি যুক্তি হলো তার নির্দিষ্ট যুক্তি আকারের নিবেশন দৃষ্টান্ত।

13. যুক্তির আকার কাকে বলে?

উত্তরঃ একাধিক বচনগ্রাহকের প্রতীকী কাঠামোকে যুক্তির আকার বলা হয়।

14. আরোহ যুক্তির দু’টি বৈশিষ্ট্য লেখো।

উত্তরঃ (i) আরোহ যুক্তির সিদ্ধান্ত সর্বদাই একাধিক যুক্তিবাক্য থেকে নিঃসৃত হয়। (ii) আরোহ যুক্তির সিদ্ধান্তটি আশ্রয়বাক্য অপেক্ষা সবসময় ব্যাপকতর হয়।

15. অবরোহ যুক্তির একটি দৃষ্টান্ত দাও।

উত্তরঃ সকল মানুষ হয় মরণশীল জীব। সকল দার্শনিক হয় মানুষ। = সকল দার্শনিক হয় মরণশীল জীব।

16. আরোহ অনুমানের আকারগত ভিত্তি কী?

উত্তরঃ আরোহ অনুমানের আকারগত ভিত্তি হলো—প্রকৃতির একরূপতা নীতি ও কার্যকারণ নিয়ম।

17. আরোহের সমস্যা কী?

উত্তরঃ আরোহের সমস্যা হলো – কীভাবে সামান্যীকরণ বৈধ হবে তা নির্ণয় করা।

18. বৈধতা ও সত্যতার মধ্যে পার্থক্য কী?

উত্তরঃ যুক্তির ধর্ম বৈধতা, কিন্তু সত্যতা হলো বচনের ধর্ম।

19. অবৈধ যুক্তি কাকে বলে?

উত্তরঃ যে যুক্তির আশ্রয়বাক্য সত্য অথচ সিদ্ধান্ত মিথ্যা তাকে অবৈধ যুক্তি বলে।

বচন | অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. সাধারণত বচন হলো –

(a) প্রশ্ন বাক্য (b) আদেশ বাক্য (c) ইচ্ছা বাক্য (d) ঘোষক বাক্য

উত্তরঃ (d) ঘোষক বাক্য

2. সব বাক্যই বচন-

(a) মিথ্যা (b) সত্য (c) সংশয়াত্মক (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) মিথ্যা

3. সম্বন্ধ অনুসারে বচনের ভাগগুলি হলো—

(a) প্রাকল্পিকবৈকল্পিক (b) সদর্থকনঞর্থক (c) সামান্য বিশেষ (d) সাপেক্ষনিরপেক্ষ

উত্তরঃ (d) সাপেক্ষনিরপেক্ষ

4. প্রতিটি বচনে পদ থাকে—

(a) একটি (b) চারটি (c) আটটি (d) দুটি

উত্তরঃ (d) দুটি

5. সংযোজক হলো–

(a) বাক্যাংশ (b) বচনাংশ (c) শব্দাংশ (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) বচনাংশ

6. গাছটি সুন্দর। এটি হলো

(a) বাক্য (b) লন (c) শব্দ (d) অনুমান

উত্তরঃ (a) বাক্য

7. “যদি p তবে q’ এটি –

(a) প্রাকষ্মিক (b) বৈকল্পিক (c) সংযৌগিক (d) নিষেধক

উত্তরঃ (a) প্রাকষ্মিক

8. হয় p অথবা q’ এটি

(a) নিষেধক (b) বৈকল্পিক (c) প্রাকষ্মিক (d) সংমৌগিক

উত্তরঃ (b) বৈকল্পিক

9. আদর্শ নিরপেক্ষ বচনের অংশ হলো –

(a) চারটি (b) তিনটি (c) পাঁচটি (d) দু’টি

উত্তরঃ (a) চারটি

10. বাক্যের মাধ্যম কী?

(a) অনুমান (b) ভাষা (c) চিন্তা (d) ইচ্ছা

উত্তরঃ (b) ভাষা

11. বাক্যের প্রধান ভান –

(a) তিনটি (b) দুইটি (c) চারটি (d) পাঁচটি

উত্তরঃ (b) দুইটি

12. সংযোজক কার অংশ ?

(a) বচনের (b) ভানুমানের (c) যুক্তির (d) বাক্যের

উত্তরঃ (a) বচনের

13. গুণ ও পরিমাণ অনুসারে বচন কয় প্রকার?

(a) তিন প্রকার (b) পাচ প্রকার (c) দুই প্রকার

উত্তরঃ (d) চার প্রকার

14. সামান্য সদর্থকের সাংকেতিক চিহ্ন কী?

(a) E (b) O (c) I (d) A.

উত্তরঃ (d) A.

15. গুণ অনুসারে বচন কয় প্রকার?

(a) চার প্রকার (b) দুই প্রকার (c) তিন প্রকার(d) এক প্রকার

উত্তরঃ (b) দুই প্রকার

16. বচনের প্রধান অংশ

(a) চারটি (b) দুইটি (c) তিনটি (d) পাঁচটি

উত্তরঃ (c) তিনটি

17. সামান্য নঞর্থক বচন হলো

(a) A (b) O (c) I (d) E বচন

উত্তরঃ (d) E বচন

18. নিরপেক্ষ বচনের চতুষ্প্রকার পরিকল্পনা কার ?

(a) সক্রেটিসের (b) প্লেটোর (c) অ্যারিস্টটলের (d) পারমিনাইডিসের

উত্তরঃ (c) অ্যারিস্টটলের

19. ব্যাপ্যতা শব্দটি কার সঙ্গে জড়িত?

(a) বাক্যের সঙ্গে (b) শব্দের সঙ্গে (c) পদের সঙ্গে (d) সংযোজকের সঙ্গে

উত্তরঃ (c) পদের সঙ্গে

20. বচনের প্রতীকায়িত রূপকে বলে –

(a) শুদ্ধ আকার (b) বচন আকার (c) বাক্য আকার (d) সবক’টি ঠিক

উত্তরঃ (b) বচন আকার

21. সংযৌগিক বচনের যোজকটি হলো –

(a) যদি তবে (b) হয় অথবা (c) এবং, ও, আর (d) হয়

উত্তরঃ (c) এবং, ও, আর

22. বচনের যে পদটি ব্যাপ্য হয় তা হলো –

(a) বিধেয়পদ (b) উভয় পদ (c) উদ্দেশ্যপদ (d) কোনো পদ ব্যাপ্য নয়

উত্তরঃ (c) উদ্দেশ্যপদ

23. কোন বচনে কেবল বিধেয় পদ ব্যাপ্য হয়?

(a) A (b) E (c) L (d) O বচনে

উত্তরঃ (d) O বচনে

24. সম্বন্ধ অনুসারে বচন কয় প্রকার?

(a) এক প্রকার (b) চার প্রকার (c) দুই প্রকার (d) তিন প্রকার

উত্তরঃ (c) দুই প্রকার

25. কোন বচনে উদ্দেশ্যপদ ব্যাপ্য হয়?

(a) বিশেষ বচনে (b) সামান্য বচনে (c) সদর্থক বচনে (d) নঞর্থক বচনে

উত্তরঃ (b) সামান্য বচনে

26. বিশেষ নঞর্থক বচন হলো –

(a) E (b) O (c) I (d) A.

উত্তরঃ (b) O

27. উদ্দেশ্য সম্পর্কে বিধেয়কে স্বীকার করা হয় –

(a) বিশেষ বচনে (b) সামান্য বচনে (c) সদর্থক বচনে (d) নঞর্থক বচনে

উত্তরঃ (b) সামান্য বচনে

28. উভয় পদই ব্যাপ্য হয় –

(a) O বচনে (b) E বচনে (c) A বচনে (d) I বচনে

উত্তরঃ (b) E বচনে

29. ঘোষক বাক্য রূপে পরিচিত

(a) প্রশ্নবোধক বাক্য (b) বচন (c) জটিল বাক্য (d) সরল বাক্য।

উত্তরঃ (b) বচন

30. বচনের ব্যাপ্য পদ হলো—

(a) উদ্দেশ্যপদ (b) বিধেয়পদ (c) উভয় পদ (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (d) কোনোটিই নয়

31. প্রাকল্পিক বচনের দ্বিতীয় অংশটিকে বলা হয় –

(a) বিধেয় (b) পূর্বক (c) উদ্দেশ্য (d) অনুগ

উত্তরঃ (d) অনুগ

32. বচনকে অবয়ব বলা হয়—

(a) অনুমানের (b) বাক্যের (c) যুক্তির (d) শব্দের।

উত্তরঃ (c) যুক্তির

33. বচনের ব্যার্থ কাকে বলে?

(a) সংযোজককে (b) বিধেয়কে (c) গুণকে (d) পরিমাণকে

উত্তরঃ (d) পরিমাণকে

34. যে যৌগিক বচনে সত্যসারণীর সবক’টি নিবেশন দৃষ্টান্ত। মিথ্যা হয় তাকে বলে –

(a) স্বতঃসত্য বচন (b) স্বতঃমিথ্যা বচন (c) আপতিক বচন (d) বিশ্লেষক বচন

উত্তরঃ (b) স্বতঃমিথ্যা বচন

35. বচনের ধর্ম হলো –

(a) বৈধ-অবৈধ (b) অনিশ্চিত (c) সত্য-মিথ্যা (d) সর্বদা সত্য

উত্তরঃ (c) সত্য-মিথ্যা

36. ব্যাপ্যতার অর্থ হলো –

(a) পরিমাপের (b) পরিপূর্ণ ব্যক্তার্থের (c) গুণের (d) আংশিক ব্যক্তার্থের

উত্তরঃ (b) পরিপূর্ণ ব্যক্তার্থের
অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১]

নিম্নলিখিত বাক্যগুলিকে তর্কবিজ্ঞানসম্মত বচনে রূপান্তরিত করো

1. রাজনীতিকরা কদাচিৎ সৎ।

উত্তরঃ L.F – O কোনো কোনো রাজনীতিবিদ নয় সৎ। গুণ : নঞর্থক, পরিমাণ : বিশেষ।

2. অধিকাংশ ছাত্র অঙ্কে কাঁচা।

উত্তরঃ LF – I কোনো কোনো ছাত্র হয় অঙ্কে কাঁচা।

3. একটি ছাড়া সব ছাত্রই উপস্থিত আছে।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো ছাত্র হয় এমন যারা উপস্থিত।

4. খুব কম সংখ্যক লোকই প্রলোভনের উর্ধ্বে উঠতে পারে।

উত্তরঃ LF – O কোনো কোনো লোক নয় এমন যারা প্রলোভনের ঊর্ধ্বে উঠতে পারে।

5. কেবলমাত্র ধার্মিকরাই সুখী।

উত্তরঃ L.F – A সকল সুখী ব্যক্তি হয় ধার্মিক।

6. প্রত্যেকটি রত্ন মূল্যবান।

উত্তরঃ LF – A’সকল রত্ন হয় মূল্যবান। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : সামান্য

7. সাদা হাতি আছে।

উত্তরঃ LF – I কোনো কোনো হাতি হয় সাদা। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : বিশেষ।

8. ধাতু প্রয়োজনীয় দ্রব্য।

উত্তরঃ LF – A সকল ধাতু হয় মূল্যবান দ্রব্য। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : সামান্য

9. প্রায় সব ছাত্রই পড়াশোনা করতে চায়।

উত্তরঃ LF – I কোনো কোনো ছাত্র হয় যারা পড়াশোনা করে।

10. অধিকাংশ ছাত্র বিনয়ী।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো ছাত্র হয় বিনয়ী।

11. এই প্রশ্নটি কঠিন নয়।

উত্তরঃ L.F – E এই প্রশ্নটি নয় কঠিন। গুণ :নঞর্থক, পরিমাণ : সামান্য

12. যেকোনো দান গ্রহণযোগ্য নয়।

উত্তরঃ LF – O কোনো কোনো দান নয় গ্রহণযোগ্য। গুণ :নঞর্থক, পরিমাণ : বিশেষ
নীচের বাক্যগুলিকে তার্কিক আকারে রূপান্তরিত করে পদের ব্যাপ্যতা নির্ণয় করো

13. সাধু ব্যক্তিরাই সর্বদা সম্মানিত হন।

উত্তরঃ LF – A সকল সাধু ব্যক্তি হয় সম্মানিত।

14. স্ত্রীলোকগণ একান্তভাবে পুরুষ অপেক্ষা নিকৃষ্ট নয়।

উত্তরঃ LF – O কোনো কোনো স্ত্রীলোক নয় পুরুষ অপেক্ষা নিকৃষ্ট।

15. সোনা একটি মূল্যবান বস্তু।

উত্তরঃ L.F – A সকল সোনা হয় মূল্যবান বস্তু।

16. কিছু গল্প চমকপ্রদ নয়।

উত্তরঃ L.F – O কোনো কোনো গল্প নয় চমকপ্রদ। উদ্দেশ্য : ‘গল্প’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : ‘চমকপ্রদ’ (ব্যাপ্য)

17. প্রত্যেক লোকেরই ভুল হতে পারে।

উত্তরঃ L.F – A সকল লোক হয় এমন যারা ভুল করে।

18. শিক্ষিত ব্যক্তি কদাচিৎ শিশুর মতো আচরণ করে।

উত্তরঃ LF – O কোনো কোনো শিক্ষিত ব্যক্তি নয় এমন যারা শিশুর মতো আচারণ করে। উদ্দেশ্য : ‘শিক্ষিত ব্যক্তি’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : “শিশুর মতো আচরণ করে’ (ব্যাপ্য)

19. অধিকাংশ ছাত্র ইংরেজিতে অকৃতকার্য হয়।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো ছাত্র হয় এমন যারা ইংরেজিতে অকৃতকার্য। উদ্দেশ্য : ‘ছাত্র’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : ইংরেজিতে অকৃতকার্য’ (অব্যাপ্য)।

20. যা চকচক করে তা-ই সোনা নয়।

উত্তরঃ L.F – O কোনো কোনো চকচকে বস্তু নয় সোনা। উদ্দেশ্য : ‘চকচকে বস্তু’ (ব্যাপ্য), বিধেয় : ‘সোনা’ (ব্যাপ্য)

21. মানুষ কখনোই সুখী নয়।

উত্তরঃ L.F – E কোনো মানুষ নয় সুখী। উদ্দেশ্য : ‘মানুষ’ (ব্যাপ্য), বিধেয় : ‘সুখী’ (ব্যাপ্য)

22. প্রায় সব বিদ্বান লোক বিনয়ী হন।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো বিদ্বান লোক হয় বিনয়ী। উদ্দেশ্য : ‘বিদ্বান লোক’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : “বিনয়ী’ (অব্যাপ্য)

23. যেকোনো বাড়িতেই ঝড়ের সময় আশ্রয় নেওয়া যায়।

উত্তরঃ LF – A সকল বাড়ি হয় এমন যেখানে ঝড়ের সময় আশ্রয় নেওয়া যায়।

24. প্রত্যেক রোগ মারাত্মক নয়।

উত্তরঃ L.F – O কোনো কোনো রোগ নয় মারাত্মক।

25. বিদ্বান ব্যক্তিরা কখনো কখনো পাগল হয়।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো বিদ্বান ব্যক্তি হয় পাগল। উদ্দেশ্য : ‘বিদ্বান ব্যক্তি’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : ‘পাগল’ (অব্যাপ্য)

26. ছাত্রদের সর্বত্রভাবে পরিশ্রমী হওয়া উচিত।

উত্তরঃ L.F – A সকল ছাত্র হয় এমন যারা পরিশ্রমী।

27. একমাত্র ধার্মিকরাই সুখী।

উত্তরঃ L.F – A সকল সুখী ব্যক্তি হয় ধার্মিক। উদ্দেশ্য : সুখী ব্যক্তি’ (ব্যাপ্য), বিধেয় : ‘ধার্মিক’ (অব্যাপ্য)

