তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer PDF
তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer PDF

তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer

তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer : বন্ধুরা, আজকে আপনাদের জন্য আলোচনা করা হলো তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer । স্কুল, কলেজ ও সমস্ত সরকারি চাকরীর পরীক্ষাতে বা প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার জন্য (All Comparative Exam: WBPSC, WBCS, WBP SI, WBP Constable, SSC, School Service, Railway exam etc) তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস খুবি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এই তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer পড়লেই নিশ্চিত কমন পাবেন।

  ইতিহাসে ভালো রেজাল্ট করতে হলে অবশ্যই পড়ুন এই তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer in Bengali । আপনারা যারা বিভিন্ন পরীক্ষার জন্য তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer in Bengali খুঁজে চলেছেন, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্ন ও উত্তর ভালো করে পড়তে পারেন। সাথে পিডিফ ফাইলের ডাউনলোড (PDF File Download) লিঙ্ক নীচে দেওয়া হয়েছে।

তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস

গিয়াসউদ্দিন তুঘলক ( ১৩২০-২৫ ) :

  • প্রতিষ্ঠাতা ছিল গিয়াসউদ্দিন তুঘলক । আসল নাম — গাজী মালিক । তার পিতা কুরউনাহ তুরকস এর নাম অনুসারে কুরউনাহ তুরক বংশ নামে পরিচিত ছিল । দিল্লি শাসকদের মধ্যে তুঘলক বংশ সবচেয়ে বেশি সময় , ৯৪ বছর রাজত্ব করেছে । 
  • সেচ ব্যবস্থা শুরু করেন গিয়াসউদ্দিন তুঘলক। 
  • গিয়াসউদ্দিন এর সময় মােঙ্গালরা ২৯ বার ভারত আক্রমণ করে । 
  • তার সময় সুফি সাধক শেখ নিজামুদ্দিন আউলিয়ার আবির্ভাব ঘটে । 
  • ১৩২৫ খ্রিঃ প্রাসাদের এক অংশ ভেঙে তার মৃত্যু হয় । সে সময় মরক্কো পর্যটক ইবন বতুতা তার রাজত্বে উপস্থিত ছিলেন । তার পুত্র জুনা খাঁ সিংহাসনে বসেন । 

মহম্মদ বিন – তুঘলক ( ১৩২৫-১৩৫১ ) :

