জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) - দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF
জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) - দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF

জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন

HS Class 12 Geography Suggestion PDF

জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF : জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন ও অধ্যায় ভিত্তিতে প্রশ্নোত্তর নিচে দেওয়া হল।  এবার পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষায় বা দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল পরীক্ষায় ( WB HS Class 12 Geography Suggestion PDF  | West Bengal HS Class 12 Geography Suggestion PDF  | WBCHSE Board Class 12th Geography Question and Answer with PDF file Download) এই প্রশ্নউত্তর ও সাজেশন খুব ইম্পর্টেন্ট । আপনারা যারা আগামী দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল পরীক্ষার জন্য বা উচ্চ মাধ্যমিক ভূগোল  | HS Class 12 Geography Suggestion PDF  | WBCHSE Board HS Class 12th Geography Suggestion  Question and Answer খুঁজে চলেছেন, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্ন ও উত্তর ভালো করে পড়তে পারেন। 

জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন/নোট (West Bengal Class 12 Geography Question and Answer / HS Geography Suggestion PDF)

পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন (West Bengal HS Class 12 Geography Suggestion PDF / Notes) জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – প্রশ্ন উত্তর – MCQ প্রশ্নোত্তর, অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর (SAQ), সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর (Short Question and Answer), ব্যাখ্যাধর্মী বা রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর (descriptive question and answer) এবং PDF ফাইল ডাউনলোড লিঙ্ক নিচে দেওয়া রয়েছে

জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়)

অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর | জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion : 

১. জীববৈচিত্র্য বিনাশের দু’টি কারণ লেখো । 

উত্তরঃ বৃক্ষচ্ছেদন , চোরাশিকার , অত্যধিক পশুচারণ , কৃষি ও বাসভূমির সম্প্রসারণ , অতিরিক্ত অর্থনৈতিক ব্যবহার ইত্যাদি । 

২. আলফা বৈচিত্র্য কাকে বলে ? 

উত্তরঃ একই বাসস্থান বা অঞ্চলে অবস্থিত জীবগোষ্ঠীর অভ্যন্তরীণ বৈচিত্র্যকে আলফা বৈচিত্র্য বলে । 

৩. গ্রিন ডেটা বুক কী ? 

উত্তরঃ গ্রিন ডেটা বুক হলো একটি তালিকা যেখানে অবলুপ্তির বিপদ থেকে মুক্ত জীব প্রজাতির উল্লেখ থাকে । 

৪. বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের দু’টি পদ্ধতির উল্লেখ করো। 

উত্তরঃ বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের দু’টি পদ্ধতি হলো জিন বৈচিত্র্য সংরক্ষণ , প্রাণী উদ্যান গঠন । 

৫. বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভে ‘ বাফার এলাকা ‘ কাকে বলে ?

উত্তরঃ বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভে যেখানে শিক্ষা ও গবেষণামূলক কাজকর্ম চলে কিন্তু মানুষের অর্থনৈতিক কাজকর্ম নিষিদ্ধ তাকে ‘ বাফার এলাকা ‘ বলে । 

৬. ভারতের বন্য গাধা সংরক্ষণাগার কোন রাজ্যে অবস্থিত ? 

উত্তরঃ ভারতের বন্য গাধা সংরক্ষণ গুজরাট রাজ্যের কচ্ছের ছোটো রান অঞ্চলে অবস্থিত । 

৭. জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কাকে বলে ?

উত্তরঃ কোনো নির্দিষ্ট অঞ্চলের উদ্ভিদ ও প্রাণীর সংরক্ষণকে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ বলে । 

৮. ভারতের বৃহত্তম জীববৈচিত্র্য হটস্পট কোনটি ? 

উত্তরঃ ভারতের বৃহত্তম জীববৈচিত্র্য হটস্পট হলো হিমালয় পার্বত্যাঞ্চল । 

৯. বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভ কাকে বলে ? 