28. ধার্মিক ব্যক্তিগণ সাধারণত সুখী হন।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো ধার্মিক ব্যক্তি হয় সুখী। উদ্দেশ্য : ধার্মিক ব্যক্তিগণ’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : ‘সুখী’ (অব্যাপ্য)।

29. উট পাখি উড়তে পারে না।

উত্তরঃ L.F – E কোনো উট পাখি নয় এমন যারা উড়তে পারে। উদ্দেশ্য : ‘উটপাখি’ (ব্যাপ্য), বিধেয় : ‘উড়তে পারে’ (ব্যাপ্য)

30. আম মাত্রই মিষ্টি হয় না।

উত্তরঃ LF – O কোনো কোনো আম নয় মিষ্টি। উদ্দেশ্য : “আম’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : ‘মিষ্টি’ (ব্যাপ্য)।

31. সকল লেখক প্রগতিশীল নয়।

উত্তরঃ L.F — O কোনো কোনো লেখক নয় প্রগতিশীল। উদ্দেশ্য : লেখক’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : ‘প্রগতিশীল’ (অব্যাপ্য)

32. লাল ফুলের গন্ধ নেই।

উত্তরঃ L.F – E কোনো লাল ফুল নয় গন্ধযুক্ত। উদ্দেশ্য : ‘লাল ফুল’ (ব্যাপ্য), বিধেয় : ‘গন্ধযুক্ত’ (ব্যাপ্য)

33. অসাধু লোক ধনী হতে পারে।

উত্তরঃ L.F – I অসাধু লোক হয় ধনী।

34. গোলাকার বর্গক্ষেত্র নেই।

উত্তরঃ L.F – E কোনো গোলাকার ক্ষেত্র নয় বর্গক্ষেত্র। উদ্দেশ্য : ‘গোলাকার’ (ব্যাপ্য), বিধেয় : ‘বর্গক্ষেত্র’ (অব্যাপ্য)

35. মানুষ মদ্যপান করে।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো মানুষ হয় এমন যারা মদ্যপান করে। উদ্দেশ্য : মানুষ’ (অব্যাপ্য), বিধেয় : মদ্যপান করে’ (অব্যাপ্য)

36. কেবল শিক্ষিত ব্যক্তিরা প্রগতিশীল।

উত্তরঃ L.F – A সকল প্রগতিশীল ব্যক্তি হয় শিক্ষিত।
নীচের বাক্যগুলিকে বচনে রূপান্তরিত করো এবং গুণ ও পরিমাণ নির্ণয় করো

37. সব সাপ বিষধর নয়।

উত্তরঃ LF – O কোনো কোনো সাপ নয় বিষধর। গুণ :নঞর্থক, পরিমাণ : বিশেষ।

38. বাঙালিরা বুদ্ধিমান।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো বাঙালি হয় বুদ্ধিমান। পরিমাণ : বিশেষ, গুণ : সদর্থক।

39. অধিকাংশ ছাত্র তর্কবিদ্যা বোঝে না।

উত্তরঃ L.F – O কোনো কোনো ছাত্র নয় এমন যারা তর্কবিদ্যা বোঝে। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : বিশেষ

40. জ্ঞানীরা সাধারণত ভালো লোক।

উত্তরঃ LF – I কোনো কোনো জ্ঞানী ব্যক্তি হয় ভালো লোক। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : বিশেষ।

41. পরিশ্রমী ব্যতীত কেউই সফল হয় না।

উত্তরঃ LF – A সকল সফল ব্যক্তি হয় পরিশ্রমী। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : সামান্য।

42. তিন এবং চার হয় সাত।

উত্তরঃ LF – A তিন ও চার -এর যোগফল হয় সাত। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : সামান্য

43. একমাত্র দার্শনিকগণই সত্যাশী।

উত্তরঃ L.F – A সকল সত্যাদর্শী ব্যক্তি হয় দার্শনিক। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : সামান্য

44. 70% ছাত্রই মেধাবী।

উত্তরঃ L.F – I কোনো কোনো ছাত্র হয় মেধাবী। গুণ : সদর্থক, পরিমাণ : বিশেষ।

45. সে নয় শিক্ষিত ব্যক্তি।

উত্তরঃ L.F – E সে নয় শিক্ষিত ব্যক্তি। গুণ :নঞর্থক, পরিমাণ : সদর্থক
রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর [মান ৮]

1. নিরপেক্ষ ও সাপেক্ষ বচন কাকে বলে? উভয় প্রকার বচনের মধ্যে পার্থক্য দেখাও।

2. বচন বলতে কী বোঝো? বচন ও বাক্যের মধ্যে পার্থক্য করো। নিরপেক্ষ বচনে পদের ব্যাপ্যতা বলতে কী বোঝো?

3. দৃষ্টান্ত সহ পদের ব্যাপ্যতা আলোচনা করো।

4. নিরপেক্ষ বা অনপেক্ষ বচনের চতুর্বর্গ পরিকল্পনাটি যুক্তি সহ ব্যাখ্যা করো।

বচনের বিরোধিতা | অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. বচনের বিরোধিতার ক্ষেত্রে সাদৃশ্য থাকে—

(a) গুণের সাদৃশ্য (b) পরিমাণের সাদৃশ্য (c) যৌক্তিক সাদৃশ্য (d) উদ্দেশ্য ও বিধেয়র সাদৃশ্য

উত্তরঃ (d) উদ্দেশ্য ও বিধেয়র সাদৃশ্য

2. অসম বিরোধিতার সম্বন্ধ হলো—

(a) একমুখী (b) দ্বিমুখী (c) ত্রিমুখী (d) বহুমুখী

উত্তরঃ (a) একমুখী

3. Copi-এর মতে যথার্থ বিরোধিতা হলো –

(a) বিপরীত (b) বিরুদ্ধ (c) উভয় (d) অধীন

উত্তরঃ (b) বিরুদ্ধ

4. নিরপেক্ষ বচনগুলির মধ্যে যে সম্পর্ক রয়েছে তা হলো—

(a) মৌলিক (b) যৌক্তিক (c) যৌগিক (d) বাহ্যিক

উত্তরঃ (b) যৌক্তিক

5. E এবং O বচনের মধ্যে কী ধরনের বিরোধিতার সম্বন্ধ। আছে?

(a) বিপরীত বিরোধিতা (b) অসম বিরোধিতা (c) বিরুদ্ধ বিরোধিতা (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) অসম বিরোধিতা

6. O বচন সত্য হলে A বচন হবে –

(a) সত্য (b) অনিশ্চিত (c) মিথ্যা (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) মিথ্যা

7. O বচন মিথ্যা হলে A বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) অনিশ্চিত (c) সত্য (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (c) সত্য

8. O বচন সত্য হলে E বচন হবে –

(a) সত্য (b) অনিশ্চিত (c) মিথ্যা (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) অনিশ্চিত

9. O বচন মিথ্যা হলে I বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) সত্য (c) অনিশ্চিত (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (b) সত্য

10. I বচন মিথ্যা হলে A বচন হবে –

(a) সত্য (b) অনিশ্চিত (c) মিথ্যা (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) মিথ্যা

11. I বচন সত্য হলে E বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) অনিশ্চিত (c) সত্য (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) মিথ্যা

12. I বচন মিথ্যা হলে E বচন হবে –

(a) সত্য (b) মিথ্যা (c) অনিশ্চিত (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) সত্য

13. E বচনের অতিবিষম বচন কানটি?

(a) A বচন (b) O বচন (c) I বচন (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) A বচন

14. একই উদ্দেশ্য ও বিধেয় বিশিষ্ট I এবং O বচন হলো পরস্পরের —

(a) অসম বিরোধী (b) বিপরীত বিরোধী (c) অধীন বিপরীত বিরোধী (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) অধীন বিপরীত বিরোধী

15. A বচন সত্য হলে বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) নিশ্চিত (c) অনিশ্চিত (d) সত্য

উত্তরঃ (d) সত্য

16. A বচন মিথ্যা হলে I বচন হবে –

(a) সত্য (b) মিথ্যা (c) অনিশ্চিত (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) অনিশ্চিত

17. E বচন সত্য, A বচন হবে –

(a) অনিশ্চিত (b) মিথ্যা (C) সত্য (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (b) মিথ্যা

18. E বচন মিথ্যা হলে A বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) সত্য (c) অনিশ্চিত (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) অনিশ্চিত

19. E বচন সত্য হলে O বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) নিশ্চিত (c) সত্য (d) অনিশ্চিত

উত্তরঃ (c) সত্য

20. E বচন মিথ্যা হলে O বচন হবে –

(a) সত্য (b) নিশ্চিত (c) অনিশ্চিত (d) মিথ্যা

উত্তরঃ (c) অনিশ্চিত

21. E বচন সত্য হলে I বচন হবে –

(a) অনিশ্চিত (b) নিশ্চিত (c) সত্য (d) মিথ্যা

উত্তরঃ (d) মিথ্যা

22. O বচন সত্য হলে I বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) সত্য (c) অনিশ্চিত (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (c) অনিশ্চিত

23. E এবং I বচনের মধ্যে কী ধরনের বিরোধিতার সম্বন্ধ আছে?

(a) অসম বিরোধিতা (b) বিরুদ্ধ বিরোধিতা (c) বিপরীত বিরোধিতা (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) বিরুদ্ধ বিরোধিতা

24. A এবং O বচনের মধ্যে কী ধরনের বিরোধিতার সম্বন্ধ আছে?

(a) অসম বিরোধিতা (b) বিরুদ্ধ বিরোধিতা (c) বিপরীত বিরোধিতা (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) বিরুদ্ধ বিরোধিতা

25. যদি A বচন সত্য হয় তাহলে O বচনটির সত্যমূল হবে

(a) মিথ্যা (b) অনিশ্চিত (c) সত্য (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (a) মিথ্যা

26. A বচন মিথ্যা O বচন হবে –

(a) সত্য (b) নিশ্চিত (c) অনিশ্চিত (d) মিথ্যা

উত্তরঃ (d) মিথ্যা

27. A বচন সত্য হলে E বচন হবে –

(a) অনিশ্চিত (b) নিশ্চিত (c) সত্য (d) মিথ্যা

উত্তরঃ (d) মিথ্যা

28. A বচন মিথ্যা হলে E বচন হবে –

(a) সত্য (b) নিশ্চিত (c) অনিশ্চিত (d) মিথ্যা

উত্তরঃ (c) অনিশ্চিত

29. I বচন সত্য হলে A বচন হবে –

(a) অনিশ্চিত (b) মিথ্যা (c) সত্য (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) অনিশ্চিত

30. বিরোধানুমান হয়–

(a) 2 প্রকার (b) 4 প্রকার (c) 6 প্রকার (d) 8 প্রকার

উত্তরঃ (b) 4 প্রকার

31. I বচন সত্য হলে O বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) সত্য (c) অনিশ্চিত (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (c) অনিশ্চিত

32. A এবং I বচনের মধ্যে কী ধরনের বিরোধিতার সম্বন্ধ আছে?

(a) বিরুদ্ধ বিরোধিতা (b) বিপরীত বিরোধিতা (c) অসম বিরোধিতা (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) অসম বিরোধিতা

33. অধীন বিপরীত বিরোধানুমানে একটি বচন মিথ্যা হলে। তার অনুরূপ বচনটি হবে—

(a) মিথ্যা (b) সত্য (c) অনিশ্চিত (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (b) সত্য

33. অ্যারিস্টটল প্রকৃত বিরোধিতা বলে অস্বীকার করেন –

(a) পরিমাণের (b) সত্য-মিথ্যার (c) গুণ-পরিমাণের (d) গুণের

উত্তরঃ (d) গুণের

34. I বচন মিথ্যা হলে O বচন হবে –

(a) সত্য (b) মিথ্যা (c) অনিশ্চিত (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) সত্য

35. E বচন মিথ্যা হলে I বচন হবে –

(a) মিথ্যা (b) সত্য (c) অনিশ্চিত (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (b) সত্য
অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১]

1. বিপরীত বিরোধিতায় কী জাতীয় পার্থক্য দেখা যায় ?

উত্তরঃ কেবলমাত্র গুণের পার্থক্য থাকে।

2. কোন কোন বচনের মধ্যে অধীন বিপরীত বিরোধিতা গড়ে ওঠে?

উত্তরঃ I এবং O বচনের মধ্যে।

3. অধীন বিপরীত বিরোধিতার একটি উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ অধীন বিপরীত বিরোধিতার একটি উদাহরণ হলো— I- কোনো কোনো মানুষ হয়। পাগল। O – কোনো কোনো মানুষ নয় পাগল।

4. অধীন বিপরীত বিরোধিতা কাকে বলে?

উত্তরঃ যদি দু’টি বিশেষ বচনের একই উদ্দেশ্য ও বিধেয় থাকে, শুধুমাত্র গুণের দিক থেকে। তাদের মধ্যে পার্থক্য থাকে, তাহলে বচন দুটির পারস্পরিক সম্বন্ধকে অধীন বিপরীত বিরোধিতা বলা হয়।

5. অধীন বিপরীত বিরোধিতার একটি বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করো।

উত্তরঃ দু’টি বচন কখনোই একসঙ্গে মিথ্যা হতে পারে না কিন্তু সত্য হতে পারে।

6. অসম বিরোধিতা কাকে বলে?

উত্তরঃ দু’টি বচন গুণের দিক থেকে এক হয়েও যদি পরিমাণের দিক থেকে ভিন্ন হয় তবে উভয় গুণের মধ্যবর্তী সম্পর্ককে অসম বিরোধিতা বলা হয়।

7. দু’টি বিশেষ বচনের মধ্যে কোন বিরোধিতার সম্বন্ধ হয়?

উত্তরঃ অধীন বিপরীত বিরোধিতার সম্বন্ধ হয়।

8. অসম বিরোধিতার একটি উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ অসম বিরোধিতার উদাহরণ হলো— A – সকল মানুষ হয় মরণশলি । I – কোনো মানুষ হয় মরণশীল।

9. অসম বিরোধিতার বৈশিষ্ট্য লেখো।

উত্তরঃ যদি সামান্য বচনটি সত্য হয় তাহলে তার অনুরূপ বিশেষ বচনটি সত্য হবে। আর যদি বিশেষ বচনটি মিথ্যা হয় তবে সামান্য বচনটি মিথ্যা হবে।

10. বিরুদ্ধ বিরোধিতা কাকে বলে?

উত্তরঃ দু’টি বচনের উদ্দেশ্য ও বিধেয় এক হয়েও গুণ ও পরিমাণ উভয় দিক থেকে যদি একটি বচনের বিরোধ দেখা যায় তবে তাদের সম্পর্ককে বিরুদ্ধ বিরোধিতার সম্পর্ক বলা হয়।

11. বচনের বিরোধিতা কয় প্রকার?

উত্তরঃ বচনের বিরোধিতা চার প্রকার।

12. তর্কবিদ্যায় দু’টি সমজাতীয় বচন কী হবে?

উত্তরঃ উদ্দেশ্য ও বিধেয় এক হবে।

13. বচনের বিরোধিতার জন্য কোন বচনের প্রয়োজন?

উত্তরঃ নিরপেক্ষ বচন।

14. বিরুদ্ধ বিরোধিতার একটি উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ বিরুদ্ধ বিরোধিতার একটি উদাহরণ হলো— A – সকল শিক্ষক হয় জ্ঞানী। O – কোনো কোনো শিক্ষক নয় জ্ঞানী।

15. বিরুদ্ধ বিরোধিতায় কী জাতীয় পার্থক্য লক্ষ করা যায়?