  • তার প্রকৃত নাম ছিল জুনা খাঁ । 
  • ভারতের ইতিহাসে মহম্মদ বিন – তুঘলক বিশেষভাবে পরিচিত । তার পরিকল্পনা গুলির জন্য তিনি ইতিহাসে পাগলা রাজা নামে খ্যাত।
  • দোয়াব অঞ্চলে কর বৃদ্ধি । গঙ্গা ও যমুনা নদীর মধ্যবর্তী অঞ্চলকে দোয়াব বলা হয় । এই অঞ্চল অনেক বেশি উর্বর বলে এই অঞ্চলে কর বৃদ্ধি করা হয় । কিন্তু তখন ওই অঞলে । খরা বা বন্যার ফলে ফসল উৎপাদন কমে যায় যার ফলে তার পরিকল্পনা ব্যর্থ হয় । 
  • রাজধানী স্থানান্তর করেন । তিনি দিল্লি থেকে রাজধানী স্থানান্তর করেন দেবগিরিতে । তার নাম রাখেন দৌলতাবাদ । কারণ দৌলতাবাদ ছিল তার সাম্রাজ্যের মধ্যস্থানে অবস্থিত । কিন্তু সরকারি অফিস স্থানন্তরের সময় তিনি দিল্লির সমস্ত কর্মচারী সহ সহকারি অধীবাসীদেরও দেবগিরি নিয়ে যান যার ফলে সমস্যার সম্মুখীন হয় এবং দুই বছর পর রাজধানী দিল্লিতে ফিরিয়ে আনতে বাধ্য হন । 
  • তামার নােট প্রচলন । তিনি ভারতের প্রথম সম্রাট জিনি প্রতিকি মুদ্রা প্রচলন করেছিলেন । তিনি তামার নােট চালু করেন । সােনা ও রূপার মুদ্রার বিনিময়ে এই তামার মুদ্রা দেওয়ার ব্যবস্থা করেন । তার ধারণা ছিল সােনা ও রূপার মুদ্রা তার কোশাগারে জমা হবে কিন্তু সাধারণ জনগণ খুব সহজেই এই মুদ্রা তৈরি করে ফেলল । যার ফলে প্রচুর ক্ষতি হয় এবং কোশাগার শূন্য হয়ে যায় । 
  • তার অপর পরিকল্পনা ছিল কারজালা । কারজালা প্রকল্পে তিনি প্রদেশের সাম্রাজ্যের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিলেন কিন্তু তার সাম্রাজ্যে পৌছানাের পূর্বে সব শেষ হয়ে যায় । 
  • তার সাম্রাজ্যের শেষের দিকে দক্ষিণ ভারতে তিনটি রাজ্য বিজয় নগর , বাহমানি সাম্রাজ্য ও মাদুরার সুলতানরা স্বাধীন রাজ্য ঘােষণা করেন । 
  • তিনি কৃষি উন্নয়নের জন্য দেওয়ান – ই – কোহী গঠন করেন । 
  • তিনি কৃষকদের ঋণ দেওয়ার জন্য দাগ নামক কৃষিঋণ ( তাকাবি ) চালু করেন । 
  • তিনি আরবি ও পারসি দুটো ভাষাতেই পারদর্শী ছিলেন । তিনি দর্শন , এ্যাট্রনমি , লজিক ও গণিতে পারদর্শী ছিলেন । তিনি একজন ভালাে কলিগ্রাফার ছিলেন । 
  • তার বিরুদ্ধে প্রথম বিদ্রোহ ঘােষণা করেন তার তুতাে ভাই বাহাউদ্দিন , তিনি দাক্ষিণাত্যের গুলবার্গের শাসক ছিলেন । 
  • বিখ্যাত মরক্কোর পর্যটক ইবন বতুতা ওই সময় ১৩৩৪ খ্রিঃ ভারতে আসেন । তিনি আট বছর ভারতে ছিলেন । তার লেখা বিখ্যাত গ্রন্থ সফর নামা ( বলা হয় Rehla ) আরবি ভাষায় রচিত হয়েছিল । 

ফিরােজ শাহ তুঘলক ( ১৩৫১-১৩৪৪ ) :