উত্তরঃ UNESCO- এর Man and Biosphere Reserve কর্মসূচির অন্তর্গত যে স্থলজ ও জলজ অঞ্চলে গোটা বাস্তুতন্ত্র ও তার সম্পূর্ণ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষিত হয় । তাকে বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভ বলে । 

MCQ প্রশ্নোত্তর | জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion : 

১. জীববৈচিত্র্যের উয় কেন্দ্রের ( Hotspot ) একটি উদাহরণ হলো— (ক) গির অরণ্য (খ) শিবপুর বোটানিক্যাল গার্ডেন (গ) করবেট জাতীয় উদ্যান (ঘ) লোকটাক হ্রদ 

উত্তরঃ (ঘ) লোকটাক হ্রদ

২. ভরতপুর পাখি সংরক্ষণাগারটি কোথায় অবস্থিত ? (ক) কর্নাটকে (খ) উত্তরপ্রদেশে (গ) তামিলনাড়ুে – তে (ঘ) রাজস্থানে 

উত্তরঃ (ঘ) রাজস্থানে

৩. জীববৈচিত্র্য শব্দটি সর্বাধিক গুরুত্ব পায়— (ক) রিয়ো – ডি – জেনেইরো (খ) জোহানেসবার্গ (গ) মন্ট্রিল (ঘ) জাকার্তা — সম্মেলন 

উত্তরঃ (ক) রিয়ো – ডি – জেনেইরো

৪. জীববৈচিত্র্যের জনক হলেন— (ক) লাভজয় (খ) রসেন (গ) উইলসন (ঘ) পার্কার 

উত্তরঃ (গ) উইলসন

৫. ভারতের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ অরণ্য রয়েছে – (ক) উড়িষ্যায় (খ) পশ্চিমবঙ্গে (গ) গুজরাটে (ঘ) অন্ধ্রপ্রদেশে 

উত্তরঃ (খ) পশ্চিমবঙ্গে

৬. একটি ভৌগোলিক অঞ্চলের ভিন্ন বাসস্থানের জীবগোষ্ঠীর মধ্যে যে বৈচিত্র্য থাকে তাকে বলে— (ক) আলফা বৈচিত্র্য (খ) বিটা বৈচিত্র্য (গ) গামা বৈচিত্র্য (ঘ) ফাই বৈচিত্র্য 

উত্তরঃ (গ) গামা বৈচিত্র্য

৭. নীলগিরি Biosphere Reserve কোন রাজ্যে অবস্থিত ? (ক) অসম (খ) তামিলনাড়ু (গ) উত্তরাখণ্ড (ঘ) মেঘালয় 

উত্তরঃ (খ) তামিলনাড়ু

৮. পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি জীববৈচিত্র্যের দেশ হলো- (ক) ব্রাজিল (খ) ভারত (গ) অস্ট্রেলিয়া (ঘ) আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র 

উত্তরঃ (ক) ব্রাজিল

৯. ভারতে বন্যপ্রাণী সুরক্ষা আইন কত সালে পাশ হয় ? (ক) 1972 (খ) 1970 (গ) 1980 (ঘ) 1986 

উত্তরঃ (ক) 1972

১০. বর্তমানে পৃথিবীতে বনভূমির শতকরা অনুপাত (ক) 30 % (খ) 40 % (গ) 50 % (ঘ) 60 % 

উত্তরঃ (ক) 30 % 

রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর | জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion : 

১. জীববৈচিত্র্য কী ? লাল তালিকা কী ? জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের পদ্ধতিগুলি আলোচনা করো । 

উত্তরঃ জীববৈচিত্র্য : জীববৈচিত্র্য বা ( Biodiversity ) বলতে বোঝায় বিভিন্ন প্রাকৃতিক বাসস্থানে বসবাসকারী জিনগত , প্রজাতিগত এবং বাস্তুতান্ত্রিক বিভিন্নতায় সমৃদ্ধ উদ্ভিদ ও প্রাণীর সমাহারকে । জীববৈচিত্র্যকে বিভিন্ন ভাগে ভাগ করা যায় ।

  যথা – জিনগত বৈচিত্র্য , প্রজাতিগত বৈচিত্র্য এবং বাস্তুতান্ত্রিক বৈচিত্র্য ইত্যাদি । 

লাল তালিকা : International Union for Conservation of Nature and Natural Resources বা IUCNNR পৃথিবীতে বিপন্নতার মাত্রা অনুসারে বিপন্ন প্রাণীদের যে তালিকা প্রকাশ করে , সেই তালিকাকে বলা হয় লাল তালিকা । 

জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের পদ্ধতি : জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের পদ্ধতিগুলি নিম্নরূপ— 

( 1 ) জাতীয় ভূমি ব্যবহার নীতি : নির্ধারণ এবং তার প্রয়োগ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণকে সুনিশ্চিত করে । কেবল উন্নয়নশীল দেশেই নয় , উন্নত দেশেও ভূমিব্যবহার সংক্রান্ত কোনো নীতি নেই বললেই চলে । বর্তমানে প্রতিটি দেশেরই জাতীয় ভূমি ব্যবহার নীতি গ্রহণ করা একান্ত প্রয়োজন । 

( 2 ) সংরক্ষণ পরিকল্পনা : সংরক্ষণমূলক পরিকল্পনাগুলি যথা— উদ্যান , বন্যপ্রাণী সংরক্ষিত অঞ্চল , অরণ্য , নির্জন অঞ্চল , ভূদৃশ্য সংরক্ষণ অঞ্চল ইত্যাদি গড়ে তোলার মাধ্যমে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করা সম্ভব । 

( 3 ) সবাঙ্গীণ ভূদৃশ্য ব্যবস্থাপনা : জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের উদ্দেশ্যগুলি সামনে রেখে জমির মালিক , কৃষি শ্রমিক , বাণিজ্যিক সংস্থা , সরকারি সংস্থা ও স্থানীয় মানুষদের পারস্পারিক সহযোগিতায় জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করা সম্ভব । 

( 4 ) বাস্তুক্ষেত্রীয় অলিন্দসমূহের ব্যবস্থাপনা : বাস্তুক্ষেত্রগুলির অন্তর্বর্তী সংযোজক পথসমুহের মাধ্যমে বাস্তুতন্ত্রের বিচ্ছিন্নকরণ জনিত সমস্যা যেমন প্রতিরোধ করা সম্ভব তেমনি বৃহৎ বাত্তুক্ষেত্রগুলির মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করা যায় । 

( 5 ) প্রজাতি সংরক্ষণ : বিপন্ন প্রজাতি ও বিপন্নময় প্রজাতিগুলির সংরক্ষণ মূলত দুইভাবে করা যায় । যথা— 

ইন সিটু সংরক্ষণ : বিভিন্ন প্রজাতির উদ্ভিদ বা প্রাণীকে বাঁচিয়ে রেখে স্বাভাবিক আবাসে ফিরিয়ে যে রক্ষণ করা হয় , তাকে ইন – সিটু সংরক্ষণ বলে । 

এক্স – সিটু সংরক্ষণ : বিভিন্ন প্রজাতির উদ্ভিদ বা প্রাণীদের স্বাভাবিক আবাস থেকে দূরবর্তী কোনো ভিন্ন আবাসে প্রজাতির রক্ষণকে সাধারণত বলা হয় এক্স – সিটু সংরক্ষণ । 

২. জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তা কী ? জীববৈচিত্র্যের পাঁচটি গুরুত্ব লেখো । 

উত্তরঃ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তা নানাবিধ । যথা— 

( 1 ) পরিবেশগত ভারসাম্য রক্ষা : বাস্তুতন্ত্র রক্ষা করতে বা অক্ষুণ্ণ রাখতে জীববৈচিত্র্য রক্ষা করা আবশ্যিক । জীববৈচিত্র্য হ্রাস পেলে অক্সিজেন ও কার্বন ডাই – অক্সাইড – এর ভারসাম্য বিঘ্নিত হবে । 

( 2 ) জীবমণ্ডলের অস্তিত্ব রক্ষা : বাস্তুতন্ত্রের যেকোনো একটি উদ্ভিদ বা প্রাণী প্রজাতির বিলুপ্ত হওয়ার অর্থ উদ্ভিদ বা প্রাণী প্রজাতির সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত খাদ্যশৃঙ্খলে বিঘ্ন ঘটা । তাই বাস্তুতন্ত্রের সার্বিক ভারসাম্য রক্ষায় জীববৈচিত্র্যের গুরুত্ব অনবদ্য । 