উত্তরঃ উভয় বচনের গুণ ও পরিমাণের পার্থক্য দেখা যায়।

16. বিরুদ্ধ বিরোধিতার একটি শর্ত লেখো।

উত্তরঃ দু’টি বচন একসঙ্গে সত্য বা মিথ্যা হতে পারে না।

17. বিরুদ্ধ বিরোধিতা কোন কোন বচনের মধ্যে হয়?

উত্তরঃ A ও O অথবা E ও I বচনের মধ্যে।

18. E বচনের বিপরীত বচন কোনটি?

উত্তরঃ A বচন হলো E বচনের বিপরীত বচন।

19. O বচনের অধীন বিপরীত বচন কোনটি?

উত্তরঃ O বচনের অধীন বিপরীত বচন হলো I বচন।

20. E বচনের অসম বিরোধী বচন কোনটি?

উত্তরঃ O বচন হলো E বচনের অসম বিরোধী বচন।

21. I বচনের বিরুদ্ধ বচন কোনটি?

উত্তরঃ E বচন হলো I বচনের বিরুদ্ধ বচন।

22. অসম বিরোধিতায় কীরূপ পার্থক্য দেখা যায়?

উত্তরঃ পরিমাণের পার্থক্য দেখা যায়।

23. অ্যারিস্টটল কী স্বীকার করেননি?

উত্তরঃ যুক্তিবিজ্ঞানী অ্যারিস্টটল অসম বিরোধিতাকে বিরোধিতা বলে স্বীকার করেননি।

24. যে দু’টি বচনের মধ্যে অসম বিরোধিতার সম্বন্ধ গড়ে ওঠে সেগুলি কী?

উত্তরঃ A -I অথবা E-O বচনের মধ্যে অসম বিরোধিতার সম্বন্ধ গড়ে ওঠে।

25. অসম বিরোধিতায় কোন বচনটিকে অতিবর্তী বলা হয়?

উত্তরঃ অসম বিরোধিতায় যে বচনটির পরিমাণ সার্বিক সেই বচনটিকে অতিবর্তী বলে।

26. অসম বিরোধিতায় কোন বচনটিকে অনুবর্তী বলে?

উত্তরঃ অসম বিরোধিতায় যে বচনটির পরিমাণ বিশেষ সেই বচনটিকে অনুবর্তী বলে।

27. বচনের বিরোধিতার প্রকারভেদ কী কী?

উত্তরঃ (i) বিপরীত বিরোধিতা (ii) বিরুদ্ধ বিরোধিতা (iii) অধীন বিপরীত বিরোধিতা (iv) অসম বিরোধিতা।

28. বচনের বিরোধিতার জন্য ক’টি বচন প্রয়োজন?

উত্তরঃ বচনের বিরোধিতার জন্য দুটি নিরপেক্ষ বচন প্রয়োজন।

29. বচনের বিরোধিতার জন্য দুটি বচনের উদ্দেশ্য ও বিধেয় কেমন?

উত্তরঃ বচন দু’টির উদ্দেশ্য ও বিধেয় একই থাকে।

30. A বচনের বিরুদ্ধ বচন কোনটি?

উত্তরঃ O বচন হলো A বচনের বিরুদ্ধ বচন।

31. অসম বিরোধিতাকে প্রকৃত বিরোধিতা বলা হয় না কেন?

উত্তরঃ যে দুটি বচনের মধ্যে অসম বিরোধিতার সম্পর্ক হয়, সেগুলি একসঙ্গে সত্য হতে পারে। আবার একসঙ্গে মিথ্যাও হতে পারে। সেজন্য অসম বিরোধিতা প্রকৃত বিরোধিতা নয়।

32. বিপরীত বিরোধিতা কাকে বলে?

উত্তরঃ একই উদ্দেশ্য ও একই বিধেয়যুক্ত দুটি সার্বিক বচনের মধ্যে যদি গুণের পার্থক থাকে, তাহলে ওই দুটি বচনের একটিকে অন্যটির বিপরীত বচন বলে এবং তাদের মধ্যবর্তী সম্বন্ধকে বিপরীত বিরোধিতা বলে।

33. বিপরীত বিরোধিতার একটি উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ বিপরীত বিরোধিতার একটি উদাহরণ হলো— A- সকল মানুষ হয় মরণশীল। E- কোনো মানুষ নয় মরণশীল।

34. কোন কোন বচনের মধ্যে বিপরীত বিরোধিতার সম্বন্ধ হয়?

উত্তরঃ A ও E বচনের মধ্যে বিপরীত বিরোধিতার সম্বন্ধ হয়।

35. বচনের বিরোধিতায় কীরূপ পার্থক্য দেখা যায় ?

উত্তরঃ গুণ ও পরিমাণের পার্থক্য দেখা যায়।

36. বচনের বিরোধিতার একটি উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ বচনের বিরোধিতার উদাহরণ হলো— সকল মানুষ হয় মরণশীল (a) কোনো মানুষ নয় মরণশীল (E)।

37. তর্কবিদ্যায় বিরোধিতার অর্থ কী?

উত্তরঃ তর্কবিদ্যায় বিরোধিতার অর্থ হলো বচনের বিরোধিতা।

38. বচনের বিরোধিতা কাকে বলে?

উত্তরঃ যদি দু’টি বচনের একই উদ্দেশ্য ও একই বিধেয় থাকে, কিন্তু তাদের মধ্যে গুণ ও পরিমাণ উভয় দিক থেকেই পার্থক্য থাকে তাহলে বচন দু’টির পারস্পরিক সম্বন্ধকে বলে বচনের বিরোধিতা।

39. দুটি সামান্য বচনের মধ্যে কোন বিরোধিতার সম্বন্ধ হয়?

উত্তরঃ বিপরীত বিরোধিতার।

অমাধ্যম অনুমান | অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১]

1. আবর্তন কাকে বলে?

উত্তরঃ যে অমাধ্যম অনুমানে একটি বচনের গুণ অপরিবর্তিত রেখে উদ্দেশ্য ও বিধেয়কে ন্যায়সংগতভাবে যথাক্রমে অন্য একটি বচনের বিধেয় ও উদ্দেশ্যে পরিণত করা হয়, তাকে আবর্তন বলে।

2. ব্যাবর্তন বা বিবর্তন বা প্রতিবর্তন কাকে বলে?

উত্তরঃ যে অমাধ্যম অনুমানে প্রদত্ত বচনটির গুণের পরিবর্তন করে এবং সেই বচনটির বিধেয়ের বিরুদ্ধের পদ সিদ্ধান্তের বিধেয় পদরূপে গ্রহণ করে একটি নতুন বচন গ্রহণ করা হয় তাকে ব্যাবর্তন বা বিবর্তন বা প্রতিবর্তন বলা হয়।

3. আবর্তনের ক্ষেত্রে সিদ্ধান্তটিকে কী বলা হয়?

উত্তরঃ আবর্তিত।

4. বিবর্তনের দুটি নিয়ম লেখো।

উত্তরঃ আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্তের উদ্দেশ্য এক হবে। আশ্রয়বাক্যের বিধেয়ের বিরুদ্ধপদ সিদ্ধান্তের বিধেয় হবে।

5. অনুমান (বা যুক্তি) কয় প্রকার ও কী কী?

উত্তরঃ দুই প্রকার – (i) অবরোহ যুক্তি ও (ii) আরোহ যুক্তি।

6. মাধ্যম অনুমান কাকে বলে ?

উত্তরঃ যে অবরোহ অনুমানে একটির বেশি হেতুবাক্য থেকে সিদ্ধান্ত অনিবার্যভাবে নিঃসৃত হয়, তাকে মাধ্যম অনুমান বলে।

7. অ-সরল আবর্তন কাকে বলে?

উত্তরঃ যে আবর্তনের ক্ষেত্রে আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্তের পরিমাণ পৃথক হয়, তাকে অ-সরল আবর্তন বলে।

8. অসম আবর্তন কাকে বলে?

উত্তরঃ যে আবর্তনের ক্ষেত্রে আবর্তনীয় ও আবর্তিত বচনের পরিমাণ ভিন্ন হয় তাকে অসম আবর্তন বলে।

9. বিবর্তনকে অমাধ্যম অনুমান বলা হয় কেন?

উত্তরঃ বিবর্তনে সিদ্ধান্ত কোনো মাধ্যম ছাড়াই অর্থাৎ অন্য আশ্রয়বাক্য ছাড়াই সরাসরি নিঃসৃত হয়; তাই বিবর্তনকে অমাধ্যম অনুমান বলা হয়।

10. অবরোহ অনুমান কয়প্রকার ও কী কী ?

উত্তরঃ দুই প্রকার – (i) অমাধ্যম অনুমান (ii) মাধ্যম অনুমান।

11. বিবর্তনের ক্ষেত্রে হেতুবাক্যটিকে কী বলা হয়?

উত্তরঃ বিবর্তনীয়।

12. বস্তুগত বিবর্তনের স্রষ্টা কে?

উত্তরঃ যুক্তিবিজ্ঞানী বেন (Bain)।

13. বিরুদ্ধ পদ কাকে বলে?

উত্তরঃ যদি দু’টি পদ এমন দুটি শ্রেণি বোঝায়, যাদের কোনো বস্তুই উভয় শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত হতে পারে না এবং ওই দুটি পদ দ্বারা নির্দিষ্ট শ্রেণির সবটুকু সম্পূর্ণ হয়, তখন সেই বিরোধী দুটি পদকে পরস্পরের বিরুদ্ধ পদ বলা হয়।

14. মাধ্যম অনুমানে ক’টি আশ্রয়বাক্য থাকে?

উত্তরঃ দুই বা ততোধিক আশ্রয়বাক্য থাকে।

15. বিবর্তনের বৈধতার গুণ-সংক্রান্ত নিয়মটি কী?

উত্তরঃ আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্তের গুণ ভিন্ন হবে অর্থাৎ আশ্রয়বাক্য সদর্থক হলে সিদ্ধান্ত নঞর্থক হবে, আর আশ্রয়বাক্য নঞর্থক হলে সিদ্ধান্ত সদর্থক হবে।

16. বিবর্তনের বিধেয়টি কোন পদ হয় ?

উত্তরঃ বিরুদ্ধ পদ হয়।

17. বস্তুগত বিবর্তন কাকে বলে?

উত্তরঃ যে বিবর্তন প্রক্রিয়ায় প্রদত্ত বচনের আকারগত বিবর্তন না করে তার অর্থের উপর বিশেষভাবে নির্ভর করা হয় এবং বাস্তব অভিজ্ঞতার সাহায্যে প্রদত্ত বচনটিকে বিবর্তন করা হয়, তাকে বস্তুগত বিবর্তন বলে।
নিম্নলিখিত বাক্যগুলিকে বচনে রূপান্তরিত করে আবর্তন করো

18. শুধু ধার্মিক ব্যক্তিরাই সুখী।

উত্তরঃ L.F. – A সকল সুখী ব্যক্তি হয় ধার্মিক (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো ধার্মিক ব্যক্তি হয় সুখী (আবর্তিত)

19. প্রত্যেক কবিই প্রতিভাশালী।

উত্তরঃ L.F. – A সকল কবি হয় প্রতিভাশালী (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো প্রতিভাশালী ব্যক্তি হয় কবি (আবর্তিত)

20. বৈজ্ঞানিক দার্শনিক হতে পারেন।

উত্তরঃ L.F. – I কোনো কোনো বৈজ্ঞানিক হন দার্শনিক (আবর্তনীয়)।

∴ 1 কোনো কোনো দার্শনিক হন বৈজ্ঞানিক (আবর্তিত)

21. খুব অল্প লোকই বুদ্ধিমান।

উত্তরঃ L.F. – 1 কোনো কোনো লোক হয় বুদ্ধিমান (আবর্তনীয়) ।

∴ I কোনো কোনো বুদ্ধিমান হয় লোক (আবর্তিত)

22. অশিক্ষিত মানুষও বুদ্ধিমান।

উত্তরঃ L.F. – I কোনো কোনো অশিক্ষিত মানুষ হয় বুদ্ধিমান (আবর্তনীয়)

∴ 1 কোনো কোনো বুদ্ধিমান মানুষ হয় অশিক্ষিত (আবর্তিত)

23. হলুদ পাখি আছে।

উত্তরঃ L.F. – I কোনো কোনো পাখি হয় হলুদ (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো হলুদ জীব পাখি হয় (আবর্তিত)

24. শ্রমিকরা কখনোই শোষক নয়।

উত্তরঃ L.F. – E কোনো শ্রমিক নয় শোষক (আবর্তনীয়)

∴ E কোনো শোষক নয় শ্রমিক (আবর্তিত)

25. পরিশ্রমী ছাড়া কেউই জীবনে সফল হতে পারে না।

উত্তরঃ L.F. – A সকল সফল ব্যক্তি হয় পরিশ্রমী (আর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো পরিশ্রমী ব্যক্তি হয় সফল (আবর্তিত)

26. কোনো মানুষ সুখী নয়।

উত্তরঃ L.F. – E কোনো মানুষ নয় সুখী (আবর্তনীয়)

∴ E কোনো সুখী নয় মানুষ (আবর্তিত)

L.F. – E কোনো পাখি নয় পশু (আবর্তনীয়)

∴ E কোনো পশু নয় পাখি (আবর্তিত)

27. সংগীত কে না ভালোবাসে।

উত্তরঃ L.F. – A সকল ব্যক্তি হয় ব্যক্তি যারা সংগীত ভালোবাসে (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো ব্যক্তি যারা সংগীত ভালোবাসে হয় ব্যক্তি (আবর্তিত)

28. কেবল ছাত্ররাই এই প্রতিযোগিতায় যোগ দিতে পারে।

উত্তরঃ L.F. – A সকল এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী হয় ছাত্র (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো ছাত্র হয় এমন যারা এই প্রতিযোগিতার অংশগ্রহণকারী (আবর্তিত)। I?