  • ফিরােজ শাহ তুঘলক ছিলেন মহম্মদ বিন – তুঘলকের খুল্লতাত ভ্রাতা । তাকে সুলতান সম্রাজ্যের আদর্শ সম্রাট বলা হয় । 
  • তিনি প্রতিদিন ক্ষমা করার চেষ্টা করতেন । তার শাসন ব্যবস্থায় শাস্তি হিসাবে মুণ্ডহেদ বা অঙ্গছেদ প্রথার বিরােধিতা করেছিলেন । তিনি কৃষি উন্নয়নের জন্য চাষিদের বিভিন্নভাবে সাহায্যের ব্যবস্থা করেছিলেন । এই কৃষি পদ্ধতিকে চারটি ভাগে বিভক্ত করেন । 
  • তিনি ইকতে দারি ’ প্রথা চালু করেন । সেনাবাহিনী এই প্রথার সাহায্য পেত । সেনা জমি এবং নগদ অর্থ পেত ।
  • তার প্রচলিত কিছু কর কাঠামাে – ১। খরাজ – চাষের জমির ফসলে / ১০ অংশ কর দিতে হয় । ২। জিজিয়া – এই কর শুধুমাত্র অমুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য । ৩। জাকাত – শুধুমাত্র মুসলিম সম্প্রদায়ের উপর ২.৫ শতাংশ কর । ৪। খাম – লুষ্ঠিত ও খনিজ দ্রব্যের / অংশ । 
  • ফিরােজ শাহের তৈরি চারটি নতুন শহর হিসাব , ফতেহাবাদ , ফিরােজাবাদ ( বর্তমান ফিরােজ শাহ কোটলা ) এবং হাউনপুর । 
  • তিনি চিকিৎসাব্যবস্থার জন্য দিল্লিতে দার – উল – সাফা নামক দাতব্য চিকিৎসালয় স্থাপন করেন ।
  • তিনি তার রাজধানী ফিরােজাবাদে স্থাপন করেন । 
  • তিনি প্রথম শাসক যিনি বেকারদের জন্য এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ চালু করেন । এই সময় রতিবি নামক খাদ্য সামগ্রি তৈরির কারখানা ও গয়ের রতিবি নামে পােশাক ও অন্যান্য সামগ্রি তৈরির কারখানা ছিল ।
  • ফিরােজ শাহ ১৩৬০ খ্রিঃ পুরীর জগন্নাথ ও কাংড়ায় জ্বালামুখী মন্দির ধ্বংস করেন । 
  • তিনি ক্রিতদাসদের উদ্ধার করেন ( প্রায় ১,৮০,০০০ ক্রিতদাস ) । এই ডিপারমেন্টের নাম দেওয়া । হয় দেওয়ান – ই – বন্দেগান । 
  • তার লেখা বিখ্যাত গ্রন্থ হল ‘ ফতুহাত ফিরােজশাহী । 
  • বারানী এই সময়ের বিখ্যাত ঐতিহাসিক । তারা দুটি মূল্যবান গ্রন্থে ফিরােজ শাহের বিবরণ লিপিবদ্ধ করেন । বই দুটি হল তারিখ – ই – ফিরােজশাহী ও ফতুয়াই – ই – জাহানদারী।
  • তিনি দুটি নতুন মূদ্রা প্রচলন করেন একটি হল অবৈ ( ৫০ শতাংশ জিতল ) অপরটি বিখ ( ২৫ শতাংশ জিতল ) । এগুলাে সব রূপার মুদ্রা । 

পরবর্তী তুঘলক সম্রাট : 

  • ফিরােজ শাহের পর তার পৌত্র ছিল সফলতম সম্রাট যিনি গিয়াসুদ্দিন তুঘলক শাহ -২ নাম ধারণ করেছিলেন । তিনি ছিলেন শক্তিশালী ও বাস্তব চিন্তাধারার ব্যক্তি । তিনি তার সাম্রাজ্যকে সুন্দরভাবে পরিচালনা করেছিলেন। 
  • গিয়াসুদ্দিন কে সিংহাসন চ্যুত করে আবু বকর শাহ ১৩৮৯ সিংহাসনে বসেন । 
  • ১৩৯০ খ্রিঃ আবু বকরকে সিংহাসন চ্যুত করে নাসিরউদ্দিন মুহম্মদ শাহ -৩ সিংহাসনে বসেন । ১৩৯৪ খ্রিঃ রােগগ্রস্ত হয়ে তার মৃত্যু হয় । তিনি ছিলেন তুঘলক বংশের শেষ সম্রাট । 
  • নাসিরউদ্দিন মহম্মদের শূন্যতার সময় তৈমুরলঙ্গ ভারত আক্রমণ করেন । 

তৈমুরলঙ্গের ভারত অভিযান :

 তিনি ছিলেন মধ্য এশিয়ার বিখ্যাত মঙ্গল বীর । তিনি মাত্র ৩৩ বছর বয়সে চাঘতাই তুর্কি সম্প্রদায়ের নেতৃত্ব দেন । ভারতবর্ষ আক্রমণের পূর্বে তিনি মেসােপটেমিয়া ও আফগানিস্তান । জয় করেন । তিনি ১৩৯৮ খ্রিঃ ডিসেম্বরে দিল্লি আক্রমণ করেন । সে সময় দিল্লির শাসক ছিলেন নাসিরউদ্দিন মহম্মদ ।