( 3 ) অর্থনৈতিক মূল্য : মানুষ তার খাদ্য , বস্ত্র , বাসস্থান , ওষুধপত্র প্রভৃতির জন্য সরাসরি প্রকৃতির উপর নির্ভরশীল । মানুষ বৈচিত্র্যময় উদ্ভিদ প্রজাতি থেকে যে কেবল খাদ্যসামগ্রী পায় তা – ই নয় ওষুধ , কাঠ , কাগজ , তত্ত্ব , রবার , ফুলফল ইত্যাদিও পায় । তেমনি প্রাণী প্রজাতি তেকে মাংস , দুগ্ধসামগ্রী , চামড়া , মধু , পালক ইত্যাদি সংগ্রহ করে । এককথায় খাদ্য ও স্বাস্থ্যরক্ষার জন্য মানুষ জীববৈচিত্র্যের ওপর প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে নির্ভরশীল । 

( 4 ) নান্দনিক ও শিক্ষাগত মূল্য : যেকোনো দেশের জীববৈচিত্র্য সেই দেশের সম্পদ । বিভিন্ন প্রজাতির জীব প্রকৃতিকে বৈচিত্র্যময় ও সুন্দর করে তোলে । এই সম্পদের নমুনা চিড়িয়াখানা , মিউজিয়াম , বোটানিক্যাল গার্ডেনে সংরক্ষণের মাধ্যমে তাদের সাথে সাধারণ মানুষের পরিচয় ঘটানো হয় । ফলে নান্দনিক সৌন্দর্য ও শিক্ষাগত মূল্য বৃদ্ধি পায় । 

জীববৈচিত্র্যের পাঁচটি গুরুত্ব : 

( 1 ) পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা : জীববৈচিত্র্য প্রজাতি বিলুপ্তি ঠেকাতে সহায়তা করে । প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষায় সাহায্য করে । 

( 2 ) জলবায়ু নিয়ন্ত্রণ : অরণ্যাঞ্চলের উদ্ভিদ বাষ্পমোচন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মেঘ ও বৃষ্টিপাত সৃষ্টি করে । 

( 3 ) জীবমণ্ডল সংরক্ষণ : সৌরশক্তি উদ্ভিদদেহে আবদ্ধ হয় । খাদ্যশৃঙ্খলের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রাণীর মধ্যে ওই শক্তিপ্রবাহ ঘটে জীবজগতের অস্তিত্ব রক্ষিত হয় । 

( 4 ) অর্থনৈতিক মূল্য : মানুষের নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য , বস্ত্র , বাসস্থান , ওষুধপত্র প্রভৃতি প্রকৃতির ওপর নির্ভরশীল । জীববৈচিত্র্যের মাধ্যমেই মানুষ তার চাহিদা মেটাতে 

( 5 ) নান্দনিক গুরুত্ব : প্রকৃতিতে গাছপালা , পশুপাখিদের অপরূপ সৌন্দর্যের কারণে বিভিন্ন পার্ক , ইকো ট্যুরিজম , বায়োস্ফিয়ার পার্ক গড়ে উঠেছে । 

৩. জীববৈচিত্র্য বিনাশের প্রভাব কী ? 

ক্রান্তীয় অঞ্চলে জীববৈচিত্র্য বেশি কেন ? 

উত্তরঃ জীববৈচিত্র্য বিনাশের প্রভাব : জীববৈচিত্র্যের বিনাশের ফলে নিম্নলিখিত প্রভাবগুলি লক্ষ করা যায় । যথা— 1) জন্মগত বৈচিত্র্যের অবক্ষয় : জীববৈচিত্র্যের বিনাশের ফলে কৃষিব্যবস্থা অজস্র বিপদের সম্মুখীন । বর্তমানে কৃষকরা বেশি ফসল উৎপাদনের লক্ষ্যে সংকর প্রজাতিগুলির উপর অনেকাংশে নির্ভরশীল । ফলে দেশীয় প্রজাতিসমূহ আজ বিলুপ্তির পথে । 2) সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্যের অবক্ষয় : জন্মগত ও বাস্তুতান্ত্রিক বৈচিত্র্য হ্রাসের সঙ্গে সঙ্গে সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্যও ক্ষতিগ্রস্ত হয় । নতুন নতুন প্রজাতি ও ব্যবস্থার ফলে সামাজিক জীবনে নানা ধরনের পরিবর্তন হয়েছে । এদের অবলুপ্তি মানুষের সাংস্কৃতিক জীবনকে প্রভাবিত করে । 3) জীববৈচিত্র্য ও বৌদ্ধিক সম্পদের অধিকার আণুবীক্ষণিক জীব , উদ্ভিদ , প্রাণী ইত্যাদিতে জন্মগত বৈচিত্র্য আরোপ করে পরিবর্তিত জীব প্রজাতিটিকে বৌদ্ধিক সম্পদের অধিকার আইন অনুসারে ব্যক্তিগত সম্পদে পরিণত করা যায় । 