29. ব্যবসায়িকরা কদাচিৎ সৎ হয়।

উত্তরঃ L.F. – O কোনো কোনো ব্যবসায়িক নয় সৎ (আবর্তিত)

∴ O বচনে আবর্তন সম্ভব নয়।

30. কবিরা সাধারণত শান্তিপ্রিয় হন।

উত্তরঃ L.F. – 1 কোনো কোনো কবি হন শান্তিপ্রিয় ব্যক্তি (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো শান্তিপ্রিয় ব্যক্তি হন কবি (আবর্তিত)

31. সমস্ত কাক কালো নয়।

উত্তরঃ L.F. – O কোনো কোনো কাক নয় কালো (আবর্তিত)

∴ O বচনের আবর্তন সম্ভব নয়।
নিম্নলিখিত বাক্যগুলিকে বচনে রূপান্তরিত করে বিবর্তন করো

32. অধিকাংশ শিক্ষিত ব্যক্তিই সাম্যবাদী।

উত্তরঃ LF. – I কোনো কোনো শিক্ষিত ব্যক্তি হয় সাম্যবাদী (বিবর্তনীয়)

∴ O কোনো কোনো শিক্ষিত ব্যক্তি নয় অ-সাম্যবাদী (বিবর্তিত)

L.F. – I কোনো কোনো প্রতিবেশী হয় সহানুভূতিশীল (বিবর্তনীয়)

∴ O কোনো কোনো প্রতিবেশী নয় অ-সহানুভূতিশীল (বিবর্তিত)

33. শুধুমাত্র সৎ ব্যক্তিরাই সুখী।

উত্তরঃ L.F. – A সকল সুখী ব্যক্তি হয় সৎ (বিবর্তনীয়)।

∴ E কোনো সুখী ব্যক্তি নয় সৎ (বিবর্তিত)।

34. অধিকাংশ মানুষ সত্য কথা বলে না।

উত্তরঃ L.F. – O কোনো কোনো মানুষ নয় সত্যবাদী (বিবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো মানুষ হয় অ-সত্যবাদী (বিবর্তিত)

35. একমাত্র স্নাতকেরাই এই পদের প্রার্থী হতে পারে।

উত্তরঃ L.F. – A সকল এই পদের প্রার্থী হয় স্নাতক (বিবর্তনীয়)

∴ E কোনো এই পদের প্রার্থী নয় অ-স্নাতক (বিবর্তিত)

36. মিথ্যাবাদীরা অবিশ্বাসী হয়।

উত্তরঃ L.F. – A সকল মিথ্যাবাদী হয় অবিশ্বাসী (বিবর্তনীয়)

∴ E কোনো মিথ্যাবাদী নয় অবিশ্বাসী (বিবর্তিত)।

37. অপ্রাপ্ত বয়স্করা ভোট দিতে পারে না।

উত্তরঃ L.F. – E কোনো অপ্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তি নয় এমন যারা ভোট দিতে পারে না (বিবর্তনীয়)

∴ A সকল অপ্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তি হয় অ-ভোটদাতা (বিবর্তিত)

38. বেশিরভাগ লোকই কুসংস্কারাচ্ছন্ন।

উত্তরঃ L.F. – I কোনো কোনো লোক হয় কুসংস্কারাচ্ছন্ন (বিবর্তনীয়)

∴ O কোনো কোনো লোক নয় অ-কুসংস্কারাচ্ছন্ন (বিবর্তিত)

39. পলাশ ফুলের গন্ধ নেই।

উত্তরঃ L.F. – E কোনো পলাশ ফুল নয় গন্ধযুক্ত (বিবর্তনীয়)।

∴ A সকল পলাশ ফুল হয় অ-গন্ধযুক্ত (বিবর্তিত)।

40. অশিক্ষাই অশান্তির মূল।

উত্তরঃ L.F. – A সকল অশিক্ষাই হয় অশান্তির মূল (বিবর্তনীয়)।

∴ E কোনো অশিক্ষাই নয় অ-অশান্তির মূল (বিবর্তিত)

41. কোনো শিক্ষক বিজ্ঞানী নয়।

উত্তরঃ L.F. – E কোনো শিক্ষক নয় বিজ্ঞানী (বিবর্তনীয়)

∴ A সকল শিক্ষক হয় অ-বিজ্ঞানী (বিবর্তিত)

42. কোনো পাখিই স্তন্যপায়ী নয়।

উত্তরঃ L.F. – E কোনো পাখি নয় স্তন্যপায়ী (বিবর্তনীয়) ।

∴ A সকল পাখি হয় অ-স্তন্যপায়ী (বিবর্তিত)

43. কেবলমাত্র কবিরাই আবেগপ্রবণ।

উত্তরঃ L.F. – A সকল আবেগপ্রবণ ব্যক্তি হয় কবি (বিবর্তনীয়)

∴ E কোনো আবেগপ্রবণ ব্যক্তি নয় অ-কবি (বিবর্তিত)

44. সব তিমি হয় স্তন্যপায়ী।

উত্তরঃ L.F. – A সকল তিমি হয় স্তন্যপায়ী (বিবর্তনীয়)

∴ E কোনো তিমি নয় অ-স্তন্যপায়ী (বিবর্তিত)
রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর [মান ৮]

1. ‘A’ বচনের সরল আবর্তন সম্ভব নয় কেন? ‘O’ বচনের আবর্তন সম্ভব নয় কেন?

2. আবর্তন কাকে বলে? আবর্তনের নিয়মগুলি কী?

3. উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা করো : অব্যাপ্য হেতুদোষ।

4. বিবর্তন কাকে বলে? বিবর্তনের নিয়মগুলি কী?

5. বস্তুগত বিবর্তন বলতে কী বোঝো? বস্তুগত বিবর্তনকে কি প্রকৃত বিবর্তন বলা হয়?

6. নঞর্থক আশ্রয়বাক্য থেকে সদর্থক সিদ্ধান্ত গ্রহণজনিত দোষ ব্যাখ্যা করো।

7. উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা করো : অবৈধ পক্ষদোষ।

8. উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা করো : অবৈধ সাধ্যদোষ।

9. অমাধ্যম অনুমান কাকে বলে ? মাধ্যম অনুমান কাকে বলে? অমাধ্যম অনুমানকে কি প্রকৃত অনুমান বলা যায়?

নিরপেক্ষ ন্যায় | অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy 

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. BARBABA -কোন সংস্থানের বৈধমূতি?

(a) দ্বিতীয় (b) চতুর্থ (c) তৃতীয় (d) প্রথম

উত্তরঃ (d) প্রথম

2. নিরপেক্ষ ন্যায়ের দু’টি আশ্রয়বাক্য নঞর্থক হলে সিদ্ধান্তটি—

(a) অবৈধ (b) সিদ্ধান্তে আসা যাবে না (c) অনিশ্চিত (d) বৈধ

উত্তরঃ (b) সিদ্ধান্তে আসা যাবে না

3. নিরপেক্ষ ন্যায়ের প্রধান আশ্রয়বাক্যে থাকে –

(a) পক্ষপদ (b) হেতুপদ ও সাধ্যপদ (c) সাধ্যপদ (d) হেতুপদ

উত্তরঃ (b) হেতুপদ ও সাধ্যপদ

4. নিরপেক্ষ ন্যায়ের দু’টি আশ্রয়বাক্য বিশেষ হলে সিদ্ধান্তটি হবে

(a) অবৈধ (b) অনিশ্চিত (c) সিদ্ধান্তে আসা যাবে না (d) বৈধ

উত্তরঃ (c) সিদ্ধান্তে আসা যাবে না

5. FESTION হলো –

(a) তৃতীয় (b) চতুর্থ (c) দ্বিতীয় (d) প্রথম সংস্থানের বৈধমূর্তি

উত্তরঃ (c) দ্বিতীয়

6. DARAPTI হলো-

(a) তৃতীয় (b) চতুর্থ (c) দ্বিতীয় (d) প্রথম সংস্থানের বৈধমুর্তি

উত্তরঃ (a) তৃতীয়

7. DISAMIS হলো-

(a) তৃতীয় (b) চতুর্থ (c) দ্বিতীয় (d) প্রথম সংস্থানের বৈধমূর্তি

উত্তরঃ (a) তৃতীয়

8. DIMARIS হলো–

(a) তৃতীয় (b) চতুর্থ (c) দ্বিতীয় (d) প্রথম সংস্থানের বৈধমূর্তি

উত্তরঃ (b) চতুর্থ

9. FESAPO হলো-

(a) তৃতীয় (b) চতুর্থ (c) দ্বিতীয় (d) প্রথম সংস্থানের বৈধমূর্তি

উত্তরঃ (b) চতুর্থ

10. BOCABDO হলো–

(a) তৃতীয় (b) দ্বিতীয় (c) চতুর্থ (d) প্রথম সংস্থানের বৈধমূর্তি

উত্তরঃ (a) তৃতীয়

11. ন্যায় অনুমানে চারটি পদ থাকলে –

(a) সাধ্য দোষ (b) পক্ষ দোষ (c) চারিপদঘটিত দোষ (d) বৈধ দোষ

উত্তরঃ (c) চারিপদঘটিত দোষ

12. নিরপেক্ষ ন্যায়ের হেতুপদটি থাকে –

(a) প্রধান ও অপ্রধান আশ্রয়বাক্যে (b) অপ্রধান আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্তে (c) প্রধান আশ্রয়বাক্যে (d) প্রধান আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্তে

উত্তরঃ (a) প্রধান ও অপ্রধান আশ্রয়বাক্যে

13. নিরপেক্ষ ন্যায়ের সংস্থানের সংখ্যা হলো –

(a) ৩ (b) ৬ (c) ২ (d) ৪

উত্তরঃ (d) ৪

14. ন্যায় অনুমানে হেতুপদ যদি একবারও ব্যাপ্য না হয়, তাহলে হবে—

(a) সাধ্য দোষ (b) অবৈধ হেতু দোষ (c) হেতু দোষ (d) পক্ষ দোষ

উত্তরঃ (b) অবৈধ হেতু দোষ

15. BAROCO / AOO মূর্তিটি বৈধ হয়—

(a) দ্বিতীয় (b) তৃতীয় (c) চতুর্থ (d) প্রথম

উত্তরঃ (a) দ্বিতীয়

16. নিরপেক্ষ ন্যায়ে সম্ভাব্য মূর্তির সংখ্যা –

(a) ১৫ (b) ২৫৬ (c) ২৩৫ (d) ১২

উত্তরঃ (b) ২৫৬

17. CELABENT হলো বৈধ মূর্তি

(a) তৃতীয় (b) চতুর্থ (c) দ্বিতীয় (d) প্রথম সংস্থানের

উত্তরঃ (d) প্রথম সংস্থানের

18. BRAMANTIP হলো –

(a) তৃতীয় (b) চতুর্থ (c) দ্বিতীয় (d) প্রথম সংস্থানের বৈধমূর্তি

উত্তরঃ (b) চতুর্থ

19. CAMENES হলো বৈধ্যমূর্তি –

(a) তৃতীয় (b) চতুর্থ (c) দ্বিতীয় (d) প্রথম সংস্থানের বৈধমূর্তি

উত্তরঃ (b) চতুর্থ

20. পক্ষ পদটি পক্ষ আশ্রয়বাক্য ছাড়াও অন্য যে স্থানে থাকে তা হলো –

(a) সিদ্ধান্তের উদ্দেশ্য স্থানে (b) সাধ্য আশ্রয়বাক্যের উদ্দেশ্য স্থানে (c) সাধ্য আশ্রয়বাক্যের বিধেয় স্থানে (d) সিদ্ধান্তের বিধেয় স্থানে

উত্তরঃ (a) সিদ্ধান্তের উদ্দেশ্য স্থানে

21. নিরপেক্ষ ন্যায় অনুমানে বৈধ মূর্তির সংখ্যা হলো

(a) ২১৫ (b) ২৫৬ (c) ১৫ (d) ১৯

উত্তরঃ (d) ১৯

22. ন্যায় অনুমানে পক্ষপদ যদি আশ্রয়বাক্যে ব্যাপ্য না হয়ে সিদ্ধান্তে ব্যাপ্য হয়, তাহলে হয় –

(a) অবৈধ সাধ্য দোষ (b) অবৈধ হেতু দোষ (c) অবৈধ পক্ষ দোষ (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) অবৈধ পক্ষ দোষ

23. নিরপেক্ষ ন্যায়ের দুটি আশ্রয়বাক্য নঞর্থক হলে যে দোষ ঘটে তা হলো –

(a) সাধ্য দোষ (b) অবৈধ দোষ (c) পক্ষ দোষ (d) নঞর্থক আশ্রয়বাক্যজনিত দোষ

উত্তরঃ (d) নঞর্থক আশ্রয়বাক্যজনিত দোষ

24. নিরপেক্ষ ন্যায়ে নিয়ম আছে –

(a) ১২টি (b) ৮টি (c) ১০টি (d) ১৬টি

উত্তরঃ (c) ১০টি
রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর [মান ৮]

1. সংস্থান।

2. চারিপদঘটিত দোষ।

3. অব্যাপ্য হেতু দোষ।

4. অবৈধ সাধ্য দোষ।

5. নঞর্থক আশ্রয়বাক্যজনিত দোষ।

6. সাধ্যপদ যদি প্রধান হেতুবাক্যের বিধেয় হয়, তাহলে অপ্রধান হেতুবাক্য অবশ্যই সদর্থক হবে।

7. বচন দ্বিতীয় সংস্থানের বৈধ ন্যায়ে প্রধান হেতুবাক্য হতে পারে না।

8. ‘O’ বচন চতুর্থ সংখ্যানে হেতুবাক্য হতে পারে না।

9. প্রথম সংস্থানে হেতুপদ কেবলমাত্র সাধ্য বাক্যেই ব্যাপ্য হতে পারে।

10. তৃতীয় সংস্থানের বৈধ ন্যায়ে প্রধান হেতুবাক্য হতে পারে না।

11. চতুর্থ সংস্থানে যদি একটি হেতুবাক্য নঞর্থক হয় তাহলে প্রধান হেতুবাক্যটি সামান্য হতে বাধ্য।

12. বৈধ ন্যায়ে পক্ষপদ অপ্রধান হেতুবাক্যের বিধেয় হলে সিদ্ধান্ত ‘A’ বচন হতে পারে না।

13. তৃতীয় সংস্থানে সিদ্ধান্ত সার্বিক হতে পারে না।

14. প্রথম সংস্থানে হেতুপদ দুবার ব্যাপ্য হতে পারে না।

15. বিশেষ সাধ্যবাক্য এবং নঞর্থক পক্ষবাক্য থেকে কোনো বৈধ সিদ্ধান্ত নিঃসৃত হয় না।
নিম্নলিখিত যুক্তিগুলির বৈধতা বিচার করো এবং কোনো দোষ থাকলে তা উল্লেখ করো

16. কোনো ডানাযুক্ত প্রাণী ঘোড়া নয় এবং একমাত্র চতুষ্পদ প্রাণীই ঘোড়া। তাই বলা যায় কোনো চতুষ্পদ প্রাণী ডানাযুক্ত নয়।

17. চন্দ্র পৃথিবীর চারদিকে ঘোরে, পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে ঘোরে। সুতরাং চন্দ্র সূর্যের চারদিকে ঘোরে।

18. সে পণ্ডিত নয়, কেননা তার বক্তৃতা বোঝা যায় না এবং একমাত্র পণ্ডিত ব্যক্তিদের বক্তৃতাই বোঝা যায়।

19. এই ন্যায় অনুমানটি বৈধ। কেননা সব বৈধ ন্যায়ের মতো এতে তিনটি পদ আছে।

20. প্লেটো অ্যারিস্টটল নন, অ্যারিস্টটল দার্শনিক, সুতরাং প্লেটো দার্শনিক নন।

21. কেবলমাত্র উদার ব্যক্তিরাই বুদ্ধিমান। কেবলমাত্র দার্শনিকরাই উদার এবং কেবল বুদ্ধিমানেরাই দার্শনিক।

22. সে অজ্ঞ নয়, যেহেতু সে কুসংস্কারাচ্ছন্ন নয়।

23. এত ভালো যে কঠোর হতে পারে না।

প্রাকল্পিক ও বৈকল্পিক ন্যায় | অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. প্রাকল্পিক বচনে যদি’-এর পরবর্তী অংশকে বলা হয়—

(a) পূর্বগ (b) অনুগ (c) বিকল্প (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) পূর্বগ

2. প্রাকল্পিক নিরপেক্ষ যুক্তির যে বাক্যটি প্রাকল্পিক বচন

(a) প্রধান (b) অপ্রধান (c) সিদ্ধান্ত (d) সবক’টি

উত্তরঃ (a) প্রধান

3. বৈকল্পিক বচনের অংশ হলো—

(a) একটি (b) দু’টি (c) তিনটি (d) চারটি

উত্তরঃ (b) দু’টি

4. ‘সে বুদ্ধিমান অথবা বোকা’। বচনটির দু’টি বিকল্প

(a) পরস্পর বিরুদ্ধ (b) অনিশ্চিত (c) অবিসংবাদী (d) বিসংবাদী

উত্তরঃ (d) বিসংবাদী

5. ‘নিবেদিতা শিক্ষিকা অথবা গায়িকা। এই বচনটি হলো—

(a) প্রাকল্পিক (c) সামান্য (d) বিশেষ

উত্তরঃ (b) বৈকল্পিক

6. সবল অর্থে ‘অথবা’ শব্দটির অর্থ হলো –

(a) দু’টি বিকল্প সত্য হওয়ার সম্ভাবনা (b) দু’টি বিকল্প মিথ্যা হওয়ার সম্ভাবনা (c) কোনোটিই ঠিক নয় (d) একটি বিকল্প সত্য ও একটি বিকল্প মিথ্যা হওয়ার সম্ভাবনা

উত্তরঃ (d) একটি বিকল্প সত্য ও একটি বিকল্প মিথ্যা হওয়ার সম্ভাবনা

7. যৌগিক যুক্তির অপর নাম হলো –

(a) জটিল যুক্তি (b) মিশ্রযুক্তি (c) নিরপেক্ষ যুক্তি (d) সাপেক্ষ যুক্তি

উত্তরঃ (b) মিশ্রযুক্তি

8. Modus Ponens হলো –

(a) বৈকল্পিক ন্যায়ের (b) আবর্তনের বৈধমূর্তি (c) নিরপেক্ষ ন্যায়ের (d) প্রাকল্পিক ন্যায়ের

উত্তরঃ (d) প্রাকল্পিক ন্যায়ের

9. Modus Tollens হলো –

(a) বৈকল্পিক ন্যায়ের (b) বিবর্তনের বৈধমূর্তি (c) নিরপেক্ষ ন্যায়ের (d) প্রাকল্পিক ন্যায়ের

উত্তরঃ (d) প্রাকল্পিক ন্যায়ের

10. M.P-এর Full Form –

(a) Modus Poens (b) Modus Ponens (c) Modus Pons (d) সবকটি ঠিক

উত্তরঃ (b) Modus Ponens

11. M.T-এর Full Form –

(a) Modus Tolens (b) Model Tolens (c) Modus Tollens (d) Modus Tolenes.