 তৈমুরল ভারত আক্রমণ করে লুটপাট রাহাজানি করে প্রচুর ধনসম্পদ নিয়ে যান । 

তিনি ভারত আক্রমণ করার পর বলেছিলেন— “ More misery than had before been inflieted by any conqueror in a single invasion . ” তৈমুরের দিল্লি আক্রমণের ফলে তুঘলক রাজবংশ সমস্যার সম্মুখীন হয় এবং তুঘলক শাসনের অবসান ঘটে । 

FILE INFO : তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | History Question and Answer with PDF Download for FREE

PDF Name : তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস | History Question and Answer PDF

Formet : PDF File

Price : Free

Download Link : Click Here To Download

Get the History Suggestion Question and Answer by winexam.in

 West Bengal and All India Job preparation  Suggestion Question and answer prepared by expert subject teachers. History Suggestion with 100% Common in the Examination.

History Suggestion Question and Answer

History Suggestion Question and Answer Download. History short question suggestion. All Comparative exam History Suggestion  download. History All exam Question Paper  download.

তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – History Question and Answer in Bengali

তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস – প্রশ্ন উত্তর | তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর (History Question and Answer in Bengali) । তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস – প্রশ্ন উত্তর | তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর (History Question and Answer in Bengali)।

তুঘলক বংশ ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – History Question and Answer in Bengali

তুঘলক বংশ ইতিহাস – প্রশ্ন উত্তর | তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর (History Question and Answer in Bengali) । তুঘলক বংশ ইতিহাস – প্রশ্ন উত্তর | তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর (History Question and Answer in Bengali)। তুঘলক বংশ ইতিহাস – প্রশ্ন উত্তর

মধ্যযুগের ভারত ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – History Question and Answer in Bengali

মধ্যযুগের ভারত ইতিহাস – প্রশ্ন উত্তর | তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর (History Question and Answer in Bengali) । মধ্যযুগের ভারত ইতিহাস – প্রশ্ন উত্তর | তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর (History Question and Answer in Bengali)। মধ্যযুগের ভারত ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর।

তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস সাজেশন – History Suggestion

তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস সাজেশন পশ্চিমবঙ্গ তথা ভারতবর্ষের সমস্ত চাকরির পরীক্ষার সিলেবাস বা পাঠ্যসূচি অনুযায়ী  তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস বিষয়টির সমস্ত প্রশ্নোত্তর। সামনেই পরীক্ষা, তার আগে winexam.in শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে নিয়ে এল তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস – প্রশ্ন উত্তর । ইতিহাসে ভালো রেজাল্ট করতে হলে অবশ্যই পড়ুন । আমাদের তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্ৰশ্ন ও উত্তর

তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস – প্রশ্ন ও উত্তর | History Suggestion Question and Answer with FREE PDF Download

WBCS History, School Service History, SSC History, History GK, History Quiz, History QNA, History FAQ, বিভিন্ন পরীক্ষা প্রস্তুতি, রেল, গ্রুপ ডি, এস এস সি, পি, এস, সি, সি এস সি, ডব্লু বি সি এস, নেট, সেট, চাকরির পরীক্ষা প্রস্তুতি, তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস ,  তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস প্রসব ও উত্তর, তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস | History Suggestion PDF, 

  এই “তুঘলক বংশ (মধ্যযুগের ভারত) ইতিহাস | History PDF” পোস্টটি থেকে যদি আপনার লাভ হয় তাহলে আমাদের পরিশ্রম সফল হবে। আরোও বিভিন্ন স্কুল বোর্ড পরীক্ষা, প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার সাজেশন, অতিসংক্ষিপ্ত, সংক্ষিপ্ত ও রোচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর (All Exam Guide Suggestion, MCQ Type, Short, Descriptive Question and answer), প্রতিদিন নতুন নতুন চাকরির খবর (Job News in Physical Science) জানতে এবং সমস্ত পরীক্ষার এডমিট কার্ড ডাউনলোড (All Exam Admit Card Download) করতে winexam.in ওয়েবসাইট ফলো করুন, ধন্যবাদ।

Win exam telegram channel

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here