ক্রান্তীয় অঞ্চলে জীববৈচিত্র্য সর্বাধিক লক্ষ করা যায় । এর কারণগুলি হলো – 

( 1 ) উয় ও আর্দ্র জলবায়ু : ক্রান্তীয় অঞ্চলে অধিক পরিমাণে উয় ও আর্দ্র জলবায়ু বিরাজ করা জীববৈচিত্র্যের আধিক্যের অন্যতম প্রধান কারণ । 

( 2 ) বিভিন্ন প্রজাতির একত্র সমাবেশ : ক্রান্তীয় অঞ্চলে বিভিন্ন পরজীবী ও রোগজীবাণুর প্রাধান্য থাকায় বহু প্রজাতির বসবাস লক্ষ করা যায় । 

( 3 ) অধিক সূর্যালোক : ক্রান্তীয় অঞ্চলে অধিক পরিমাণে সূর্যালোকের প্রভাবে উদ্ভিদগোষ্ঠীর উৎপাদনশীলতা ও প্রজাতি বৈচিত্র্য লক্ষ করা যায় ।

( 4 ) প্রাচীন জীবগোষ্ঠী : এই অঞ্চলে জীবগোষ্ঠীগুলি অধিক প্রাচীন হওয়ায় জীবপ্রজাতিগুলি স্থানীয়ভাবে অভিযোজিত ও বিশেষায়িত হয়েছে । 

৪. জীববৈচিত্র্য বিনাশের কারণ কী ? জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের তিনটি উপায় বর্ণনা করো এবং তার প্রয়োজনীয় উদাহরণ দাও । 

উত্তরঃ জীববৈচিত্র্য বিনাশের কারণ : জীববৈচিত্র্য বিনাশের কারণকে মূলত দু’টি ভাগে ভাগ করে আলোচনা করা যায় । যথা— 

( ক ) প্রাকৃতিক কারণ : 

  • (1) জলবায়ু পরিবর্তনের জেরে বিভিন্ন উদ্ভিদ ও প্রাণীগোষ্ঠী অভিযোজনে সক্ষম না হওয়ায় পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয়ে গেছে । 
  • (2) অগ্ন্যুৎপাতের সময় যথেচ্ছ লাভাপ্রবাহের ফলে বহু উদ্ভিদ ও প্রাণী উত্তপ্ত লাভায় ঢাকা পড়ে যায় । এর ফলে অসংখ্য প্রজাতি বিলুপ্ত হয়েছে । 
  • (3) বিস্তীর্ণ অঞ্চল জুড়ে বন্যা , খরা , মহামারির জেরেও বহু প্রজাতি বিনষ্ট হয়েছে । 
  • (4) মহাদেশীয় ভূখণ্ডের সঞ্চারণ ঘটায় বাসস্থানের বিচ্ছিন্নকরণ ঘটেছে । এর ফলেও প্রজাতি বিনাশের সম্ভাবনা বাড়ে । 

( খ ) মনুষ্যসৃষ্ট কারণ : 

  • (1) ব্যাপক সংখ্যায় বৃক্ষচ্ছেদনই জীববৈচিত্র্য হ্রাসের অন্যতম মনুষ্যসৃষ্ট কারণ । 
  • (2) চোরাশিকারের ফলে প্রতিবছর বহু প্রজাতির প্রাণীর মৃত্যু ঘটে । 
  • (3) দিন দিন পরিবেশ দূষণজনিত কারণেও বায়ুমণ্ডলে গ্রিনহাউস গ্যাস বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং ভূমণ্ডলের উয়তাও বৃদ্ধি পাচ্ছে । এই অতিরিক্ত উয়তায় জীবকুল বিনষ্ট হচ্ছে । 
  • (4) জনবিস্ফোরণের চাপে কৃষি ও বাসভূমির সম্প্রসারণের কারণে জীববৈচিত্র্য নষ্ট 

জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের কৌশল : জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের জন্য যে পদক্ষেপ বা পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়েছে , সেগুলি হলো 

  • (1) বন্যপ্রাণী সম্পর্কে উন্নত গবেষণা গড়ে তুলতে হবে । চালাতে হবে এবং এর পাশাপাশি জনসচেতনতা 
  • (2) বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে । কেউ আইন লঙ্ঘন করলে চরম শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে । 
  • (3) অভয়ারণ্যের আশেপাশে কলকারখানা ও বাসস্থান গড়ে তোলা যাবে না । 
  • (4) অরণ্যের বিভিন্ন প্রাণী ও জীবজন্তুর খাদ্যের জোগান অব্যাহত রাখতে হবে । 
  • (5) বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের জন্য কৃত্রিম বাসভূমি গড়ে তুলতে হবে । 

জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের দু’টি প্রয়োজনীয় উদাহরণ : 

জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের পদ্ধতি : জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের পদ্ধতিগুলি নিম্নরূপ— 

( 1 ) জাতীয় ভূমি ব্যবহার নীতি : এই নীতি নির্ধারণ এবং তার প্রয়োগ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণকে সুনিশ্চিত করে । কেবল উন্নয়নশীল দেশেই নয় , উন্নত দেশেও ভূমিব্যবহার সংক্রান্ত কোনো নীতি নেই বললেই চলে । বর্তমানে প্রতিটি দেশেরই জাতীয় ভূমি ব্যবহার নীতি গ্রহণ করা একান্ত প্রয়োজন । 

( 2 ) সংরক্ষণ পরিকল্পনা : সংরক্ষণমূলক পরিকল্পনাগুলি যথা— উদ্যান , বন্যপ্রাণী সংরক্ষিত অঞ্চল , অরণ্য , নির্জন অঞ্চল , ভূদৃশ্য সংরক্ষণ অঞ্চল ইত্যাদি গড়ে তোলার মাধ্যমে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করা সম্ভব । 

FILE INFO : HS Class 12 Geography Suggestion PDF Download for FREE | দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন বিনামূল্যে ডাউনলোড করুণ | জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – MCQ প্রশ্নোত্তর, অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর, সংক্ষিপ্ত প্রশ্নউত্তর, ব্যাখ্যাধর্মী প্রশ্নউত্তর

PDF Name : জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF

Price : FREE

Download Link : Click Here To Download

উচ্চমাধ্যমিক সাজেশন ২০২২ – HS Suggestion 2022

আরোও দেখুন:-

HS Bengali Suggestion 2022

আরোও দেখুন:-

HS English Suggestion 2022

আরোও দেখুন:-

HS History Suggestion 2022

আরোও দেখুন:-

HS Political Science Suggestion 2022

আরোও দেখুন:-

HS Philosophy Suggestion 2022

আরোও দেখুন:-

HS Education Suggestion 2022

পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক  ভূগোল পরীক্ষার সম্ভাব্য প্রশ্ন উত্তর ও শেষ মুহূর্তের সাজেশন ডাউনলোড। দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল পরীক্ষার জন্য সমস্ত রকম গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। West Bengal HS  Geography Suggestion Download. WBCHSE HS Geography short question suggestion. HS Class 12 Geography Suggestion PDF download. HS Question Paper  Political science. WB HS 2022 Geography suggestion and important questions. HS Class 12 Geography Suggestion PDF.

Get the HS Class 12 Geography Suggestion PDF by winexam.in

 West Bengal HS Class 12 Geography Suggestion PDF  prepared by expert subject teachers. WB HS  Geography Suggestion with 100% Common in the Examination.

Class 12th Geography Suggestion

West Bengal HS  Geography Suggestion Download. WBCHSE HS Geography short question suggestion. HS Class 12 Geography Suggestion PDF  download. HS Question Paper  Political science.

দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – প্রশ্ন উত্তর |  WB HS Geography  Suggestion

দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল (HS Political science) জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – প্রশ্ন উত্তর। দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – প্রশ্ন উত্তর |  WB HS Geography  Suggestion

জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – উচ্চ মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Higher Secondary Geography Suggestion

দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক বোর্ডের (WBCHSE) সিলেবাস বা পাঠ্যসূচি অনুযায়ী  দ্বাদশ শ্রেণির ভূগোল বিষয়টির সমস্ত প্রশ্নোত্তর। সামনেই উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা, তার আগে winexam.in আপনার সুবিধার্থে নিয়ে এল জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – উচ্চ মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Higher Secondary Geography Suggestion । ভূগোল বিষয়ে ভালো রেজাল্ট করতে হলে অবশ্যই পড়ুন আমাদের দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন বই ।

জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণির ভূগোল সাজেশন | West Bengal Class 12th Suggestion

আমরা WBCHSE উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ভূগোল বিষয়ের – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণির ভূগোল সাজেশন | West Bengal Class 12th Suggestion আলোচনা করেছি। আপনারা যারা এবছর দ্বাদশ শ্রেণির ভূগোল পরীক্ষা দিচ্ছেন, তাদের জন্য আমরা কিছু প্রশ্ন সাজেশন আকারে দিয়েছি. এই প্রশ্নগুলি পশ্চিমবঙ্গ দ্বাদশ শ্রেণির ভূগোল পরীক্ষা  তে আসার সম্ভাবনা খুব বেশি. তাই আমরা আশা করছি HS ভূগোল পরীক্ষার সাজেশন কমন এই প্রশ্ন গুলো সমাধান করলে আপনাদের মার্কস বেশি আসার চান্স থাকবে।

দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) | HS Class 12 Geography Suggestion with FREE PDF Download

Geography Class XII, Geography Class Twelve, WBCHSE, syllabus, HS Political science, দ্বাদশ শ্রেণি ভূগোল, ক্লাস টোয়েলভ ভূগোল, উচ্চ মাধ্যমিকের ভূগোল, ভূগোল উচ্চ মাধ্যমিক – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়), দ্বাদশ শ্রেণী – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়), উচ্চ মাধ্যমিক ভূগোল জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়), ক্লাস টেন জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়), HS Geography – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়), Class 12th জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়), Class X জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়), ইংলিশ, উচ্চ মাধ্যমিক ইংলিশ, পরীক্ষা প্রস্তুতি, রেল, গ্রুপ ডি, এস এস সি, পি, এস, সি, সি এস সি, ডব্লু বি সি এস, নেট, সেট, চাকরির পরীক্ষা প্রস্তুতি, HS Suggestion, HS Suggestion , HS Suggestion , West Bengal Secondary Board exam suggestion, West Bengal Higher Secondary Board exam suggestion , WBCHSE , উচ্চ মাধ্যমিক সাজেশান, উচ্চ মাধ্যমিক সাজেশান , উচ্চ মাধ্যমিক সাজেশান , উচ্চ মাধ্যমিক সাজেশন, দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশান ,  দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশান , দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল , দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল, মধ্যশিক্ষা পর্ষদ, HS Suggestion Geography , দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF PDF, দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF PDF, দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – সাজেশন | দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF PDF, দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF PDF,দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF PDF, দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল – জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF, HS Geography Suggestion PDF ,  West Bengal Class 12 Geography Suggestion PDF.

  এই (জীববৈচিত্র (চতুর্থ অধ্যায়) – দ্বাদশ শ্রেণীর ভূগোল সাজেশন | HS Class 12 Geography Suggestion PDF) পোস্টটি থেকে যদি আপনার লাভ হয় তাহলে আমাদের পরিশ্রম সফল হবে। আরোও বিভিন্ন স্কুল বোর্ড পরীক্ষা, প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার সাজেশন, অতিসংক্ষিপ্ত, সংক্ষিপ্ত ও রোচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর (All Exam Guide Suggestion, MCQ Type, Short, Descriptive Question and answer), প্রতিদিন নতুন নতুন চাকরির খবর (Job News) জানতে এবং সমস্ত পরীক্ষার এডমিট কার্ড ডাউনলোড (All Exam Admit Card Download) করতে winexam.in ওয়েবসাইট ফলো করুন, ধন্যবাদ।

Win exam telegram channel

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here