উত্তরঃ (c) Modus Tollens

12. প্রাকল্পিক বচনে ‘তবে’-এর পরবর্তী অংশকে বলা হয় –

(a) পূর্বগ (b) বিকল্প (c) অনুগ (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) অনুগ

13. “নিরপেক্ষ যুক্তির সব বচনই নিরপেক্ষ।” বিবৃতিটি হলো –

(a) মিথ্যা (b) আপতিক (c) সত্য (d) সংশয়াত্মক

উত্তরঃ (c) সত্য

14. M.P এই বৈধমূর্তিটি হলো –

(a) বৈকল্পিক ন্যায়ের (b) গঠনমূলক প্রাকল্পিক ন্যায়ের (c) নিরপেক্ষ ন্যায়ের (d) ধ্বংসমূলক প্রাকল্পিক ন্যায়ের

উত্তরঃ (b) গঠনমূলক প্রাকল্পিক ন্যায়ের

15. প্রাকল্পিক নিরপেক্ষ ন্যায়ের প্রথম নিয়মটি –

(a) M.T নামে পরিচিত (b) M.P নামে পরিচিত (c) D.S নামে পরিচিত (d) C.D নামে পরিচিত

উত্তরঃ (b) M.P নামে পরিচিত

16. বৈকল্পিক নিরপেক্ষ ন্যায়ের নিয়মটি –

(a) M.P নামে পরিচিত (b) C.D নামে পরিচিত (c) M.T নামে পরিচিত (d) D.S নামে পরিচিত

উত্তরঃ (d) D.S নামে পরিচিত

17. ‘M.T’ এই বৈধমূর্তিটি হলো –

(a) বৈকল্পিক ন্যায়ের (b) ধ্বংসমূলক প্রাকল্পিক ন্যায়ের (c) প্রাকল্পিক ন্যায়ের (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) ধ্বংসমূলক প্রাকল্পিক ন্যায়ের

18. বৈধ প্রাকল্পিক নিরপেক্ষ যুক্তিটি হলো –

(a) M.T (b) D.S (c) D.P (d) M.P.

উত্তরঃ (b) D.S

19. ‘p’ অথবা q, p/∴q’ – এই যুক্তি আকারটি হলো—

(a) M.T (b) M.P (c) H.S (d) D.S.

উত্তরঃ (d) D.S.

20. প্রাকল্পিক নিরপেক্ষ যুক্তির প্রধান আশ্রয়বাক্যটির অংশ দু’টি হলো —

(a) পূর্বগ ও অনুগ (b) উদ্দেশ্য ও বিধেয় (c) আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্ত (d) সংযোগী ও বিকল্প

উত্তরঃ (a) পূর্বগ ও অনুগ

21. শিথিল অর্থে ‘অথবা’ শব্দটির অর্থ হলো—

(a) দু’টি বিকল্প মিথ্যা হওয়ার সম্ভাবনা (b) একটি বিকল্প সত্য ও একটি মিথ্যা হওয়ার সম্ভাবনা (c) দুটি বিকল্প সত্য হওয়ার সম্ভাবনা (d) সবকটিই ঠিক

উত্তরঃ (c) দুটি বিকল্প সত্য হওয়ার সম্ভাবনা
অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১]

1. প্রাকল্পিক বচনের ‘যদি-তবে’ অংশটিকে কী বলা হয়?

উত্তরঃ প্রাকল্পিক বচনের সংযোজক বলা হয়।

2. যদি মেঘ করে তবে বৃষ্টি হয়।

বৃষ্টি হয়নি

∴ মেঘ করেনি। এটি কী ধরনের যুক্তি ?

উত্তরঃ অন্তর অবৈধ প্রাকল্পিক যুক্তি।

3. যদি পরিশ্রম করো, তবে সফল হবে।

পরিশ্রম করেছে

∴ সিদ্ধান্তটি কী হবে?

উত্তরঃ সফল হবে।

4. বৈকল্পিক নিরপেক্ষ ন্যায়ের বৈধতার নিয়ম উল্লেখ করো।

উত্তরঃ (i) অবিসংবাদী অর্থে – যেকোনো একটি বিকল্পকে অপ্রধান আশ্রয়বাক্যে অস্বীকার করে অন্য বিকল্পটিকে সিদ্ধান্তে স্বীকার করা না হলে বৈধ হয়। (ii) বিসংবাদী অর্থে – যেকোনো একটি বিকল্পকে অপ্রধান আশ্রয়বাক্যে স্বীকার করে অন্য বিকল্পটিকে সিদ্ধান্তে অস্বীকার করলে বৈধ হয়।

5. অনুগ স্বীকারজনিত দোষের একটি উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ যদি মেঘ করে তবে বৃষ্টি হবে।

বৃষ্টি হচ্ছে

∴ মেঘ করেছে।

6. বিসংবাদী বৈকল্পিক বচনের একটি দৃষ্টান্ত দাও।

উত্তরঃ মানুষটি জীবিত অথবা মৃত

মানুষটি জীবিত

∴ মানুষটি মৃত নয়।

7. পূর্বকল্প কাকে বলে?

উত্তরঃ প্রাকল্পিক বচনে যদি’ (IF) -এর পরবর্তী অংশকে বলা হয় পূবর্গ বা পূর্বকল্প।

8. প্রাকল্পিক বচনের প্রথম অংশকে কী বলা হয়?

উত্তরঃ প্রথম অংশকে পূর্বগ বলা হয়।

9. প্রাকল্পিক বচনের দ্বিতীয় অংশকে কী বলা হয়?

উত্তরঃ দ্বিতীয় অংশকে অনুগ বলা হয়।

10. অনুকল্প কাকে বলে?

উত্তরঃ প্রাকল্পিক বচনে তবে’ বা ‘তা হলে’-এর পরবর্তী অংশকে বলা হয় অনুগ বা অনুকল্প।

11. প্রাকল্পিক বচনের কয়টি অংশ ও কী কী ?

উত্তরঃ দু’টি অংশ – (i) পূর্বগ (ii) অনুগ।

12. ধ্বংসমূলক প্রাকল্পিক ন্যায়ে কী দোষ ঘটে?

উত্তরঃ পূর্বৰ্গ অস্বীকারজনিত দোষ।

13. বৈকল্পিক বচন কাকে বলে?

উত্তরঃ যে সাপেক্ষ ন্যায়ের একটি আশ্রয়বাক্য বৈকল্পিক বচন, অপর আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্ত নিরপেক্ষ বচন তাকে বৈকল্পিক বচন বলে।

14. বৈকল্পিক বচনের প্রথম অংশকে কী বলা হয়?

উত্তরঃ প্রথম অংশকে প্রথম বিকল্প বলা হয়।

15. বৈকল্পিক বচনের দ্বিতীয় অংশকে কী বলা হয়?

উত্তরঃ প্রথম অংশকে দ্বিতীয় বিকল্প বলা হয়।

16. M.P. বলতে কী বোঝো?

উত্তরঃ এটা হলো পূর্বগকে স্বীকার করে অনুগকে স্বীকার করার নিয়ম।

17. M.T. বলতে কী বোঝো?

উত্তরঃ এটা হলো অনুগকে অস্বীকার করে পূর্বগকে অস্বীকার করার নিয়ম।

18. প্রাকল্পিক ন্যায়ের প্রথম নিয়মটি কী?

উত্তরঃ প্রাকল্পিক বচনের পূর্বগকে নিরপেক্ষ হেতুবাক্যে স্বীকার করার পর সিদ্ধান্তে অনুগকে স্বীকার করতে হয়।

19. প্রাকল্পিক ন্যায়ের দ্বিতীয় নিয়মটি কী?

উত্তরঃ প্রাকল্পিক বচনের অনুগকে নিরপেক্ষ হেতুবাক্যে অস্বীকার করার পর সিদ্ধান্তে পূর্বগকে অস্বীকার করতে হয়।

20. প্রাকল্পিক নিরপেক্ষ ন্যায়ের সিদ্ধান্তটি কোন বচন হয়?

উত্তরঃ সিদ্ধান্তটি নিরপেক্ষ বচন হয়।

বুলীয় ভাষ্য ও ভেনচিত্র | অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো
1. বুলীয় ভাষ্য অনুযায়ী বৈধ বিরোধিতা হলো—

(a) বিপরীত বিরোধিতা (b) অধীন বিপরীত বিরোধিতা (c) অসম বিরোধিতা (d) বিরুদ্ধ বিরোধিতা

উত্তরঃ (d) বিরুদ্ধ বিরোধিতা

2. যে শ্রেণির মধ্যে অন্তত একজন সদস্যের অস্তিত্ব আছে, তাকে বলা হয়-

(a) শূন্য (b) অশূন্য (c) পরিপূরক (d) বিরুদ্ধ শ্রেণি

উত্তরঃ (b) অশূন্য

3. শূন্য শ্রেণির বুলীয় ভাষ্যটি হলো—

(a) S = O (b) S # O (c) SP = O (d) SP # O

উত্তরঃ (a) S = O

4. বুলের মতে অস্তিত্বমূলক তাৎপর্য নেই—

(a) সামান্য বচনের (b) বিশেষ বচনের (c) সাপেক্ষ বচনের (d) নিরপেক্ষ বচনের

উত্তরঃ (a) সামান্য বচনের

5. I বচনের ভেনচিত্রটি হলো—

(a) S P (b) S P (c) S P (d) S P

উত্তরঃ (a) S P

6. O বচনের ভেনচিত্রটি হলো—

(a) S P (b) S P (c) S P (d) S P

উত্তরঃ (b) S P

7. পরিপূরক শ্রেণি বলতে বোঝায় –

(a) নিঃশূন্য শ্রেণি (b) কোনো পদের সকল বিপরীত পদের সমষ্টির শ্রেণি (c) শূন্য শ্রেণি (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) কোনো পদের সকল বিপরীত পদের সমষ্টির শ্রেণি

8. নিঃশূন্য পদের উদাহরণ হলো—

(a) ঘটত্ব (b) পক্ষীরাজ ঘোড়া (c) মানুষ (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) পক্ষীরাজ ঘোড়া

9. পরিপূরক শ্রেণি বলা হয়—

(a) মূল শ্রেণির বিরুদ্ধ শ্রেণিকে (b) মূল শ্রেণির সমার্থক শ্রেণিকে (c) মূল শ্রেণিকে (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) মূল শ্রেণির বিরুদ্ধ শ্রেণিকে

10. SP = O এই বুলীয় লিপিটির বচনটি হলো –

(a) E (b) O (c) A (d) I

উত্তরঃ (a) E

11. S = শূন্য শ্রেণি হলে এর প্রতীক রূপটি হবে –

(a) S # O (b)  = O (c) S= O (d) SP  O

উত্তরঃ (b)  = O

12. জর্জ বুল বলেন অস্তিত্বমূলক তাৎপর্য আসলে

(a) বৈকল্পিক বাক্য (b) প্রাকল্পিক বাক্য (c) সংযৌগিক বাক্য (d) নিরপেক্ষ বাক্য

উত্তরঃ (b) প্রাকল্পিক বাক্য

13. অস্তিত্বমুলক তাৎপর্য হলো –

(a) যার বাস্তব অস্তিত্ব থাকবে (b) যার বাস্তব অস্তিত্ব না-ও থাকতে পারে (c) যার বাস্তব অস্তিত্ব থাকবে না (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) যার বাস্তব অস্তিত্ব থাকবে

14. বুলীয় লিপিকে চিত্রের মাধ্যমে প্রকাশ করেছেন –

(a) জর্জ ভেন (b) অ্যারিস্টটল (c) IM কোপি (d) জর্জ বুল

উত্তরঃ (a) জর্জ ভেন

15. ভেনচিত্রের সমীকরণ চিহ্নটি হলো –

(a) = (b) – (c)  (d) +

উত্তরঃ (a) =

16. যুক্তিবিজ্ঞানী জর্জ বুলের ভাষ্যকে বলে –

(a) বুলীয় লিপি (b) ভেনচিত্র (c) নব্য যুক্তিবিজ্ঞান (d) প্রতীকী যুক্তিবিজ্ঞান

উত্তরঃ (a) বুলীয় লিপি

17. S  O -এর অর্থ হলো S শ্রেণি –

(a) বচন (b) সদস্য (c) শূন্যগর্ভ নয় (d) শূন্যগর্ভ

উত্তরঃ (c) শূন্যগর্ভ নয়

18. বুলীয় ভাষ্যের ধারণাটির উৎস কী?

(a) বচন (b) বাক্য (c) বচনের গুণ ও পরিমাণ (d) বচনের অস্তিত্বমূলক তাৎপর্য

উত্তরঃ (d) বচনের অস্তিত্বমূলক তাৎপর্য
অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [ মান – ১ ]

1. কোন কোন বচন শূন্য বচন হিসেবে পরিচিত?

উত্তরঃ A ও E বচন বা সামান্য বচন দু’টি শূন্য বচন হিসেবে পরিচিত।

2. কোন কোন বচন অশূন্য বচন হিসেবে পরিচিত?

উত্তরঃ I এবং O বচন বা বিশেষ বচন দু’টি অশূন্য বচন হিসেবে পরিচিত।

3. ‘পক্ষীরাজ ঘোড়া’ পদটি কোন শ্রেণিকে নির্দেশ করে?

উত্তরঃ শূন্য শ্রেণিকে

4. ‘ভালো গায়ক’ পদটি কোন শ্রেণিকে নির্দেশ করে?

উত্তরঃ অশূন্য শ্রেণিকে।

5. A বচনের ভেনচিত্র কী?

উত্তরঃ A -এর ভেনচিত্র হলো S P.

6. E বচনের ভেনচিত্র কী?

উত্তরঃ E -এর ভেনচিত্র হলো S P.

7. I বচনের ভেনচিত্র কী?

উত্তরঃ I -এর ভেনচিত্র হলো S P

8. O বচনের ভেনচিত্র কী?

উত্তরঃ O -এর ভেনচিত্র হলো S P

9. শূন্যগর্ভ শ্রেণির প্রথম প্রবক্তা কে?

উত্তরঃ জর্জ বুল।

10. S নামক শূন্য শ্রেণির ভেনচিত্র কী?

উত্তরঃ S

11. শূন্য শ্রেণির দু’টি উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ পক্ষীরাজ ঘোড়ার শ্রেণি এবং মৎস্যকন্যার শ্রেণি।

12. অ-শূন্য শ্রেণির দু’টি উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ মানুষ, পাহাড়

13. শূন্যগর্ভ শ্রেণি কাকে বলে?

উত্তরঃ যে শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত কোনো বস্তু যা ব্যক্তির বাস্তব অস্তিত্ব নেই, তাকে শূন্যগর্ভ। শ্রেণি বলে।

14. অস্তিত্বমূলক তাৎপর্য কাকে বলে ?

উত্তরঃ কোনো বচনের মাধ্যমে যদি অন্তত কোনো একটি ব্যক্তি বা বস্তুর অস্তিত্বকে ঘোষণা করা হয়, তবে তাকে অস্তিত্বমূলক তাৎপর্য বলা হয়।

15. অশূন্য বা সাত্ত্বিক শ্রেণি কাকে বলে?

উত্তরঃ যে শ্রেণির অন্তর্গত অন্তত একজন সদস্যেরও বাস্তব অস্তিত্ব আছে তাকে অশূন্য বা সাত্ত্বিক শ্রেণি বলে।

16. একক শ্রেণি কী?

উত্তরঃ যে শ্রেণিতে মাত্র একটি সদস্য বর্তমান, তাকে একক শ্রেণি বলে।

17. পরিপূরক শ্রেণি কাকে বলে?

উত্তরঃ মূল শ্রেণির বিরুদ্ধ শ্রেণিকে পরিপূরক শ্রেণি বলা হয়।

সত্যাপেক্ষ | অবরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. যৌগিক বচনের আকারকে বলা হয়—

(a) সত্যাপেক্ষক (b) ধ্রুবক (c) প্রাকল্পিক (d) বৈকল্পিক

উত্তরঃ (a) সত্যাপেক্ষক

2. বচনের যোজক জ্ঞাপক চিহ্নগুলিকে বলা হয়—

(a) গ্রাহক (b) ধ্রুবক (c) সংকেত (d) পরিমাণক

উত্তরঃ (b) ধ্রুবক

3. যৌগিক বচন হলো—

(a) যার নির্দিষ্ট অর্থ আছে (b) যার নির্দিষ্ট অর্থ নেই (c) যার নির্দিষ্ট নীতি আছে (d) যার নির্দিষ্ট নীতি নেই

উত্তরঃ (a) যার নির্দিষ্ট অর্থ আছে

4. বৈকল্পিক বচনাকার হলো –

(a) p ⊃ q (b) p.q (c) p ≡ q (d) p ˅ q

উত্তরঃ (d) p ˅ q

5. আপতিক বচনাকার হলো –

(a) p.~ p (b) p.q (c) pv~ p (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) p.q

6. বচনের কাঠামোকে বলা হয়

(a) বাক্যাকার (b) বচনাকার (c) বচনকাঠামো (d) বচনগ্রাহক

উত্তরঃ (b) বচনাকার

7. সংযৌগিক বচন কাকে বলে?

(a) হয় … অথবা’ দ্বারা গঠিত বচনকে (b) এবং’ দ্বারা গঠিত বচনকে (c) যদি … তবে’ দ্বারা গঠিত বচনকে (d) ‘না’ দ্বারা গঠিত বচনকে

উত্তরঃ (b) এবং’ দ্বারা গঠিত বচনকে

8. যৌগিক বচন কাকে বলে ?

(a) যার অঙ্গবাক্য আছে (b) যার অর্থ আলাদা (c) যার অঙ্গবাক্য নেই (d) যার আলাদা অর্থ নেই

উত্তরঃ (a) যার অঙ্গবাক্য আছে

9. যৌগিক বচন –

(a) ৪ প্রকার (b) ২ প্রকার (c) ৬ প্রকার (d) ৫ প্রকার

উত্তরঃ (b) ২ প্রকার

10. যদি p তাহলে q’ মিথ্যা হবে যদি –

(a) p সত্য কিন্তু q মিথ্যা হয় (b) p মিথ্যা কিন্তু q সত্য হয় (c) p ও q উভয়েই মিথ্যা হয় (d) p ও q উভয়েই সত্য হয়

উত্তরঃ (a) p সত্য কিন্তু q মিথ্যা হয়

11. p.q এই বচনাকারটি –

(a) স্বতঃমিথ্যা (b) আপতিক (c) স্বতঃসত্য (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (b) আপতিক

12. কোনো সত্যাপেক্ষক যৌগিক বচনের সত্যমূল্য নির্ভর করে –

(a) অঙ্গবচন ও যোজকের উপর (b) শুধুমাত্র অঙ্গবচনের উপর (c) শধুমাত্র যোজকের উপর (d) এদের কোনোটির উপর নয়

উত্তরঃ (a) অঙ্গবচন ও যোজকের উপর

13. সংকেত হলো একটি –

(a) কৃত্রিম চিহ্ন (b) বাক্যের সংক্ষিপ্ত রূপ (c) প্রতীক (d) চিহ্ন

উত্তরঃ (a) কৃত্রিম চিহ্ন

14. প্রাকল্পিক বচন কখন সত্য হয়?

(a) অনুগ সত্য হলে (b) পূর্বগ ও অনুগ মিথ্যা হলে (c) পূর্বগ সত্য হলে (d) অনুগ মিথ্যা হলে

উত্তরঃ (d) অনুগ মিথ্যা হলে

15. প্রাকল্পিক বচন কখন মিথ্যা হয়?

(a) পূর্বগ সত্য হলে (b) পূর্বগ সত্য ও অনুগ মিথ্যা হলে (c) অনুগ মিথ্যা হলে (d) পূর্বগ ও অনুগ মিথ্যা হলে

উত্তরঃ (b) পূর্বগ সত্য ও অনুগ মিথ্যা হলে

16. p সত্য q মিথ্যা হলে p ˅ q -এর মান হবে—

(a) মিথ্যা (b) সম্ভাব্য (c) সত্য (d) অনিশ্চিত

উত্তরঃ (c) সত্য

17. যৌগিক বচনের আকারকে বলা হয় –

(a) ধ্রুবক (b) সত্যাপেক্ষক (c) বৈকল্পিক (d) প্রাকল্পিক

উত্তরঃ (b) সত্যাপেক্ষক

18. সত্যাপেক্ষক -এর নিবেশন দৃষ্টান্তকে বলা হয় –

(a) বৈকল্পিক (b) নিরপেক্ষ বচন (c) প্রাকল্পিক (d) সত্যাপেক্ষ বচন

উত্তরঃ (d) সত্যাপেক্ষ বচন

19. ‘p’ এবং ‘~~ p’-এর মান –

(a) বিষয়মানের (b) সমমানের (c) বিরুদ্ধ মানের (d) বিপরীত মানের

উত্তরঃ (b) সমমানের

20. ‘প্রতীক’ হলো একপ্রকার –

(a) কৃত্রিম সংকেত (b) ভাষা (c) চিহ্ন (d) ছেদ বা যতিচিহ্ন

উত্তরঃ (c) চিহ্ন

21. গ্রাহক কত প্রকার ?

(a) ৩ প্রকার (b) ৪ প্রকার (c) ২ প্রকার (d) ৫ প্রকার

উত্তরঃ (a) ৩ প্রকার

22. সত্যাপেক্ষ বচন হলো –

(a) ৩ প্রকার (b) ৫ প্রকার (c) ২ প্রকার (d) ৪ প্রকার

উত্তরঃ (b) ৫ প্রকার

23. সংকেত বা প্রতীকের প্রথম ব্যবহার করেন –

(a) জন ভেন (b) জর্জ বুল (c) প্লেটো (d) অ্যারিস্টটল

উত্তরঃ (d) অ্যারিস্টটল

24. স্বতঃসত্য বচনাকার কোনটি ?

(a) p.~ p (b) p˅~ p (c) p ⊃ q (d) p ≡ q

উত্তরঃ (b) p˅~ p

25. p সত্য এবং q মিথ্যা হলে ‘p˅q’কী হবে?

(a) মিথ্যা হবে (b) অনির্দিষ্ট মান হবে (c) সত্য হবে (d) সত্য এবং মিথ্যা হবে

উত্তরঃ (c) সত্য হবে

26. প্রাকল্পিক বচন কাকে বলে?

(a) হয় …. অথবা’ দিয়ে যে বচন (b) সমান’ দিয়ে যে বচন (c) এবং’ দিয়ে যে বচন (d) যদি …. তবে’ দিয়ে যে বচন

উত্তরঃ (d) যদি …. তবে’ দিয়ে যে বচন
অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১]

1. সত্যাপেক্ষ বচন কয় প্রকার?

উত্তরঃ পাঁচ প্রকার। যথা— (i) নিষেধক (ii) সংযৌগিক (iii) বৈকল্পিক (iv) প্রাকল্পিক (v) দ্বিপ্রাকল্পিক।

2. বচনের সত্যমূল্য বলতে কী বোঝায়?

উত্তরঃ বচনের সত্যমূল্য বলতে বোঝায় বচনটির সত্যতা অথবা মিথ্যাত্বকে।

3. সত্যমূল্যের প্রেক্ষিতে বচন কয় প্রকার ও কী কী?

উত্তরঃ তিন প্রকার — (i) স্বতঃসত্য (ii) স্বতঃমিথ্যা (iii) আপতিক।

4. p ˅~ p -বচনাকারটি কখন মিথ্যা হবে?

উত্তরঃ p-এর মান সত্য হলে।

5. বৈকল্পিক বচন কখন মিথ্যা হয়?

উত্তরঃ সব বিকল্প মিথ্যা হলে সমগ্র বৈকল্পিক বচনটি মিথ্যা হয়।

6. নির্দেশক স্তম্ভ ও প্রধান স্তম্ভ কাকে বলে?

উত্তরঃ সত্যসারণির অঙ্গবচনগুলি নিয়ে যেসকল স্তম্ভ গড়ে ওঠে তাদের বলা হয়। নির্দেশক স্তম্ভ এবং সত্যসারণির যে স্তম্ভ থেকে সত্যসারণিটির সত্যমূল্য নির্ধারণ করা হয় তাকে প্রধান স্তম্ভ বলা হয়।

7. প্রতীক কত প্রকার ও কী কী ?

উত্তরঃ ভর দু’প্রকার – (i) শাব্দ প্রতীক (ii) আশাব্দ প্রতীক।

8. সংযোগী কাকে বলে ?

উত্তরঃ সংযৌগিক বচনের উপাদান বচনগুলিকে বলা হয় সংযোগী।

9. সরল বচন কাকে বলে?

উত্তরঃ যে বচনের কোনো অঙ্গবাক্য নেই, তাকেই সরল বচন বলে।

10. নিষেধক বচন কী ?

উত্তরঃ যে বচনে একটি নঞর্থক বা না-বাচক শব্দ থাকে তাকে নিষেধক বচন বলে।

11. সংকেত কী?

উত্তরঃ সংকেত হলো একটি প্রতিনিধিত্বমূলক চিহ্ন যার দ্বারা বাক্য বা বচন বা তার কোনো অংশকে নির্দেশ করা হয়।

12. ধ্রুবক কাকে বলে ?

উত্তরঃ ধ্রুবক হলো সেই চিহ্ন যার একটি নির্দিষ্ট অর্থ আছে এবং যেগুলি পরিবর্তিত নয়।

13. প্রতীক কাকে বলে?

উত্তরঃ কোনো কিছু বোঝাবার, ব্যক্ত করবার বা কোনো কিছু নির্দেশ করার জন্য যে চিহ্ন বা সংকেত বা লিপি ব্যবহার করা হয়, তাকে ‘প্রতীক’ বলে।

14. স্বতঃসত্য বচনাকার কীরূপ বা কাকে বলে?

উত্তরঃ যে বচনাকারের প্রধান স্তরের প্রধান যোজকের সবক’টি সারিতেই সত্য হয় তাকে স্বতঃসত্য বচনাকার বলে।

আরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

আরোহ অনুমানের স্বরূপ | আরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. যে যুক্তির গতি বিশেষ থেকে সার্বিকের দিকে

(a) অবরোহ যুক্তি (b) আরোহ যুক্তি (c) মাধ্যম যুক্তি (d) উপমা যুক্তি

উত্তরঃ (b) আরোহ যুক্তি

2. আরোহ অনুমানের সিদ্ধান্তটি হলো—

(a) বিশেষ বচন (b) সামান্য বচন (c) সামান্য সংশ্লেষক বচন (d) বিশেষ বিশ্লেষক বচন

উত্তরঃ (c) সামান্য সংশ্লেষক বচন

3. আরোহ অনুমানের লক্ষণটি হলো—

(a) সামান্যীকরণ (b) বিশেষীকরণ (c) সরলীকরণ (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) সামান্যীকরণ

4. আরোহ অনুমানের সমস্যাটি হলো—

(a) বৈধতা (b) অবৈধতা (c) আকারগত সত্যতা (d) সামান্যীকরণ

উত্তরঃ (d) সামান্যীকরণ

5. আরোহ অনুমানের যুক্তিবাক্য ও সিদ্ধান্তের মধ্যে যে সম্বন্ধ থাকে না –

(a) প্রযুক্তি সম্বন্ধ (b) যৌক্তিক সম্বন্ধ (c) কার্যকারণ সম্বন্ধ (d) বিজ্ঞানসম্মত সম্বন্ধ

উত্তরঃ (a) প্রযুক্তি সম্বন্ধ

6. বৈধতার বিষয়টি কোন অনুমানের বিষয়?

(a) সাদৃশ্য অনুমানের (b) আরোহ অনুমানের (c) অবরোহ অনুমানের (d) লৌকিক অনুমানের

উত্তরঃ (c) অবরোহ অনুমানের

7. অপূর্ণ গণনামূলক আরোহ অনুমানে কীরূপ দৃষ্টান্তের গণনা করা হয়?

(a) পাঁচ থেকে দশটি দৃষ্টান্তের গণনা করা হয় (b) সমস্ত দৃষ্টান্তের গণনা করা হয় (c) কয়েকটি অবাধ অভিজ্ঞতায় পাওয়া দৃষ্টান্তের গণনা করা হয় (d) অসংখ্য দৃষ্টান্তের গণনা করা হয়।

উত্তরঃ (c) কয়েকটি অবাধ অভিজ্ঞতায় পাওয়া দৃষ্টান্তের গণনা করা হয়

8. উপমা যুক্তি কত প্রকার ?

(a) ২ প্রকার (b) ৪ প্রকার (c) ৩ প্রকার (d) ৫ প্রকার

উত্তরঃ (a) ২ প্রকার

9. উপমা যুক্তির সিদ্ধান্ত কী হবে?

(a) সম্ভাব্য (b) বৈধ (c) অবৈধ (d) সুনিশ্চিত

উত্তরঃ (a) সম্ভাব্য

10. সাদৃশ্য অনুমানকে বলা হয় –

(a) সাদৃশ্য যুক্তি (b) উপমা যুক্তি (c) সমযুক্তি (d) ভালো উপমা যুক্তি

উত্তরঃ (b) উপমা যুক্তি

11. আরোহ অনুমানের সিদ্ধান্ত সবসময় –

(a) প্রমাণিত (b) সুনিশ্চিত (c) সম্ভাব্য (d) নিশ্চিত

উত্তরঃ (c) সম্ভাব্য

12. আরোহ অনুমানের লক্ষণ কোনটি?

(a) সিদ্ধান্তের প্রমাণ (b) প্রত্যক্ষের অতিক্ৰমণ (c) অনুমান গঠন (d) যুক্তিবাক্যের প্রতিষ্ঠা

উত্তরঃ (b) প্রত্যক্ষের অতিক্ৰমণ

13. আরোহ অনুমানের লক্ষণ কী?

(a) বিশেষীকরণ (b) অনুমান গঠন (c) সামান্যীকরণ (d) জ্ঞান গঠন

উত্তরঃ (c) সামান্যীকরণ

14. আরোহ অনুমানের সিদ্ধান্ত –

(a) সার্বিক সংশ্লেষক বচন (b) পূর্বতঃসিদ্ধ সংশ্লেষক বচন (c) সার্বিক বিশ্লেষক বচন (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) সার্বিক সংশ্লেষক বচন

15. আরোহ অনুমানে সামান্যীকরণের মাধ্যমে যে বচন। প্রতিষ্ঠা করা হয় তা হলো—

(a) সামান্য বিশ্লেষক বচন (b) বিশেষ সংশ্লেষক বচন (c) সামান্য সংশ্লেষক বচন (d) বিশেষ বিশ্লেষক বচন

উত্তরঃ (c) সামান্য সংশ্লেষক বচন

16. ‘আরোহ-সংক্রান্ত লাফ’ লক্ষ করা যায় –

(a) আরোহ যুক্তিতে (b) প্রাকল্পিক যুক্তিতে (c) অবরোহ যুক্তিতে (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) আরোহ যুক্তিতে

17. ‘আরোহ অনুমান-সংক্রান্ত লাফ’-এর কথা কে বলেছেন?

(a) যুক্তিবিজ্ঞানী মিল (b) যুক্তিবিজ্ঞানী অ্যারিস্টটল (c) যুক্তিবিজ্ঞানী বেন (d) যুক্তিবিজ্ঞানী কোপি

উত্তরঃ (a) যুক্তিবিজ্ঞানী মিল

18. অপূর্ণ গণনামূলক আরোহ অনুমানের সিদ্ধান্তটি কীরূপ?

(a) সিন্ধান্তটি বৈধরূপে গণ্য (c) সিদ্ধান্তটি অবৈধরূপে গণ্য (d) সিদ্ধান্তটি নিশ্চিতরূপে গণ্য

উত্তরঃ (b) সিদ্ধান্তটি সম্ভাব্যরূপে গণ্য

19. উপমা যুক্তির সিদ্ধান্তের সম্ভাব্যতার সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ শর্ত হলো—

(a) সাদৃশ্যের সংখ্যা (b) সাদৃশ্যের প্রাসঙ্গিকতা (c) ব্যক্তিগত বৈসাদৃশ্য (d) ব্যক্তিগত সাদৃশ্য

উত্তরঃ (a) সাদৃশ্যের সংখ্যা

20. লৌকিক আরোহ অনুমান বলা হয় –

(a) উপমা যুক্তিকে (b) ন্যায় অনুমানকে (c) বৈজ্ঞানিক আরোহ অনুমানকে (d) অবৈজ্ঞানিক আরোহকে

উত্তরঃ (d) অবৈজ্ঞানিক আরোহকে

21. অবৈজ্ঞানিক আরোহ অনুমানের অপর নাম কী?

(a) অপূর্ণ গণনামূলক আরোহ অনুমান (b) পূর্ণ গণনামূলক আরোহ অনুমান (c) বৈসাদৃশ্যমূলক আরোহ অনুমান (d) সাদৃশ্যমূলক আরোহ অনুমান

উত্তরঃ (a) অপূর্ণ গণনামূলক আরোহ অনুমান

22. প্রকৃতির একরূপতার অর্থ কী?

(a) বিভিন্ন পরিবেশে ভিন্ন ভিন্ন আচরণ (b) একই পরিবেশে একইরকম আচরণ (c) বিভিন্ন পরিবেশে একরকম আচরণ (d) একই পরিবেশে ভিন্ন রকম আচরণ

উত্তরঃ (b) একই পরিবেশে একইরকম আচরণ
অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১]

1. আরোহ অনুমানের লক্ষণ কী?

উত্তরঃ আরোহ অনুমানের লক্ষণ হলো প্রত্যক্ষের অতিক্ৰমণ।

2. আরোহ অনুমানের আকারগত ভিত্তি কী?

উত্তরঃ প্রকৃতির একরূপতা নীতি এবং কার্যকারণ বিধি।

3. প্রকৃতির একরূপতা নীতি কী?

উত্তরঃ যে নীতি অনুসারে, প্রকৃতি সম অবস্থায় সম আচরণ করে, তাকে প্রকৃতির একরূপতা নীতি বলে।

4. উপমা যুক্তি কীরূপ বচন প্রতিষ্ঠা করে?

উত্তরঃ বিশেষ বচন প্রতিষ্ঠা করে উপমা যুক্তি।

5. উত্তম উপমা যুক্তির উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ রাম ও যদু উভয়ের রক্তে ম্যালেরিয়ার জীবাণু পাওয়া গেছে।

রাম কুইনাইন খেয়ে সুস্থ হয়েছে।

∴ যদুও কুইনাইন খেয়ে ভালো হবে।

6. উত্তম উপমা কাকে বলে?

উত্তরঃ যে উপমা যুক্তিতে উপমা বা সাদৃশ্য প্রাসঙ্গিক, তাকে বলে উত্তম উপমা যুক্তি।

7. আরোহ অনুমান-সংক্রান্ত লাফ কাকে বলে ?

উত্তরঃ আরোহ অনুমানে বিশেষ সত্য থেকে সার্বিক সত্যে উপনীত হওয়াকে আরোহ অনুমান-সংক্রান্ত লাফ বলে।

8. উপমা যুক্তি বা সাদৃশ্যমূলক আরোহানুমান কাকে বলে?

উত্তরঃ দুই বা ততোধিক বস্তুর মধ্যে কয়েকটি বিষয়ে সাদৃশ্য লক্ষ করে এবং সেই সাদৃশ্যের ভিত্তিতে যখন তাদের মধ্যে অপর কোনো নতুন সাদৃশ্যের অস্তিত্ব অনুমান করা হয়, তাকে বলা হয় উপমা যুক্তি বা সাদৃশ্যমূলক আরোহানুমান।

9. উপমা যুক্তির মূল্যায়নের একটি মানদণ্ড লেখো।

উত্তরঃ জ্ঞাত সাদৃশ্যের সংখ্যা যত বেশি হবে উপমা যুক্তির সিদ্ধান্তের সম্ভাব্যতাও তত বেশি হবে।

10. পর্যবেক্ষণ কাকে বলে?

উত্তরঃ বিশেষ কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে কোনো কিছুকে দেখাই হলো পর্যবেক্ষণ।

11. অপূর্ণ গণনামূলক আরোহের ভিত্তি কী ?

উত্তরঃ অবাধ অভিজ্ঞতা।

12. ভালো বা উত্তম উপমা যুক্তির একটি দৃষ্টান্ত দাও।

উত্তরঃ যত বাঘ দেখেছি, তাদের সবক’টি মাংস খায়।

∴ সব বাঘ মাংসাশী।

13. কার্যকারণ নিয়ম কী ?

উত্তরঃ প্রত্যেকটি কার্যেরই একটি নিয়ম আছে।

14. মন্দ উপমা কাকে বলে?

উত্তরঃ যে উপমা যুক্তিতে সাদৃশ্য প্রাসঙ্গিক নয়, তাকে বলে মন্দ উপমা।

কারণ | আরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. কারণ হলো কার্যের অব্যবহিত শর্তাস্তৱহীন অপরিবর্তনীয় পূর্ববর্তী ঘটনা”। একথা বলেছেন

(a) হিউম (b) ডেকাৰ্ত (c) মিল (d) কান্ট

উত্তরঃ (c) মিল

2. শর্ত হলো-

(a) কার্য (b) কারণ (c) কার্যের অংশ (d) কারণের অংশ

উত্তরঃ (d) কারণের অংশ

3. যদি ‘ক’ ঘটলে ‘খ’ ঘটে, তবে ক হয় খ-এর

(a) পর্যাপ্ত শৰ্ত (b) আবশ্যিক শর্ত (c) সদর্থক শর্ত (d) নঞর্থক শর্ত

উত্তরঃ (a) পর্যাপ্ত শৰ্ত

4. কারণ হলো কার্যের আবশ্যিক শর্ত, একথা বলেন

(a) বুদ্ধিবাদী (b) সংশয়বাদী (c) প্রজ্ঞাবাদী (d) অভিজ্ঞতাবাদীরা

উত্তরঃ (a) বুদ্ধিবাদী

5. ‘A System of Logic’ গ্রন্থটির লেখক হলেন-

(a) কোপি (b) বেন (c) মিল (d) জর্জ বুল

উত্তরঃ (c) মিল

6. বহুকারণবাদের মূল বক্তব্য কী?

(a) ভিন্ন ভিন্ন কারণ থেকে একই কার্য উৎপন্ন হয় (b) একই কারণ থেকে ভিন্ন ভিন্ন কার্য উৎপন্ন হয় (c) ভিন্ন ভিন্ন কারণ থেকে ভিন্ন ভিন্ন কার্যের সৃষ্টি হয় (d) একটি কার্য একটি কারণ থেকে উৎপন্ন হয়

উত্তরঃ (a) ভিন্ন ভিন্ন কারণ থেকে একই কার্য উৎপন্ন হয়

7. আবশ্যিক শর্ত প্রকাশিত হয় –

(a) নঞর্থক বাক্যে (b) সম্মতিসূচক বাক্যে (c) প্রশ্নবোধক বাক্যে (d) সদর্থক বাক্যে

উত্তরঃ (a) নঞর্থক বাক্যে

8. কোন সময়ে কারণের ধারণাটি আসে?

(a) কার্যের ধারণায় আসে (b) কার্যের সঙ্গে আসে (c) কার্যের পরে আসে (d) কার্যের আগে আসে

উত্তরঃ (d) কার্যের আগে আসে

9. কারণ কোন শর্তের সমষ্টি ?

(a) সদর্থক ও নঞর্থক শর্তের (b) নঞর্থক শর্তের (c) সদর্থক শর্তের (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (a) সদর্থক ও নঞর্থক শর্তের

10. কারণের ধারণাটি কার সঙ্গে জড়িত?

(a) বিচ্ছিন্ন ঘটনার সঙ্গে জড়িত (b) ঘটনার ধারণার সঙ্গে জড়িত (c) কার্যের ধারণার সঙ্গে জড়িত (d) কাল্পনিক বিষয়ের সঙ্গে জড়িত

উত্তরঃ (c) কার্যের ধারণার সঙ্গে জড়িত

11. ‘ক’ হলো ‘খ’-এর পর্যাপ্ত শর্ত – একথার অর্থ হলো ।

(a) যদি ‘ক’ ঘটে তবে ‘খ’ ঘটে (b) যদি ‘ক’ না ঘটে তবে ‘খ’ ঘটে না (c) যদি ‘খ’ ঘটে তবে ‘ক’ ঘটে (d) যদি ‘খ’ না ঘটে তবে ‘ক’ঘটে না

উত্তরঃ (a) যদি ‘ক’ ঘটে তবে ‘খ’ ঘটে

12. বহুকারণবাদে কারণকে গ্রহণ করা হয়েছে –

(a) পর্যাপ্ত শর্ত হিসেবে (b) সদর্থক শর্ত হিসাবে (c) আবশ্যিক শর্ত হিসেবে (d) আবশ্যিক পর্যাপ্ত শর্ত হিসেবে

উত্তরঃ (a) পর্যাপ্ত শর্ত হিসেবে

13. ‘অক্সিজেনের উপস্থিতি দহনের কারণ’– বাক্যটিতে ‘কারণ’ কথাটি যে অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে তা হলো

(a) পর্যাপ্ত শর্ত (b) আবশ্যিক শর্ত (c) বহুকারণবাদ (d) আবশ্যিক পর্যাপ্ত শর্ত

উত্তরঃ (b) আবশ্যিক শর্ত

14. কারণের আবশ্যিক শর্ত কী?

(a) যা ঘটলে কার্য ঘটবেই (b) যা না ঘটলে কার্য ঘটে না (c) যা না ঘটলে কার্য ঘটে (d) যা ঘটলেও কার্যটি ঘটে না

উত্তরঃ (b) যা না ঘটলে কার্য ঘটে না

15. এককারণবাদে কারণকে গ্রহণ করা হয় –

(a) নঞর্থক শর্ত হিসাবে (b) পর্যাপ্ত শর্ত (c) আবশ্যিক শর্ত (d) আবশ্যিক পর্যাপ্ত শর্ত

উত্তরঃ (b) পর্যাপ্ত শর্ত

16. কারণের গুণগত লক্ষণ কী?

(a) কারণ হলো কোনো ঘটনার নিয়ত পূর্ববর্তী (b) কারণ হলো কোনো ঘটনার পূর্ববর্তী ঘটনা (c) কারণ হলো কোনো ঘটনার শর্তহীন অব্যবহিত ও নিয়ত পূর্ববর্তী ঘটনা (d) কারণ হলো কোনো ঘটনার শর্তহীন পূর্ববর্তী ঘটনা

উত্তরঃ (c) কারণ হলো কোনো ঘটনার শর্তহীন অব্যবহিত ও নিয়ত পূর্ববর্তী ঘটনা

17. বৃষ্টি হয়েছে। ∴ মাটি ভিজেছে।

(a) আবশ্যিক শর্ত অর্থে (b) পর্যাপ্ত শর্ত অর্থে (c) সদর্থক শর্ত অর্থে (d) আবশ্যিক পর্যাপ্ত শর্ত অর্থে

উত্তরঃ (b) পর্যাপ্ত শর্ত অর্থে

18. কারণকে অনুমান করা হয় –

(a) উপমাযুক্তিতে (b) পর্যাপ্ত শর্তে (c) সবক’টি ঠিক (d) আবশ্যিক শর্তে

উত্তরঃ (d) আবশ্যিক শর্তে

19. কারণের পর্যাপ্ত শর্ত কী ?

(a) যা ঘটলে কার্য ঘটে না (b) যা কার্যকে বহুলাংশে ঘটায় (c) যা ঘটলে কার্য ঘটবেই (d) যা কার্যকে দু-একটি ক্ষেত্রে ঘটায়

উত্তরঃ (c) যা ঘটলে কার্য ঘটবেই

20. আবশ্যিক শর্ত কীরূপ বাক্যে প্রকাশিত হয়?

(a) বিস্ময়সূচক বাক্যে (b) হা-বাচক বাক্যে (c) না-বাচক বাক্যে (d) সম্মতিসূচক বাক্যে

উত্তরঃ (c) না-বাচক বাক্যে

21. শর্ত হলো কারণের অপরিহার্য অংশ -একথা বলেছেন –

(a) মিল (b) কার্ভেথ রিড (c) বেন (d) কোপি

উত্তরঃ (b) কার্ভেথ রিড

22. বহুকারণবাদের একজন সমর্থক হলেন

(a) লক (b) মিল (c) দেকার্ত (d) স্পিনোজা

উত্তরঃ (b) মিল

23. কারণ ও কার্যের সম্বন্ধ হলো –

(a) কারণ কার্যের অনুগামী ঘটনা (b) কারণ কার্যের পূর্ববর্তী ঘটনা (c) কালীক ঘটনা (d) অব্যবহিত শর্তহীন পূর্ববর্তী ঘটনা

উত্তরঃ (d) অব্যবহিত শর্তহীন পূর্ববর্তী ঘটনা

24. কারণের পরিমাণগত লক্ষণ কী?

(a) কারণ হলো কার্যের কম (b) কারণ হলো কার্যের বেশি (c) কারণ হলো কার্যের সমান (d) কারণ হলো কার্যের অংশবিশেষ

উত্তরঃ (c) কারণ হলো কার্যের সমান

25. কারণ’ শব্দের দ্বারা পর্যাপ্ত আবশ্যিক শর্তকে নির্দেশ করেন–

(a) মিল (b) কার্ভেথ রিড (c) আই.এম. কোপি (d) বেন

উত্তরঃ (c) আই.এম. কোপি

26. কারণ একটি —

(a) অনুবর্তী ঘটনা (b) অবান্তর ঘটনা (c) সামান্য ঘটনা (d) পূর্ববর্তী ঘটনা

উত্তরঃ (d) পূর্ববর্তী ঘটনা

27. বিষপান মৃত্যুর —

(a) আবশ্যিক পর্যাপ্ত শর্ত (b) আবশ্যিক শর্ত (c) পর্যাপ্ত শর্ত (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) পর্যাপ্ত শর্ত
অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১]

1. কারণের পরিমাণগত লক্ষণ কী?

উত্তরঃ পরিমাণের দিক থেকে কারণ হলো কার্যের সমান।

2. পর্যাপ্ত কারণ হিসেবে কারণের একটি দৃষ্টান্ত দাও।

উত্তরঃ হৃৎপিণ্ডে গুলিবিদ্ধ হওয়া হলো মৃত্যুর পর্যাপ্ত কারণ।

3. এককারণবাদ কী?

উত্তরঃ যে মতানুসারে, একটি কার্যের কেবল একটি কারণ থাকে, তাকে এককারণবাদ বলে।

4. ‘মেঘ না করলে বৃষ্টি হবে না’-মেঘ বৃষ্টির কীরূপ শর্ত?

উত্তরঃ মেঘ হলো বৃষ্টি হওয়ার আবশ্যিক শর্ত।

5. কারণের লক্ষণ ক’টি ও কী কী?

উত্তরঃ কারণের লক্ষণ দু’টি – (i) গুণগত লক্ষণ (ii) পরিমাণগত লক্ষণ।

6. কারণ ও শর্তের মধ্যে পার্থক্য কী?

উত্তরঃ কারণ হলো শর্তের সমষ্টি। আর শর্ত হলো কারণের এমন এক অপরিহার্য অংশ যা কার্য সৃষ্টির পক্ষে একান্ত প্রয়োজনীয়।

7. একটি ঘটনার কয়টি আবশ্যিক শর্ত থাকতে পারে?

উত্তরঃ একাধিক।

8. একটি ঘটনার কয়টি পর্যাপ্ত শর্ত থাকতে পারে ?

উত্তরঃ একাধিক।

9. এককারণবাদ বলতে কী বোঝো?

উত্তরঃ যে মতবাদ অনুসারে একটি কার্যের কেবলমাত্র একটিই কারণ থাকতে পারে, তাকে এককারণবাদ বলে।

10. কারণের আবশ্যিক পর্যাপ্ত শর্তের একটি দৃষ্টান্ত দাও।

উত্তরঃ ভিজে কাঠে আগুন জ্বালানো হলো ধূমের আবশ্যিক পর্যাপ্ত শর্ত।

11. কারণের পরিমাণগত লক্ষণ কী?

উত্তরঃ জড়ের সংরক্ষণ নীতি ও শক্তির নিত্যতা নীতি।

12. কার্য কাকে বলে?

উত্তরঃ কারণ যা ঘটায় তা-ই হলো কার্য।

13. শর্ত কয় প্রকার ও কী কী ?

উত্তরঃ শর্ত দু’প্রকার – সদর্থক ও নঞর্থক শর্ত।

14. শর্ত কাকে বলে?

উত্তরঃ শর্ত হলো কারণের এমন এক অপরিহার্য অংশ যা উপস্থিত বা অনুপস্থিত থেকে কার্যকে ঘটতে সাহায্য করে।

15. মিল কারণের কী সংজ্ঞা দেন?

উত্তরঃ কারণ হলো কার্যের শর্তান্তরহীন অপরিবর্তনীয় পূর্ববর্তী ঘটনা।

16. “বিষপান হলো মৃত্যুর কারণ” –এক্ষেত্রে কারণ’কথাটি কোন অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?

উত্তরঃ পর্যাপ্ত শর্ত অর্থে।

মিলের পরীক্ষণমূলক পদ্ধতি | আরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

MCQ প্রশ্নোত্তর [মান ১]

সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো

1. অবৈধ সামান্যীকরণ দোষ হয় যে পদ্ধতির ভুল প্রয়োগে

(a) অন্বয়ী (b) ব্যতিরেকী (c) মিশ্র (d) পরিশেষ

উত্তরঃ (a) অন্বয়ী

2. পদ্ধতিতে আমরা কার্য থেকে কারণে যেতে পারি না

(a) মিশ্র (b) অন্বয়ী (c) ব্যতিরেকী (d) পরিশেষ

উত্তরঃ (c) ব্যতিরেকী

3. পদ্ধতি একটি যৌগিক পদ্ধতি।

(a) অন্বয়ী (b) ব্যতিরেকী (c) অন্বয়ী-ব্যতিরেকী (d) সহপরিবর্তন

উত্তরঃ (c) অন্বয়ী-ব্যতিরেকী

4. অন্বয়ী পদ্ধতির সিদ্ধান্ত হলো—

(a) সুনিশ্চিত (b) সম্ভাব্য (c) অনিশ্চিত (d) বিশ্লেষণাত্মক

উত্তরঃ (b) সম্ভাব্য

5. মিলের যে পদ্ধতি কার্যকারণকে সহ-অবস্থান থেকে পৃথক করতে পারে না সেটি হলো –

(a) ব্যতিরেকী পদ্ধতি (b) সহপরিবর্তন পদ্ধতি (c) অন্বয়ী পদ্ধতি (d) মিশ্র পদ্ধতি

উত্তরঃ (c) অন্বয়ী পদ্ধতি

6. মিলের পাঁচটি পদ্ধতিকে কীরূপ পদ্ধতি বলা হয়?

(a) গঠনমূলক (b) সমালোচনামূলক (c) পরীক্ষণমূলক (d) পর্যবেক্ষণমূলক

উত্তরঃ (c) পরীক্ষণমূলক

7. অপসারণ সূত্রগুলির ভিত্তি কী?

(a) কার্যের নিয়ম (b) কার্যকারণ নিয়ম (c) কারণের নিয়ম (d) পরীক্ষণের নিয়ম

উত্তরঃ (b) কার্যকারণ নিয়ম

8. অপসারণের দ্বিতীয় সূত্রের ভিত্তি হলো –

(a) পর্যবেক্ষণ (b) কারণের গুণগত লক্ষণ (c) কারণের পরিমাণগত লক্ষণ (d) পরীক্ষা

উত্তরঃ (b) কারণের গুণগত লক্ষণ

9. মিলের পরীক্ষামূলক পদ্ধতির ক’টি দিক আছে?

(a) ৩টি (b) ২টি (c) ৪টি (d) ৫টি

উত্তরঃ (b) ২টি

10. মিলের অপসারণের সূত্র হলো –

(a) ৪টি (b) ২টি (c) ৩টি (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) ৩টি

11. মিলের পাঁচটি পদ্ধতির মধ্যে মৌলিক পদ্ধতি কয়টি?

(a) ১টি (b) ৫টি (c) ২টি (d) ৩টি

উত্তরঃ (c) ২টি

12. অন্বয়ী পদ্ধতির একটি পরিবর্তিত রূপ হলো –

(a) পরিশেষ পদ্ধতি (b) অন্বয়ী-ব্যতিরেকী পদ্ধতি (c) সহপরিবর্তন পদ্ধতি (d) ব্যতিরেকী পদ্ধতি

উত্তরঃ (b) অন্বয়ী-ব্যতিরেকী পদ্ধতি

13. অন্বয়ী পদ্ধতি মূল –

(a) প্রমাণের পদ্ধতি (b) উভয়ই (c) আবিষ্কারের পদ্ধতি (d) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (c) আবিষ্কারের পদ্ধতি

14. মিলের প্রথম অপসারণ সূত্রের ভিত্তি হলো –

(a) পর্যবেক্ষণ (b) কারণের গুণগত লক্ষণ (c) সদর্থক ও নঞর্থক (d) সামান্য ও বিশেষ

উত্তরঃ (b) কারণের গুণগত লক্ষণ

15. সহপরিবর্তন পদ্ধতি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে অপসারণের —

(a) দ্বিতীয় সূত্রের (b) চতুর্থ সূত্রের (c) প্রথম সূত্রের (d) তৃতীয় সূত্রের ভিত্তিতে

উত্তরঃ (d) তৃতীয় সূত্রের ভিত্তিতে

16. অপসারণের তৃতীয় সূত্রের ভিত্তি হলো –

(a) বচন (b) পদ (c) কারণের পরিমাণগত লক্ষণ (d) কারণের গুণগত লক্ষণ

উত্তরঃ (c) কারণের পরিমাণগত লক্ষণ

17. অন্বয়ী পদ্ধতির সিদ্ধান্তটি হলো –

(a) অনিশ্চিত (b) বিশ্লেষণাত্মক (c) সুনিশ্চিত (d) সম্ভাব্য

উত্তরঃ (d) সম্ভাব্য

18. মিলের সহপরিবর্তন পদ্ধতির ভিত্তি হলো –

(a) কারণের গুণগত লক্ষণ (b) কারণের পরিমাণগত লক্ষণ (c) পর্যবেক্ষণ (d) পরীক্ষণ

উত্তরঃ (b) কারণের পরিমাণগত লক্ষণ

19. মিলের পদ্ধতিগুলিকে আর কী নামে চেনা হয়?

(a) উপমামূলক পদ্ধতি (b) সাধারণ অনুমান পদ্ধতি (c) আরোহমূলক পদ্ধতি (d) অবরোহমূলক পদ্ধতি

উত্তরঃ (c) আরোহমূলক পদ্ধতি

20. দ্বৈত-অন্বয়ী পদ্ধতি হলো –

(a) সহপরিবর্তন পদ্ধতি (b) ব্যতিরেকী পদ্ধতি (c) অন্বয়ী পদ্ধতি (d) অন্বয়ী-ব্যতিরেকী পদ্ধতি

উত্তরঃ (d) অন্বয়ী-ব্যতিরেকী পদ্ধতি
রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর [মান ৮]

1. মিলের অন্বয়ী-ব্যতিরেকী বা মিশ্র পদ্ধতি ব্যাখ্যা করো (সংজ্ঞা, আকার, দৃষ্টান্ত, সুবিধে, অসুবিধে)।

2. মিলের অন্বয়ী পদ্ধতি ব্যাখ্যা করো। [সংজ্ঞা, আকার, দৃষ্টান্ত, সুবিধা (২টি), অসুবিধা (২টি)।

আরোহমূলক দোষ | আরোহমূলক তর্কবিদ্যা | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | HS Philosophy Suggestion

.রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর মান (৮)

1. আবশ্যিক শর্তকে সমগ্র কারন হিসাবে গণ্য করার দোষ।

2. বহুকারণবাদ।

3. নীচের আরোহ যুক্তিটি বিচার করো ও কোনো দোষ থাকলে তা উল্লেখ করো। (i) টেলিগ্রাম অশুভ। কারণ টেলিগ্রাম দুঃসংবাদ নিয়ে আসে।

4. রাত্রির পর দিন আসে। সুতরাং রাত্রি দিনের কারণ।

5. মানুষের মতো কুকুরের চোখ, কান, মাথা আছে। মানুষ চিন্তা করতে পারে। অতএব কুকুরও চিন্তা করতে পারে।

6. ভাগ্য খারাপের জন্য ছেলেটি এবার অকতকার্য হলো।

7. অবান্তর বিষয় বা অপ্রাসঙ্গিক ঘটনাকে কারণ বলে গ্রহণ করার দোষ।

8. অবৈধ সামান্যীকরণ দোষ।

9. ভ্রান্ত পর্যবেক্ষণ দোষ।

10. নীচের আরোহী যুক্তিগুলির দোষ বিচার করো। আজকাল শিক্ষিত মহিলারা গৃহকর্মে বিমুখ। সুতরাং নারীশিক্ষাকে উৎসাহ দেওয়া উচিত নয়।

11. প্রায়ই জলে অবগাহন করো না, কেননা একটুকরো দড়ির মতো শরীরেও পচনের আশঙ্কা আছে।

12. সমস্ত কাক নিশ্চয় কালো। কারণ অন্য কোনো রঙের কাক আমি এ পর্যন্ত দেখিনি।

13. কলেজে অধ্যক্ষ হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার সংবাদ পাবার পরমুহুর্তে তিনি মূৰ্ছিত হয়ে পড়লেন। সুতরাং অধ্যক্ষ নিযুক্তির সংবাদ মাত্রই মারাত্মক।

14. এক ব্যক্তি মই থেকে পা ফসকে মাটিতে পড়ে মারা গেল। সুতরাং মই থেকে পড়ে যাওয়াই মানুষটির মৃত্যুর কারণ।

15. সুরা শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক হতে পারে না। কারণ ক্ষতিকারক হলে চিকিৎসকরা এর ব্যবস্থাপত্র দিতেন না।

16. যুদ্ধের পর মহামারির প্রাদুর্ভাব দেখা গেল। সুতরাং মহামারির কারণ হিসেবে যুদ্ধকে চিহ্নিত করা যেতে পারে।

17. এই ঔষধটি নিশ্চয় বিশেষ ফলপ্রদ। কেননা সমস্ত প্রশংসাপত্রও ঔষধটির আশ্চর্য নিরাময় ক্ষমতার সাক্ষ্য দেয়।

18. শীতের পরেই বসন্ত আসে কাজেই শীত হলো বসন্তের কারণ।

19. উপনিবেশগুলি ফলের মতো। কারণ ফলগুলি পাকলে যেমন গাছ থেকে পড়ে যায়, তেমনই উপনিবেশগুলির উন্নতি হলে মূল দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

20. মাদুলি ধারণ করার পরেই তার রোগ সারল। সুতরাং মাদুলি ধারণই রোগ সারার কারণ।

21. সূর্য নিশ্চয়ই পৃথিবীর চারদিকে ঘুরছে। কারণ আমরা সূর্যকে পূর্বদিকে উঠতে দেখি এবং পশ্চিমদিকে অস্ত যেতে দেখি।

22. তাপমান যন্ত্রের পারদ নীচে নেমে গেলেই জল জমে যায় সুতরাং তাপমান যন্ত্রের পারদ নীচে নামাই জল জমার কারণ।

23. বৃষ্টি হলেই বন্যা হয়।

24. গাছের মতোই কারখানার জন্ম ও বুদ্ধি আছে। সুতরাং কারখানার প্রাণ আছে।

FILE INFO : উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন | WB HS Philosophy Suggestion | WEST BENGAL HIGHER SECONDARY Philosophy SUGGESTION WBCHSE

File Details:
PDF Name : উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন  | HS Philosophy Suggestion 
Language : Bengali
Size : 952 kb
No. of Pages : 67
Download Link : Click Here To Download
বিভিন্ন স্কুল বোর্ড পরীক্ষা, প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার সাজেশন, অতিসংক্ষিপ্ত, সংক্ষিপ্ত ও রোচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর (All Exam Guide Suggestion, MCQ Type, Short, Descriptive Question and answer), প্রতিদিন নতুন নতুন চাকরির খবর (Job News in Bengali) জানতে এবং সমস্ত পরীক্ষার এডমিট কার্ড ডাউনলোড (All Exam Admit Card Download) করতে winexam.in ওয়েবসাইট ফলো করুন, ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here